kalerkantho

বুধবার । ৭ আশ্বিন ১৪২৮। ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৪ সফর ১৪৪৩

দুই কিডনিই অচল, রাজুকে বাঁচাতে প্রয়োজন ৫০ লাখ টাকা

অনলাইন ডেস্ক   

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৮:৪৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দুই কিডনিই অচল, রাজুকে বাঁচাতে প্রয়োজন ৫০ লাখ টাকা

পড়ালেখার পাশাপাশি সমাজসেবা করতেন, অসুস্থ মানুষদের রক্ত দিতেন। এ জন্য গড়ে তুলেছেন সংগঠনও। কিন্তু ৩০ বছরের টগবগে তরুণ রাজু কি জানতেন মানুষের কাছেই একদিন তাঁকে বাঁচার জন্য সাহায্য চাইতে হবে? প্রায় অচল হয়ে পড়েছে তাঁর দুটি কিডনিই।

নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগঞ্জ থানার চরকাঁকড়া ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা নূর এ মাওলা রাজু। তিন ভাই, এক বোনের মধ্যে সবার বড়। নোয়াখালী কলেজ থেকে ম্যানেজমেন্টে মাস্টার্স সম্পন্ন করা রাজু পরিবারের হাল ধরার অপেক্ষায়। ছোট ভাই-বোন সবাই পড়ালেখা করে। বাবা নুরুল হুদা একসময় বিদেশে ছিলেন। আত্মীয়-স্বজনের সহযোগিতায় এখন কোনোভাবে সংসার চলছে।

পড়ালেখার পাশাপাশি সামাজিক কর্মকাণ্ডেও যুক্ত আছেন রাজু। তিনি কোম্পানীগঞ্জের শিক্ষার্থীদের নিয়ে গড়া সংগঠন ‘উই ফর ইউ’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। সংগঠনটির কাজ অসহায় মানুষদের রক্তদান। বর্তমানে এই সংগঠনের সদস্যসংখা সাত হাজার। এ পর্যন্ত তারা ১৫ হাজারের বেশি মানুষকে রক্তদান করেছেন।

পড়ালেখা শেষে বড় ছেলে হিসেবে পরিবারের হাল ধরতে রাজু সৌদি আরব যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কিন্তু মেডিক্যাল পরীক্ষা করে জানতে পারলেন, তাঁর দুটি কিডনিই প্রায় অচল। মুহূর্তেই যেন সব স্বপ্ন চুরমার হয়ে গেল। তবু মনে সাহস রেখে আরো নিশ্চিত হওয়ার জন্য বাংলাদেশ মেডিক্যাল ও জাপান বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হসপিটালে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করান। এবার পুরোপুরি নিশ্চিত হন, তাঁর কিডনি দুটি আসলেই প্রায় অচল। বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেফ্রোলজি বিভাগের প্রধান ডা. নজরুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে ভর্তি আছেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসক নজরুল ইসলাম দিপু জানিয়েছেন, তাঁকে বাঁচাতে হলে অতি দ্রুত কিডনি প্রতিস্থাপন করতে হবে। পরিবারের সদস্যরা প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কিডনি প্রতিস্থাপন করতে হলে প্রায় ৫০ লাখ টাকা লাগতে পারে। এই খরচ দেওয়ার মতো সক্ষমতা তাঁর পরিবারের নেই। তাই এত দিন মানুষের পাশে দাঁড়ানো রাজু এখন সবার সাহায্য চাইছেন। সাহায্য পাঠানোর ব্যাংক হিসাব নম্বর ১০৯১২৬০১৪৮৪৪১, ইস্টার্ন ব্যাংক, বনশ্রী শাখা। বিকাশ নম্বর ০১৩০১৬৫৭৭২১, ০১৭০০৭৬৩১৯৮। 

রাজুর চাচা আব্দুল কাদির রাহিদ বলেন, ‘রাজু একজন মেধাবী তরুণ। সে অকালে হারিয়ে যাবে, এটা কোনোভাবেই মানতে পারছি না। এ দেশে দানশীল মানুষের অভাব নেই। আমার বিশ্বাস, রাজুর সাহায্যে সবাই এগিয়ে আসবেন। রাজু বাঁচলে তার পরিবারটিও অবলম্বন খুঁজে পাবে।’

মামা নূর নবী বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন সময় অসহায়দের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন। তিনি যদি রাজুর চিকিৎসার দায়িত্ব নেন, তাহলে আমরা তাঁর কাছে সারা জীবন কৃতজ্ঞ থাকব। সেই সঙ্গে আমি আমাদের এলাকার কৃতী সন্তান সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। তিনিও এলাকার মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে দাঁড়ান। আশা করি, আমাদের আবেদনে তাঁরা সাড়া দেবেন।’



সাতদিনের সেরা