kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৩০ নভেম্বর ২০২১। ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

মুখোমুখি

বিশ্বসেরা বনাম গুগলির রাজা

রাহেনুর ইসলাম   

২৪ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্বসেরা বনাম গুগলির রাজা

অভিষেকেই হ্যাটট্রিক! ওয়ানডে ইতিহাসে এমন কীর্তি মাত্র তিনজনের। ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা তাঁদের অন্যতম। লেগ স্পিনে রশিদ খানের উচ্চতায় হয়তো পৌঁছাননি, তবে গুগলিতে ম্লান করতে পারেন তাঁকেও। শ্রীলঙ্কায় হাসারাঙ্গার আদুরে নাম ‘গুগলির রাজা’। সুপার টুয়েলভে শ্রীলঙ্কার এই নতুন অস্ত্র ভোঁতা করতে পারাটাই আজ চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশের। আর দাসুন শানাকার দলের ভয় সাকিব আল হাসানকে। অলরাউন্ডারদের ‘সম্রাট’ তিনি। পৌঁছেছেন টি-টোয়েন্টি উইকেটের চূড়ায়ও। এই ফরম্যাটে সবচেয়ে বেশি ১১৫ উইকেট সাকিবের। এবারের বিশ্বকাপে ১০৮ রানের পাশাপাশি নিয়েছেন ৯ উইকেট। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় দিয়ে আসল বিশ্বকাপ শুরু করতে সাকিবের দিকে চেয়ে পুরো বাংলাদেশ।

২০১৭ সালে গলে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক হাসারাঙ্গার। নিজের ১৪, ১৫ ও ১৬ নম্বর বলে হ্যাটট্রিক করে দিয়েছিলেন আগমনী বার্তা। পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি আর। তিন ফরম্যাটেই শ্রীলঙ্কার একাদশে এখন অপরিহার্য ২৪ বছরের এই তরুণ। বেশি কার্যকর টি-টোয়েন্টিতে। ২৮ ম্যাচে উইকেট ৪২টি। ওভারপিছু ৬.২৯, গড় ১৪.৩৩। তাঁর অভিষেকের পর টেস্ট খেলা দেশের রিস্ট স্পিনারদের মধ্যে বেশি উইকেট নেই আর কারো। টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষ বোলার তাবরাইজ শামসির চেয়েও গড় ও রান দেওয়ায় কৃপণ হাসারাঙ্গা।

গুগলির রাজা ভূমিকা রাখতে পারেন ব্যাট হাতেও। এবারের বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৮ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল শ্রীলঙ্কা। ৭১ রানের বিস্ফোরক ইনিংসে ম্যাচের গতিপথ বদলে দেন হাসারাঙ্গা।

বড় মঞ্চে সাকিব আল হাসান সব সময়ই বাংলাদেশের ট্রাম্পকার্ড। স্কটল্যান্ডের কাছে ভরাডুবির পর দলের মনোবল ফেরাতে রেখেছেন বড় ভূমিকা। ওমানের সঙ্গে ৪২ রানের পর ৩ উইকেট নিয়ে জিতিয়েছেন বাঁচা-মরার ম্যাচ। এরপর পাপুয়া নিউ গিনির সঙ্গে ৪৬ রান ও ৪ উইকেটে নায়ক আর একবার। বদলেছেন ইতিহাসের পাতাগুলোও। লাসিথ মালিঙ্গাকে পেছনে ফেলে টি-টোয়েন্টির উইকেটের শৃঙ্গে এখন তিনি। শহীদ আফ্রিদির চেয়ে ২০৯ বল কম করে বিশ্বকাপে নিয়েছেন যৌথ সর্বোচ্চ ৩৯ উইকেট। বিশ্বকাপ ইতিহাসে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ৬০০-র বেশি রান ও ৩০টির বেশি উইকেট নেওয়া একমাত্র ক্রিকেটার সাকিব। নিজেকে নিশ্চয়ই নিয়ে যেতে চাইবেন আরও উঁচুতে।



সাতদিনের সেরা