kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৬ আশ্বিন ১৪২৭ । ১ অক্টোবর ২০২০। ১৩ সফর ১৪৪২

স্বর্ণপদক প্রাপ্ত পাইলট চালাচ্ছিলেন ভারতে দুর্ঘটনাকবলিত বিমানটি

অনলাইন ডেস্ক   

৮ আগস্ট, ২০২০ ১৬:১৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বর্ণপদক প্রাপ্ত পাইলট চালাচ্ছিলেন ভারতে দুর্ঘটনাকবলিত বিমানটি

ভারতের কেরালার কোজিকড় বিমানবন্দরের রানওয়েতে ছিটকে পড়ে দুই টুকরো হয়ে যাওয়া এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের যে ২০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে তাদের মধ্যে রয়েছেন বিমানের পাইলট উইং কমান্ডার দীপক বসন্ত সাথে এবং সহ-পাইলট ক্যাপটেন অখিলেশ কুমার।

দীপক ভি সাথে ভারতীয় বিমান বাহিনীর সাবেক ফাইটার পাইলট হওয়ার পাশাপাশি সেনার ডেকরেটেড অফিসারও ছিলেন। বিমান বাহিনী থেকে অবসর নেওয়ার পর তিনি বেশ কিছুদিন এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলট পদে কাজ করেছেন। তার পর তিনি যোগ দেন এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেস বিমানে। ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমি থেকে পাস করা উইং কমান্ডার দীপক খুবই অভিজ্ঞ পাইলট ছিলেন এবং বোয়িং ৭৩৭ বিমান ওড়ানোয় দক্ষ ছিলেন।

সংবাদসংস্থা এএনআইকে দেওয়া একটি সাক্ষাত্‍কারে অবসরপ্রাপ্ত এয়ার মার্শাল ভূষণ গোখলে জানিয়েছেন, 'ক্যাপটেন দীপক ভি সাথে ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমির ৫৮তম ব্যাচের ছিলেন। জুলিয়েট স্কোয়াড্রনে ছিলেন তিনি। ১৯৮১ সালের জুন মাসের হায়দরাবাদের এয়ার ফোর্স অ্যাকাডেমি থেকে পাশ করেন সোর্ড অফ অনার নিয়ে। দারুণ পাইলট হওয়ার পাশাপাশি অসাধারণ স্কোয়াশও খেলতেন তিনি। কাজের দিক থেকে কোনোদিনই কোনো খামতি দেখা যায়নি তার মধ্যে।'

আরোক বিমান সেনা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, 'ভীষণ রকম প্রফেশনাল ছিলেন দীপক ভি সাথে। ৫৮তম এনডিএ প্রেসিডেন্ট স্বর্ণ পদকও পান তিনি। এয়ার ইন্ডিয়ার এয়ারবাস ৩১০এস-এর উড়ানের দায়িত্বে ছিলেন দীর্ঘ সময়।

দুবাই থেকে এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের বিমানটি ১৯১ যাত্রী নিয়ে কেরালায় ফিরছিল। বিমানটিতে করোনার কারণে দুবাইয়ে আটকে পড়া ভারতীয়দের দেশে ফিরিয়ে আনছিল। কারিপুর বিমানবন্দরের রানওয়েতে আছড়ে পড়ার পরই বিমানটির ফিউজলেজ ভেঙে দু’টুকরো হয়ে যায়। বিমানটি রানওয়ে ওয়ান জিরো ছোঁয়ার পরে, না-থেমেই রানওয়ের শেষ মাথায় চলে যায়। তার পর সেটি রানওয়ে থেকে ছিটকে সামনের উপত্যকায় গিয়ে পড়ে। তখনই বিমানটি দু-টুকরো হয়ে যায়।

সূত্র : ইন্ডিয়া টাইমস।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা