kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৬ আশ্বিন ১৪২৭ । ১ অক্টোবর ২০২০। ১৩ সফর ১৪৪২

রাশিয়ার টিকা নিয়ে খুবই সন্দিহান জার্মান স্বাস্থ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক   

১২ আগস্ট, ২০২০ ১২:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাশিয়ার টিকা নিয়ে খুবই সন্দিহান জার্মান স্বাস্থ্যমন্ত্রী

সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে দুই কোটি পাঁচ লাখ ২৬ হাজার ৯৮ জন এবং মারা গেছে সাত লাখ ৪৫ হাজার নয়শ ৮১ জন। এরই মধ্যে বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে করোনার টিকা সফলভাবে উদ্ভাবনের দাবি করেছে রাশিয়া।

তবে রাশিয়ার তৈরি করোনা টিকার ব্যাপারে চরম সন্দেহ প্রকাশ করেছেন জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী। জেনস স্ফান এ ব্যাপারে বলেন, এটা প্রথমে উদ্ভাবনের ব্যাপার নয়, নিরাপদ টিকা খুঁজে বের করার বিষয়।

রাশিয়ার তৈরি করোনা টিকা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকটিয়াস ডিজিসের প্রধান অ্যান্থনি ফাউসি।

ফাউসি বলেছেন, একটি টিকা বাজারে নিয়ে আসা এবং একটি টিকা নিরাপদ এবং কার্যকর প্রমাণ করা একেবারে ভিন্ন বিষয়।

গতকাল তিনি এমন এক সময় মন্তব্যটি করেন, যার কয়েক ঘণ্টা আগেই রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, তার দেশ সারাবিশ্বের মধ্যে সবার আগে করোনাভাইরাসের টিকা অনুমোদন দিতে চলেছে।

পুতিন বলেছেন, এই টিকা পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। ফলাফলে দেখা গেছে, সারাবিশ্বে দুই কোটিরও বেশি মানুষ যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে, এই টিকা সেই ভাইরাস প্রতিরোধে সক্ষম। 

এমনকি রাশিয়ার তৈরি টিকা নিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনের বহু গবেষকের সন্দেহ রয়েছে। ফাউসি এবং হোয়াইট হাউসের  করোনা টাস্কফোর্সের অন্যরা বলেছেন, পুতিনের দাবির ব্যাপারে কোনো প্রমাণ তারা পাননি।

ফাউসি বলেন, আমি আশা করি যে রুশরা প্রকৃতপক্ষে, নিশ্চিতভাবে প্রমাণ করেছে যে টিকাটি মানুষের জন্য নিরাপদ এবং কার্যকর। তবে তারা এটি করার ব্যাপারে আমার গুরুতর সন্দেহ রয়েছে।

এদিকে ভ্লাদিমির পুতিনের দাবি, টিকা নিরাপদ বলেই তিনি নিজের মেয়ের শরীরে এটি দিতে দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমি জানি এটা দারুণ কার্যকর। শক্তিশালী প্রতিরোধক্ষমতা দেখায়। যত পরীক্ষা আছে, এর সব কটিতেই এটি পাস করেছে।

টিকা নেওয়ার পর পুতিনের শরীরে প্রথমে জ্বর এলেও পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাওয়ার দাবি করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট।

সূত্র : রয়টার্স

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা