kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

অভিশংসনের মুখে ট্রাম্প

বলছেন ‘ধাপ্পাবাজি’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অভিশংসনের মুখে ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অভিশংসনের লক্ষ্যে ইতিমধ্যে দুটি সুনির্দিষ্ট অভিযোগ সামনে এনেছেন কংগ্রেসের ডেমোক্র্যাটরা। তাঁদের দখলে থাকা হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে প্রেসিডেন্টের অভিশংসন প্রায় নিশ্চিত বলেই মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা। এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি দাঁড়িয়েও ট্রাম্প অভিশংসন কার্যক্রমকে ‘ধাপ্পাবাজি’ আখ্যা দিতে ছাড়ছেন না। এভাবে বাস্তবতা অস্বীকার করার মধ্য দিয়ে তিনি টিকে থাকার আপ্রাণ চেষ্টা করছেন, এমনটাই অভিমত বিশ্লেষকদের।

ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে অভিশংসিত করতে তদন্ত শেষে প্রতিবেদন প্রদানের পর গত মঙ্গলবার আরেক ধাপ এগিয়ে যান হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের ডেমোক্র্যাটরা। এদিন তাঁরা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ উত্থাপনের পাশাপাশি কংগ্রেসের কাজে বাধাদানের অভিযোগও তোলেন। এ দুটি অভিযোগের ওপর হাউসের ভোটাভুটির তারিখ এখনো নির্দিষ্ট করা না হলেও আগামী সপ্তাহেই তা করা হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে। আর সেই ভোটাভুটিতে হেরে যাওয়ার প্রবল আশঙ্কা সত্ত্বেও হাল ছাড়েননি ট্রাম্প।

অভিশংসনের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত লড়াই করতে থাকা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত মঙ্গলবার পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে নির্বাচনী সভায় দাবি করেছেন, তাঁর বিরুদ্ধে ডেমোক্র্যাটরা যেসব অভিযোগ তুলেছেন, সেগুলো ‘কোনো অপরাধই নয়’। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের দেশের এ যাবৎকালের ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে হালকা ধাঁচের অভিশংসন। এমনকি এটাকে অভিশংসন বলে মনেই হচ্ছে না।’ সাম্প্রতিক এ বক্তব্যের পাশাপাশি আগে থেকেই তিনি অভিশংসন তদন্তকে ‘ধাপ্পাবাজি’ আখ্যা দিয়ে আসছেন।

অভিশংসনের মুখে দাঁড়িয়েও ট্রাম্পের এমন জোরালো অবস্থানের কারণ সম্পর্কে বিশ্লেষকদের অভিমত, এভাবে তিনি আসলে ভোটারদের উজ্জীবিত রাখার চেষ্টা করছেন। ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন সামনে রেখে দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য লড়াইয়ে নেমে তিনি স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে কটূক্তি অব্যাহত রেখেছেন।

তা ছাড়া কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে গিয়ে অভিশংসনের অভিযোগ হালে পানি পাবে না, এমন আত্মবিশ্বাস থেকে প্রেসিডেন্ট বর্তমান পরিস্থিতিকে উপেক্ষা করছেন—তেমনটাও হতে পারে বলে বিশ্লেষকদের ধারণা। কারণ সিনেটে বর্তমানে রিপাবলিকানদের আধিপত্য বজায় রয়েছে। সিনেটে রিপাবলিকানদের আধিপত্যের বিষয়টি মাথায় রেখে তিনি ডেমোক্র্যাটদের উদ্দেশে দম্ভের সঙ্গে টুইটারে লিখেছেন, ‘আপনারা আমাকে অভিশংসন করতে চাইলে এখনই করুন, দ্রুত, যেন আমরা সিনেটে ন্যায়বিচার পেতে পারি।’

আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমোক্র্যাট রাজনীতিক জো বাইডেনের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরুর জন্য ট্রাম্প ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির ওপর চাপ সৃষ্টি করেছেন, এমনকি স্বার্থসিদ্ধির জন্য তিনি ইউক্রেনকে দেওয়া সামরিক সহায়তা স্থগিত করেছেন—এমন অভিযোগে ট্রাম্পের অভিশংসনের উদ্যোগ নিয়েছেন ডেমোক্র্যাটরা। তাঁর অভিশংসন নিশ্চিত হলে তিনি হবেন যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় অভিশংসিত প্রেসিডেন্ট। সূত্র : এএফপি, সিএনএন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা