kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

কমিউনিটি ক্লিনিকের স্বাস্থ্য সহকারীর ওপর হামলা

আমতলীতে হাতুড়িপেটা মামলায় শ্রমিক নেতাকে গ্রেপ্তারে যান চলাচল বন্ধ, ভোগান্তিতে যাত্রীরা

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৩:০২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আমতলীতে হাতুড়িপেটা মামলায় শ্রমিক নেতাকে গ্রেপ্তারে যান চলাচল বন্ধ, ভোগান্তিতে যাত্রীরা

বরগুনার আমতলী কমিউনিটি ক্লিনিকের স্বাস্থ্য সহকারীকে হাতুড়িপেটা করে হাত-পা থেতলে দেওয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি জেলা যান্ত্রিকযান ত্রি-হুইলার মালিক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো.  জহিরুল ইসলাম খোকন মৃধাকে গ্রেপ্তার করায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আমতলী উপজেলায় চলাচলরত সকল গাড়ি। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন অভ্যন্তরিন রুটের যাত্রীরা। 

গত বৃহস্পতিবার সকাল সারে ১০টার দিকে আমতলী সদর ইউনিয়নের ইসলামপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের স্বাস্থ্য সহকারী মো. আবুল কালাম আজাদকে ১৫-২০ জনের একদল সন্ত্রাসী এলোপাতাড়ি হাতুড়িপেটা করে। এতে তার ডান পা ও হাত থেতলে যায়। 

আহত আবুল কালাম আজাদের দাবি, সদ্য সমাপ্ত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সদর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মো. মোতাহার উদ্দিন মৃধার ছোট ভাই বরগুনা জেলা যান্ত্রিকযান ত্রি-হুইলার মালিক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. জহিরুল ইসলাম খোকন মৃধার সাথে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা নিয়ে তাদের সাথে মারামারির ঘটনা ঘটেছিল। সেই ঘটনার জের ধরে খোকন মৃধার নেতৃত্বে ১৫-২০ জন সন্ত্রাসী তাকে হাতুড়িপেটা করে হাত-পা থেতলে দিয়েছে। 

এ ঘটনায় গত শনিবার দুপুরে আবুল কালাম আজাদের বাবা মো. কাঞ্চন আলী মৃধা বাদী হয়ে মো. জহিরুল ইসলাম খোকন মৃধাকে প্রধান আসামি করে ১২ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই দিনই রাত ৮টার দিকে জহিরুল ইসলাম খোকন মৃধাকে আমতলী থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে আজ রবিবার আদালতে সোপর্দ করে। খোকন মৃধার গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে আজ সকাল থেকে আমতলী উপজেলার অভ্যন্তরিন রুটের সব ত্রি-হুইলার চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। 

গাজীপুর বন্দরের যাত্রী নিজাম উদ্দিন বলেন, সকালে আমতলী যাওয়ার জন্য মাহেন্দ্রা স্ট্যান্ডে এসে দেখি গাড়ি বন্ধ। পড়ে বেশি ভাড়া দিয়ে মোটরসাইকেলে আমতলী এসেছি।

আমতলী-তালতলী রুটের যাত্রী আবুল হোসেন ও সুফিয়া বেগম বলেন, আমি সবসময় মাহেন্দ্র গাড়িতে চলাচল করি। আজ মাহেন্দ্র বন্ধ থাকায় বাধ্য হয়ে বাসে তালতলী যাচ্ছি।

আমতলী-নোমরহাট রুটে চলাচলরত মাহেন্দ্র ড্রাইভার মো. কামাল, জামাল হোসেন, রেজাউল করিম, সুলতান বলেন, আমাদের নেতা খোকন মৃধা এ ঘটনার সাথে জড়িত নয়। তাকে মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার করার প্রতিবাদে আমরা আমতলীতে সকল গাড়ি চলাচল বন্ধ রেখেছি। 

আমতলী থানার ওসি মো. আবুল বাশার বলেন, ত্রি-হুইলার গাড়ির চালকরা অভ্যন্তরিন রুটে তাদের গাড়ি চালানো বন্ধ রেখেছে শুনেছি। হাতুড়িপেটার ঘটনার থানায় ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার প্রধান আসামি জহিরুল ইসলাম খোকন মৃধাকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা