kalerkantho

শনিবার । ৯ মাঘ ১৪২৭। ২৩ জানুয়ারি ২০২১। ৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সমাজে অবদানের জন্য ১০ তরুণ পেলেন টিওওয়াইপি অ্যাওয়ার্ড

অনলাইন ডেস্ক   

১৭ নভেম্বর, ২০২০ ১৫:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সমাজে অবদানের জন্য ১০ তরুণ পেলেন টিওওয়াইপি অ্যাওয়ার্ড

প্রতিবছরের মতো এবারও জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল (জেসিআই) বাংলাদেশ আয়োজন করল টেন আউটস্ট্যান্ডিং ইয়াং পার্সনস (টিওওয়াইপি) অ্যাওয়ার্ড-২০২০। জেসিআইর টেন আউটস্ট্যান্ডিং ইয়াং পার্সনস (টিওওয়াইপি) পুরস্কার প্রতিবছর অনূর্ধ্ব-৪০ বছর বয়স্ক ১০ তরুণ দক্ষ নেতাকে সম্মানিত করে। সমাজের উন্নয়নে অসাধারণ ভূমিকা রাখার কারণে পুরস্কারের মাধ্যমে তাদের সম্মানিত করা হয়। 

এই পুরস্কার ব্যবসা, অর্থনীতি অথবা উদ্যোক্তা উন্নয়নে অবদান, রাজনীতি, আইন বা সরকারী বিষয়াদি, শিক্ষাগত নেতৃত্ব, ব্যক্তিগত উন্নতি, চিকিৎসা উদ্ভাবন, সাংস্কৃতিক অর্জনসহ বিভিন্ন বিভাগের অর্জনগুলোকে স্বীকৃতি দিয়ে থাকে। এর বাইরেও যুক্ত আছে মানবতা ও স্বেচ্ছাসেবায় নেতৃত্বদানকারীদের জন্য সম্মাননা।

গত ১৪ নভেম্বর রাজধানীর পাঁচ তারকা হোটেল লে মেরিডিয়ানে সন্ধ্যা সাতটায় এটি অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন নাহিম রাজ্জাক, এমপি।

২০২০ টিওওয়াইপি অ্যাওয়ার্ড দ্বারা ভূষিতরা হলেন, শেখ তন্ময়, শামস মাহমুদ, সাফওয়ান সোবহান, সিদ্দিকুর রহমান, আকবর আলী, হৃদয় খান, আয়মান সাদিক, তানভির আহমেদ, নবনীতা চৌধুরী ও রেজাউল কবির। 

জেসিআই হলো ১৮-৪০ বছর বয়সী তরুণ নাগরিকদের নিয়ে গঠিত বিশ্বব্যাপী একটি সংগঠন, যা তরুণদের নেতৃত্ব বিকাশে সক্রিয় অবদান রাখে। যেসব তরুণ-তরুণী নিজের, দেশের এবং বিশ্বব্যাপী ইতিবাচক পরিবর্তন নিশ্চিত করতে চায়, তা সম্পন্ন করতে উদ্বুদ্ধ করে। বর্তমানে এই সংগঠনের ১০৫টিরও বেশি দেশে প্রায় দেড় লাখ সক্রিয় সদস্য রয়েছে। জেসিআই বাংলাদেশ প্রতিবছর সমাজে তরুণ-তরুণীদের অবদানকে স্বীকৃতি দেওয়ার উদ্যোগ নেয়। যার একটি হলো 'জেসিআই বাংলাদেশ টিওয়াওয়াইপি অ্যাওয়ার্ড-২০২০'।  

জেসিআই বাংলাদেশের সভাপতি সারাহ কামাল বলেন, আমরা তরুণদের নেতৃত্ব বিকাশে কাজ করতে চাই যারা আগামী দিনে বিশ্বে ইতিবাচক পরিবর্তন আনবে, অর্থনীতি পুনঃগঠন ও উন্নয়নে অবদান রাখবে, জনবলকে উদ্বুদ্ধ করবে, মানসিক স্বাস্থ্যের সুরক্ষা করবে, দক্ষতা ও মেধাকে কাজে লাগিয়ে সঠিক প্রশিক্ষণ ও অনুষ্ঠান দ্বারা সদস্যদের মাঝে বৈশ্বিক নেতৃত্ব দানের মানসিকতা জাগিয়ে তুলবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা