kalerkantho

শুক্রবার । ১৪ কার্তিক ১৪২৭। ৩০ অক্টোবর ২০২০। ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

নবীজির কতজন সাহাবি ছিলেন

মুফতি তাজুল ইসলাম   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নবীজির কতজন সাহাবি ছিলেন

সহজ অর্থে সাহাবি মানে মহানবী (সা.)-এর সঙ্গী-সাথি। ‘আল ইসাবা’ নামক কিতাবে আল্লামা ইবনে হাজার আসকালানি (রহ.) লিখেছেন, ‘যিনি ঈমান আনা অবস্থায় রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর সাক্ষাৎ লাভ করেছেন এবং ইসলামের ওপর অবিচল থাকা অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন তিনিই সাহাবি।’

কোরআন ও হাদিসের বিভিন্ন স্থানে সাহাবায়ে কেরামের মর্যাদা বর্ণিত হয়েছে। পবিত্র কোরআনে মহান আল্লাহ তাঁদের ওপর সন্তুষ্ট হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আকিদা ও বিশ্বাস মতে, মুহাজির সাহাবিরা আনসারি সাহাবিদের চেয়ে মর্যাদাবান। তারা আরো বিশ্বাস করে, আল্লাহ তাআলা বদরের যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী ৩১৩ জন সাহাবির ব্যাপারে বলেছেন, ‘তোমরা যা ইচ্ছা করতে থাকো। আমি তোমাদের ক্ষমা করে দিয়েছি।’ আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের বিশ্বাস মতে, যেসব সাহাবি হুদায়বিয়ার দিন বৃক্ষের নিচে বাইআত করেছে, তাদের কেউ জাহান্নামে প্রবেশ করবে না। শুধু তা-ই নয়; আল্লাহ তাআলা তাদের ওপর সন্তুষ্ট হয়েছেন এবং তারাও আল্লাহর ওপর সন্তুষ্ট হয়েছে। তাদের সংখ্যা ছিল এক হাজার ৪০০ জন। এ ছাড়া মহানবী (সা.) বেশ কয়েকজন সাহাবির ব্যাপারে জান্নাতের সুসংবাদ দিয়েছেন। জান্নাতের সুসংবাদপ্রাপ্ত ১০ জন সাহাবি আছেন। তাঁরা হলেন—

(১) আবু বকর (রা.)। (২) উমর (রা.)। (৩) উসমান ইবনে আফফান (রা.)। (৪) আলী ইবনে আবি তালিব (রা.)। (৫) তালহা ইবনে উবায়দুল্লাহ (রা.)। (৬) জুুবাইর ইবনুল আওয়াম (রা.)। (৭) আবদুর রহমান ইবনে আউফ (রা.)। (৮) সাদ ইবনে আবি ওয়াক্কাস (রা.)। (৯) সাঈদ ইবনে জায়িদ (রা.) (১০) আবু উবাইদা ইবনুল জাররাহ (রা.)।

সাহাবিদের সংখ্যা

সাহাবিদের সংখ্যা কত ছিল—সে ব্যাপারে সুস্পষ্ট কোনো হাদিস পাওয়া যায় না। তবে হাদিস, সিরাত ও ইতিহাসের বিভিন্ন দিক গবেষণা করে মুহাদ্দিসরা এর আনুমানিক সংখ্যা উল্লেখ করেছেন। যেমন—

ইমাম মুসলিমের উস্তাদ হাফেজ আবু জুরয়া (রহ.) দৃঢ়তার সঙ্গে বলেছেন, সাহাবিদের সংখ্যা ১,১৪,০০০ (এক লাখ ১৪ হাজার)। [আল জামে ২/২৯৩ (খতিব বাগদাদি)]

আবু জুরয়া (রহ.)-কে নবী করিম (রা.) থেকে যেসব সাহাবি হাদিস বর্ণনা করেছেন তাঁদের সংখ্যা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, কে এই সংখ্যা সঠিকভাবে সংরক্ষণ করেছে? বিদায় হজে নবীজির সঙ্গে অংশগ্রহণ করেছেন ৪০ হাজার সাহাবি আর তাবুক যুদ্ধে ৭০ হাজার সাহাবি।

তিনি আরো বলেছেন, ‘নবী (সা.) মদিনা, মক্কা এবং এর মাঝের বিভিন্ন এলাকায় বসবাসকারী এবং বেদুইনদের মধ্য থেকে এক লাখ ১৪ হাজার সাহাবি ছেড়ে দুনিয়া থেকে বিদায় গ্রহণ করেন। যাঁরা তাঁর কাছ থেকে হাদিস বর্ণনা করেছেন এবং তাঁর কাছে শুনেছেন। (অথবা তিনি বলেছেন, যাঁরা তাঁকে দেখেছেন বা তাঁর কথা শুনেছেন)। আর বিদায় হজে জাবালে আরাফাতে (আরাফাত পর্বতে) সবাই তাঁকে দেখেছেন এবং তাঁর কথা শুনেছেন।’ (মুকাদ্দামায়ে ইবনুস সালাহ, মারিফাতু আনওয়ায়ি উলুমিল হাদিস। অধ্যায় : ৩৯, অনুচ্ছেদ : সাহাবি-পরিচিতি)

জালালুদ্দিন সুয়ুতি (রহ.) বলেন, সাহাবিদের সংখ্যা ১,২৪,০০০ (এক লাখ ২৪ হাজার)। (আল খাসাইসুল কুবরা)। এ ছাড়া আরো একাধিক মত পাওয়া যায়। মোটকথা, সাহাবিদের সংখ্যা এক লাখের বেশি।

 

মন্তব্য