kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১১ সফর ১৪৪২

তারকা বানানোর কারিগর চঞ্চল মাহমুদ স্ত্রীকে বাঁচাতে চাইছেন সাহায্য

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ অক্টোবর, ২০১৯ ১১:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তারকা বানানোর কারিগর চঞ্চল মাহমুদ স্ত্রীকে বাঁচাতে চাইছেন সাহায্য

তার ক্যামেরায় ছবি তুলে অনেকেই হয়েছেন তারকা মহা তারকা। এখন আয় করেন কাড়ি কাড়ি টাকা। অথচ এই ক্যামেরার মানুষটির এখন যে দুর্দশা তা হয়তো কল্পনাও করতে পারবেন না। একটা সময় ছিল, 'চঞ্চল মাহমুদের কাছে ছবি তুলবো, তাহলেই হয়তো সুযোগ পেতে পারি কোথাও।' 

নতুন মডেলিং ক্যারিয়ার শুরু করতে আসা এরকম সহস্র-তরুণ-তরুণী চঞ্চল মাহমুদের ক্যামেরায় ছবি তুলে পৌঁছে গেছেন অভীষ্ঠ লক্ষ্যে। কিন্তু ছবি তুলে তারকা বানানো চঞ্চল মাহমুদ আজ তাদেরই দ্বারপ্রান্তে, দেশের মানুষের কাছে নিজের স্ত্রীকে বাঁচাতে হাত পাতছেন। 

শনিবার রাতে চঞ্চল মাহমুদ ফেসবুক হ্যান্ডেলে লিখেছেন, 'আমার প্রিয় ফেইসবুক বন্ধুরা আজকে অনেক কষ্ট নিয়ে আপনাদের লিখছি - আমার স্ত্রী রায়না মাহমুদ মিতুর শরীরে ক্যান্সার ধরা পড়েছে। চিকিৎসা শুরু হয়েছে - আর এজন্য অনেক টাকার প্রয়োজন - আর আমারও এ পর্যন্ত ৩ বার হার্ট অ্যাটাক হয়েছে - আমারও চিকিৎসা চলছে। এই ১২ বছরে আমাদের সবকিছুই শেষ। আমাদের দুইজনের চিকিৎসা চালানো আর সম্ভব হচ্ছে না। অনেক টাকাই দরকার মিতুর ক্যান্সার চিকিৎসার জন্য- কয়েকদিনের মধ্যে মিতুকে টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে।'

আর্থিক সহায়তা চেয়ে চঞ্চল মাহমুদ লিখেছেন, 'আমাদেরকে আর্থিকভাবে যারা সাহায্য করতে চান, তারা দয়া করে যোগাযোগ করবেন এই নম্বরে- চঞ্চল মাহমুদ- ০১৭১১৫২২১২৬। একাউন্ট নামঃ চঞ্চল মাহমুদ ফটোগ্রাফি, ব্যাংকের নাম- ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড, ধানমণ্ডি শাখা, ব্যাংক একাউন্ট নম্বরঃ ২০৫-১০০-৮৯৬২। 

তিনি বলেন, 'এতদিন মানুষকে সাহায্য করেছি - আজকে আমি নিঃস্ব - বন্ধুরা। আমরা দুই জনই এতিম, ভাই-বোন কেউই নাই। এছাড়া আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি - এই মহা বিপদের হাত থেকে আমাদেরকে রক্ষা করুন। আমার বয়স এখন ৬৪ বছর আর মিতুর বয়স ৫০ বছর। ৪৮ বছর ফটোগ্রাফি করেছি - কত স্টার, সুপার স্টার আর মেগা স্টার তৈরি করেছি - কিন্তু রয়ে গেছি অন্তরালে - চিকিৎসা খরচ বহন করতে করতে আজকে নিঃস্ব আমি। বন্ধুরা দয়া করে সাহায্য করুন। বন্ধুরা আমাদের জন্য দোয়া করবেন। আল্লাহ মালিক। আল্লাহ সবাইকে ভালো রাখুক।' 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা