kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৬ আশ্বিন ১৪২৭ । ১ অক্টোবর ২০২০। ১৩ সফর ১৪৪২

পামির মালভূমিও চীনের ছিল, দাবি ইতিহাসবিদের

অনলাইন ডেস্ক   

৮ আগস্ট, ২০২০ ১৬:২৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পামির মালভূমিও চীনের ছিল, দাবি ইতিহাসবিদের

সম্প্রতি এক চীনা ইতিহাসবিদ দাবি করেছেন, পামির চীনের এলাকা ছিল। আর তারপর থেকেই চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমে পামিরকে নিজেদের অংশ বলে দাবি করে ছিনিয়ে নেওয়ার হুঙ্কার দেওয়া হচ্ছে।

চীনা ইতিহাসবিদ চো ইয়াও লু নিবন্ধে দাবি করেন, একটা সময় পুরো পামির এলাকা চীনের ছিল। তাই এবার পামিরের পার্বত্য ভূমি চীনের ফেরত নেওয়া উচিত। তিনি আরো দাবি করেন, ১৯১১ সাল থেকে চীন যে নীতি নিয়েছে তাতে হারানো জমি পুনর্দখলের কথা রয়েছে। এরই মধ্যে চীন বেশ কিছু হারানো জমি ফেরত পেয়েছে। তবে আরো অনেক বাকি। পামিরের ওপর সবার প্রথমে চীনের অধিকার ছিল। কিন্তু গত ১২৮ বছর ধরে তা আর চীনের দখলে নেই। তাই এবার সেই অঞ্চল ফিরে পেতে চায় চীন।

মধ্য এশিয়ার ছোট ও গরিব দেশ তাজিকিস্তান। ১৯৯১ সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে তৈরি হয় এই দেশ। তারপর টানা পাঁচ বছর গৃহযুদ্ধে বিধ্বস্ত হয় এই ছোট্ট পাহাড়ি দেশটি। তাজিকিস্তানের সঙ্গে সীমান্ত রয়েছে চীনের।

জানা যায়, ২০১০ সালে দুই দেশের মধ্যে মধ্যে সীমান্ত নিয়ে চুক্তি হয়েছিল। সেই চুক্তি অনুযায়ী, ১১৫৮ বর্গ কিলোমিটার এলাকা চীনকে সঁপে দিতে হয়েছিল তাজিকিস্তানকে। সেই চুক্তির পর তাজিকিস্তান ও আফগানিস্তান সীমান্তের কাছে তাশকুরগায় বিমানবন্দর নির্মাণের কাজও শুরু করে দিয়েছে। যা চিন্তায় রেখেছে তাজিকিস্তানকে। তবে মধ্যপ্রাচ্যে চীনের সাম্রাজ্য বিস্তারের দিকে নজর রেখেছে রাশিয়াও। চীনের এই সাম্রাজ্যবাদী মনোভাবের বিরুদ্ধে শুরু থেকেই রুখে দাঁড়িয়েছে রাশিয়া ও আমেরিকা।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া, সংবাদ প্রতিদিন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা