kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৭ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪১

এসএসসি বিশেষ প্রস্তুতি

জীববিজ্ঞান

সুনির্মল চন্দ্র বসু, সহকারী অধ্যাপক, সরকারি মুজিব কলেজ, সখীপুর, টাঙ্গাইল

২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



জীববিজ্ঞান

গুরুত্বপূর্ণ জ্ঞানমূলক প্রশ্ন ও উত্তর

১। মাইটোসিস কী?

উত্তর : যে কোষ বিভাজনে নিউক্লিয়াস ও ক্রোমোজম একবার করে বিভাজিত হয়। ফলে মাতৃকোষ ও অপত্য কোষে ক্রোমোজম সংখ্যা সমান থাকে, তাকে মাইটোসিস বলে।

২। ক্যারিওকাইনেসিস কী?

উত্তর : নিউক্লিয়াসের বিভাজনকে ক্যারিওকাইনেসিস বলে।

৩। সাইটোকাইনেসিস কী?

উত্তর : সাইটোপ্লাজমের বিভাজনকে সাইটোকাইনেসিস বলে।

৪। ইন্টারফেজ কী?

উত্তর : বিভাজন শুরুর আগে কোষের নিউক্লিয়াসে কিছু প্রস্তুতিমূলক কাজ হয়। এ অবস্থাকে ইন্টারফেজ বলে।

৫। কোষ বিভাজনের উদ্দেশ্য কী?

উত্তর : কোষ বিভাজনের উদ্দেশ্য হলো জীবের বৃদ্ধি ও প্রজনন করা।

৬। আকর্ষণ তন্তু (traction fibre) কী?

উত্তর : ক্রোমোজমের সেন্ট্রোমিয়ার স্পিন্ডলযন্ত্রের কিছু নির্দিষ্ট তন্তুর সঙ্গে সংযুক্ত হয়। এই তন্তুগুলোকে আকর্ষণ তন্তু (traction fibre) বলে।

৭। মিয়োসিস কী?

উত্তর : যে কোষ বিভাজনে নিউক্লিয়াস দুবার এবং ক্রোমোজম একবার বিভক্ত হয়, ফলে অপত্য কোষে ক্রোমোজম সংখ্যা মাতৃকোষের ক্রোমোজম সংখ্যার অর্ধেক হয়ে যায়, তাকে মিয়োসিস বলে।

৮। গ্যামেট কী?

উত্তর : এক প্রস্থ ক্রোমোজমবিশিষ্ট জনন কোষকে গ্যামেট বলে।

৯। হ্যাপ্লয়েড কী?

উত্তর : এক প্রস্থ ক্রোমোজমকে হ্যাপ্লয়েড (n) বলে।

১০। ডিপ্লয়েড কী?

উত্তর : দুই প্রস্থ ক্রোমোজমকে ডিপ্লয়েড (2n) বলে।

১১। ম্যাক্রোনিউট্রিয়েন্ট কী?

উত্তর : উদ্ভিদের স্বাভাবিক বৃদ্ধির জন্য যেসব উপাদান বেশি পরিমাণে দরকার হয় সেগুলোকে ম্যাক্রোনিউট্রিয়েন্ট বলে।

১২। মৌল বিপাক শক্তি কী?

উত্তর : বিশ্রাম অবস্থায় আমাদের শ্বাস-প্রশ্বাস, হৃিপণ্ড প্রভৃতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কাজ যে শক্তির মাধ্যমে সম্পাদিত হয়, তাকে মৌল বিপাক শক্তি বলে।

১৪। BMI-এর পূর্ণনাম কী?

উত্তর : BMI-এর পূর্ণনাম হলো Body Mas Index.

 

অনুধাবনমূলক প্রশ্ন

১। মাইটোসিসকে সমীকরণিক বিভাজন বলা হয় কেন?

