kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

চতুর্থ শ্রেণি ► বিজ্ঞান

চতুর্থ শ্রেণির বিজ্ঞান বইয়ের চতুর্থ অধ্যায়ে খাদ্য সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে। নানা রকম খাবারের কথা জানাচ্ছেন নূসরাত জাহান নিশা

১৪ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



চতুর্থ শ্রেণি ► বিজ্ঞান

কত্ত মজার খাবার!

এখন তুমি জেনে গেলে কোন খাদ্য থেকে কী পাওয়া যায়। বাসায় তুমি এমন একটি আদর্শ খাদ্যতালিকা বানিয়ে ফেলতে পারো। প্রতি বেলার খাবার থেকে যেন পরিমাণমতো পুষ্টি, ভিটামিন, শক্তি পেয়ে থাকো।

 

মনে রাখবে—

 

১.         মোট খাবারের অর্ধেকের বেশি শাকসবজি ও ফল খেতে হবে।

২.         তেল ও চর্বিজাতীয় খাবার কম খেতে হবে।

৩. মাছ, মাংস, আমিষ জাতীয় খাবার পরিমাণমতো খেতে হবে।

 

গ্রাওওও...! তোমার পেটের ভেতর কে যেন ডেকে উঠল! একটু পর পর আবার মুচড়েও উঠছে। চিন্তায় পড়ে গেলে? পেট ফিসফিস করে বলে উঠল, ‘সারা দিন কিছু খাওয়া হয়নি। আমাকে খাবার দাও।’ পেটের কথা কেউ শুনে ফেলার আগেই তোমার চাই খাবার।

আমাদের তিন বেলা খাবার খেতেই হয়। খাবার না খেলে খেলাধুলা, পড়াশোনা, আড্ডা কিছুই করার শক্তি পাবে না। শরীর ক্লান্ত হয়ে যাবে। আর খাবার খেলে ঠিকঠাক, শরীরও থাকবে ফিটফাট।

খাদ্য কেন লাগে? খাবার থেকে আমরা পুষ্টি, খনিজ লবণ, বিভিন্ন ভিটামিন আর শক্তি পাই। কোনো কোনো খাবার থেকে বেশি পুষ্টি পাই। আবার কোনোটা থেকে কম। তোমাকে বিভিন্ন ধরনের খাদ্য নিজেদের গুণের কথা বলছে খেয়াল করে দেখো।

বেঁচে থাকতে হলে পানি খেতেই হবে তোমাকে। পরিমিত পানি না খেলে তোমার শরীর থেকে পানি কমে যাবে। যার ফলে বিভিন্ন রোগ হতে পারে। আমাকে পরিমাণমতো পান করলে তোমার খাবার থেকে পুষ্টি নিয়ে শরীরের সব জায়গায় পৌঁছে দিই। আমরা উৎপন্ন হই উদ্ভিদ থেকে। তাই আমাদের উদ্ভিজ্জ খাদ্যও বলা হয়।

 

এখন চলো কিছু প্রশ্নোত্তর পড়ে নিই ঝটপট—

১.         ভিটামিন ‘এ’র অভাবে কী রোগ হয়?

            উত্তর : রাতকানা রোগ।

২.         ভিটামিন ‘এ’ কোন উৎস থেকে পেতে পারো?

            উত্তর : গাজর, ছোট মাছ, ডিমের কুসুম ইত্যাদি।

৩.        ভিটামিন ‘সি’ আমাদের কেন দরকার?

            উত্তর : শরীরের ক্ষতস্থান সারাতে, রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বৃদ্ধি, ত্বক সুন্দর করতে ইত্যাদি।

৪.         ভিটামিন ‘বি’ কমপ্লেক্সের অভাবে কী হয়?

            উত্তর : বেরিবেরি, মুখে ও জিভে ঘা, রক্তশূন্যতা।

৫.        ভিটামিন ‘কে’-এর কাজ কী?

            উত্তর : কেটে যাওয়া স্থানে রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করে।

৬.        মাছ, মাংস, ডাল—এগুলো কী জাতীয় খাবার?

            উত্তর : আমিষ।

৭.         কোন খাবার থেকে ভিটামিন ‘ডি’ পাওয়া যায়?

            উত্তর : মাছের তেল, ডিমের কুসুম ইত্যাদি।

৮.        ভিটামিন ‘ডি’-এর অভাবে কোন রোগ হয়?

            উত্তর : রিকেটস বা হাড় বেঁকে যাওয়া রোগ।

৯.         ভিটামিন মোট কত প্রকার?

            উত্তর : ছয় প্রকার। যথা— ‘এ’, ‘বি’, ‘সি’, ‘ডি’, ‘ই’ এবং ‘কে’।

১০. ভিটামিন ‘ই’ দেহের কী উপকার করে?

            উত্তর : রক্তকোষগুলোকে নষ্ট হতে দেয় না।

১১. পুষ্টি কয় ধরনের ও কী কী?

            উত্তর : পুষ্টি উপাদান পাঁচ ধরনের।

            ক) শর্করা খ) চর্বি গ) ভিটামিন

            ঘ) আমিষ ঙ) খনিজ লবণ।

১২.       উদ্ভিজ্জ খাদ্য কাকে বলে?

            উত্তর : উদ্ভিদ থেকে শাকসবজি, ফল, খাদ্যশস্য, ডাল পাওয়া যায়। এদের উদ্ভিজ্জ খাদ্য বলে।

১৩.      প্রাণিজ খাদ্যদ্রব্য কী?

            উত্তর : প্রাণী থেকে যে খাবার পেয়ে থাকি তাদের বলা হয়। যেমন—মাছ, মাংস, ডিম ইত্যাদি।

১৪.       সুষম খাদ্য কী?

            উত্তর : সব প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান যে খাদ্যে পরিমাণমতো থাকে।

১৫.      সকল প্রকার খাদ্য কয়টি দলে বিভক্ত?

            উত্তর : ছয়টি দলে।

১৬. খাদ্যের ছয়টি দল কী কী?

            উত্তর : ক) খাদ্যশস্য ও আলু

            খ) শাকসবজি   গ) ফল

            ঘ) মাছ, মাংস, ডাল ঙ) দুগ্ধজাত খাদ্য চ) তেল ও চর্বি।

১৭.       দুধ, পনির, দই—এরা কোন দলের খাদ্য?

            উত্তর : দুগ্ধজাত দলের খাদ্য।

১৮.      চাল, গম, আলু থেকে আমরা কোন পুষ্টি পাই?

            উত্তর : শর্করা।

১৯.       দুগ্ধজাত খাদ্য থেকে আমরা কী পাই?

            উত্তর : ক্যালসিয়াম।

২০.      মাছ, মাংস, ডাল থেকে আমরা কী পুষ্টি পাই?

            উত্তর : প্রোটিন বা আমিষ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা