kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

মির্জাপুর

বালু তুলছিল বাল্কহেড, পালাতে গিয়ে সেতুতে ধাক্কা

ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় বংশাই নদীর ওপর চাঁনপুর সেতুতে ধাক্কা খায় উত্তোলনকারীদের বালুভর্তি বাল্কহেড

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

২২ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বালু তুলছিল বাল্কহেড, পালাতে গিয়ে সেতুতে ধাক্কা

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বংশাই নদীতে অবৈধভাবে বালু তোলার সময় উত্তোলনকারীদের ধাওয়া দেয় এলাকাবাসী। পালিয়ে যাওয়ার সময় সেতুতে ধাক্কা খায় বাল্কহেড। ছবি : কালের কণ্ঠ

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বংশাই নদীতে অবৈধভাবে বালু তোলার সময় উত্তোলনকারীদের ধাওয়া দেয় এলাকাবাসী। ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় বংশাই নদীর ওপর চাঁনপুর সেতুতে ধাক্কা খায় উত্তোলনকারীদের বালুভর্তি বলগেট। এতে সেতুটির উত্তর পাশ থেকে ৩ নম্বর পিলারে ফাটল দেখা দেয়। খবর পেয়ে মির্জাপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে খননযন্ত্র (মাটি কাটার মেশিন) ও বড় একটি বাল্কহেড আটক করে।

বিজ্ঞাপন

জানা গেছে, গত শুক্রবার বিকেলে উপজেলার আজগানা ইউনিয়নের বেলতৈল গ্রামের বালু ব্যবসায়ী কবীর হোসেন ও কালিয়াকৈর উপজেলার জাকির হোসেন বংশাই নদীর চাঁনপুর এলাকায় খননযন্ত্র দিয়ে বালু তুলে বড় বাল্কহেড ভর্তি করছিলেন। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন তাঁদের ধাওয়া দেয়। ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় বংশাই নদীর ওপর নির্মিত চাঁনপুর সেতুতে তাঁদের খননযন্ত্র ও বলগেটের ধাক্কা লাগে। এতে সেতুটির উত্তর পাশ থেকে ৩ নম্বর পিলারে ফাটল দেখা দেয়। খবর পেয়ে মির্জাপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাল্কহেড ও খননযন্ত্রটি আটক করে স্থানীয় লোকজনের জিম্মায় রেখে আসে।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) একরাম হোসেন জানান, এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশ মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হাফিজুর রহমান জানান, এ ঘটনায় থানা পুলিশকে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানানো হয়েছে।



সাতদিনের সেরা