উত্তর : মাইটোসিস কোষ বিভাজনে নিউক্লিয়াস ও ক্রোমোজম একবার বিভক্ত হয় এবং সৃষ্ট অপত্য কোষ বা নতুন কোষের ক্রোমোজম সংখ্যা, গঠন ও গুণাগুণ মাতৃকোষের মতো হয়। একে সমীকরণিক বিভাজন বলা হয়।

২। সব আকর্ষণ তন্তুই স্পিন্ডল তন্তু, কিন্তু সব স্পিন্ডল তন্তুই আকর্ষণ তন্তু নয়—ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : স্পিন্ডলযন্ত্রের প্রতিটি তন্তুকে স্পিন্ডল তন্তু বলে। আর যে তন্তুর সঙ্গে সেন্ট্রোমিয়ার সংযুক্ত হয়, তাকে আকর্ষণ তন্তু বলে। অর্থাৎ কোনো স্পিন্ডল তন্তুর সঙ্গে সেন্ট্রোমিয়ার সংযুক্ত তন্তুই স্পিন্ডল তন্তু; কিন্তু সব স্পিন্ডল তন্তুই আকর্ষণ তন্তু নয়।

৩। মিয়োসিস কেন হয়?

উত্তর : মাইটোসিস কোষ বিভাজনে অপত্য কোষগুলোর ক্রোমোজম সংখ্যা মাতৃকোষের সমান থাকে। যৌন জননে পুং স্ত্রী জননকোষের মিলনের প্রয়োজন হয়। যদি জননকোষগুলোর ক্রোমোজম সংখ্যা দেহকোষের সমান থেকে যায়, তা হলে জাইগোট কোষে ক্রোমোজম সংখ্যা জীবটির দেহকোষের দ্বিগুণ হয়ে যাবে। মিয়োসিস কোষ বিভাজনে জননকোষে ক্রোমোজম সংখ্যা মাতৃকোষের ক্রোমোজম সংখ্যার অর্ধেক হয়ে যায়। এতে প্রতিটি প্রজাতির বৈশিষ্ট্য বংশপরম্পরায় টিকে থাকতে পারে।

৪। মিয়োসিসকে কেন হ্রাসমূলক বিভাজন বলা হয়?

উত্তর : মিয়োসিস কোষ বিভাজনে নিউক্লিয়াস দুবার এবং ক্রোমোজম একবার বিভক্ত হয়। ফলে অপত্য কোষে ক্রোমোজম সংখ্যা মাতৃকোষের ক্রোমোজম সংখ্যার অর্ধেক হয়ে যায়। এ বিভাজনে ক্রোমোজম সংখ্যা অর্ধেক হ্রাস পায় বলে এই প্রক্রিয়াকে হ্রাসমূলক বিভাজন বলা হয়।

৫। ক্যারিওকাইনেসিস ও সাইটোকাইনেসিসের মধ্যে ২টি পার্থক্য লেখো।

উত্তর : নিচে ক্যারিওকাইনেসিস ও সাইটোকাইনেসিসের মধ্যে পার্থক্য দেওয়া হলো—

ক্যারিওকাইনেসিস

১। নিউক্লিয়াসের বিভাজনকে ক্যারিওকাইনেসিস বলে

২। ক্যারিওকাইনেসিস সুনির্দিষ্ট

সাইটোকাইনেসিস

১। সাইটোপ্লাজমের বিভাজনকে সাইটোকাইনেসিস বলে

২। সাইটোকাইনেসিস সরাসরি ঘটে। মাইটোসিস ও মিয়োসিসের মধ্যে পার্থক্য লেখো।

উত্তর : নিচে মাইটোসিস ও মিয়োসিসের মধ্যে পার্থক্য দেওয়া হলো—

মাইটোসিস

১। জীবের দেহকোষে ঘটে

২। ২টি অপত্য কোষ সৃষ্টি হয়

৩। নিউক্লিয়াস দুবার ও ক্রোমোজোম একবার বিভক্ত হয়

৪। এই বিভাজনকে সমীকরণিক বিভাজন বলা হয়

মিয়োসিস

১। জীবের জনন মাতৃকোষে ঘটে

২। ৪টি অপত্য কোষ সৃষ্টি হয়

৩। নিউক্লিয়াস ও ক্রোমোজোম একবার বিভক্ত হয়

৪। এই বিভাজনকে হ্রাসমূলক বিভাজন বলা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা