kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আক্কেলপুরে চেয়ারম্যান-মেয়রের দ্বন্দ্ব

যৌন হয়রানি মামলায় গিয়ে ঠেকল শত্রুতা

জয়পুরহাট ও আক্কেলপুর প্রতিনিধি   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যৌন হয়রানি মামলায় গিয়ে ঠেকল শত্রুতা

উপজেলা চেয়ারম্যানের নামে মেয়েকে যৌন হয়রানির অভিযোগে মামলা করার পরের দিনই ভোল পাল্টিয়েছেন ওই স্কুলছাত্রীর মা। গতকাল সোমবার জয়পুরহাট প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করেন, এ মামলা করানোর পেছনে পৌর মেয়রের হাত ছিল। এ সময় তিনি বলেন, ‘আক্কেলপুরের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুস সালাম আকন্দের নামে যৌন হয়রানির অভিযোগটি সত্য নয়। আক্কেলপুরের পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর আমাকে চেয়ারম্যানের নামে মামলা করতে চাপ দিয়েছেন। মেয়রের ফাঁদে পড়ে উপজেলা চেয়ারম্যানের নামে যৌন হয়রানির মিথ্যা অভিযোগে মামলা করায় আমি লজ্জিত ও দুঃখিত।’ এ সংবাদ সম্মেলনে ওই স্কুলছাত্রী, তার মা ও তার খালা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও রুকিন্দিপুর ইউপি চেয়ারম্যান আহসান কবীর, সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহফুজা সুলতানা মলি, আওয়ামী লীগ নেতা মজিবর রহমান প্রমুখ।  

মেয়েকে যৌন হয়রানির অভিযোগে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম আকন্দের নামে গত রবিবার আক্কেলপুর থানায় মামলা করেন তার মা। মামলার ঘটনাটি জানাজানির পর ক্ষোভে ফেটে পড়েন চেয়ারম্যান সমর্থকরা। ওই দিন বিকেলেই নেতাকর্মীরা উপজেলা চেয়ারম্যানকে সঙ্গে নিয়ে বিক্ষোভ করেন। এ সময় তাঁরা মামলার জন্য পৌর মেয়র অবসরকে দায়ী করে নানা রকম স্লোগান দিয়ে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

আক্কেলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহফুজা সুলতানা মলি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গত উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুস সালাম আকন্দ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ওই নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরোধিতা করেন পৌর মেয়র অবসর চৌধুরী। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। শুধু বিরোধিতার কারণেই অবসর চৌধুরী উপজেলা চেয়ারম্যানকে সামাজিকভাবে হেয় করতে নোংরা খেলা শুরু করেছেন।

আক্কেলপুরের পৌর মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর বলেন, ‘শ্লীলতাহানির অভিযোগে চেয়ারম্যানের নামে মামলার বিষয়টি আমি লোকমুখে শুনেছি। অভিযোগকারী মা ও মেয়েকে আমি চিনি না। মেয়ের খালা আমাকে ফোন দিয়ে জানিয়েছে, তাদের ওপর অত্যাচার হচ্ছে। থানা মামলা না নেওয়ায় ৯৯৯ নম্বরে ফোন দেওয়ার পর তাদের মামলা থানা নিয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত বা রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা নেই। তার পরও এ ঘটনার জন্য আমাকে জড়িয়ে দেওয়া  দুঃখজনক।’

আক্কেলপুর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম আকন্দ বলেন, ‘উপজেলা নির্বাচনে আমাকে পরাজিত করতে না পেরে সেই থেকে বিরোধিতা করছেন পৌর মেয়র গোলাম মাহফুজ অবসর। দলের আসন্ন উপজেলা কাউন্সিলে আমি সভাপতি পদপ্রার্থী। দলের বেশির ভাগ নেতাকর্মী আমার পক্ষে। জনপ্রিয়তায় আমার সঙ্গে টিকতে না পেরে আমাকে নিয়ে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে মেয়র। শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে আমার নামে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা করিয়েছে।’

আক্কেলপুর থানার ওসি কিরণ কুমার রায় বলেন, ‘যৌন হয়রানির অভিযোগে উপজেলা চেয়ারম্যানের নামে গত রবিবার স্কুলছাত্রীর মা মামলা করেন। তদন্তের পর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা