kalerkantho

রবিবার । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৫ ডিসেম্বর ২০২১। ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

ফের ভূমিকম্পে সারা দেশে আতঙ্ক

মৃত্যু ৩, আহত ও অসুস্থ ১০০০, ভবন ক্ষতিগ্রস্ত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৭ এপ্রিল, ২০১৫ ০০:০০ | পড়া যাবে ৭ মিনিটে



ফের ভূমিকম্পে সারা দেশে আতঙ্ক

ফের ভূমিকম্পে গতকালও ঢাকার মানুষ আতঙ্কে রাস্তায় বেরিয়ে আসে। ছবি : কালের কণ্ঠ

নেপালে দ্বিতীয় দিনের ভূকম্পন গতকাল রবিবার দুপুর ১টা ৯ মিনিট ৯ সেকেন্ডে আবারও ঝাঁকুনি দেয় বাংলাদেশকে। তবে এর তীব্রতা ছিল আগের দিনের চেয়ে কম, আতঙ্ক ছিল বেশি। ঢাকাসহ সারা দেশেই মানুষজন ঘর ছেড়ে বাইরে বেরিয়ে আসে। রংপুরে সেপটিক ট্যাংক খননের সময় মাটিচাপা পড়ে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া ভূকম্পনে আতঙ্কে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কুড়িগ্রামের রৌমারী ও শেরপুর সদর উপজেলায় দুজন মারা গেছেন। আহত ও অসুস্থ হওয়ার সংখ্যা প্রায় এক হাজার। পোশাক কারখানার নারী শ্রমিক ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রীরাই বেশি আতঙ্কগ্রস্ত হয়েছে। এ ছাড়া ভূকম্পনে আতঙ্কে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কুড়িগ্রামের রৌমারী ও শেরপুর সদর উপজেলায় দুজন মারা গেছেন। আহত ও অসুস্থ হওয়ার সংখ্যা প্রায় এক হাজার। পোশাক কারখানার নারী শ্রমিক ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রীরাই বেশি আতঙ্কগ্রস্ত হয়েছে। এ ছাড়া গতকাল ছয়টি জেলায় ৯টি ভবন হেলে পড়া ও ফাটল ধরার ঘটনা ঘটে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মো. মোমেনুল ইসলাম জানান, আগারগাঁওয়ের আবহাওয়া অফিস থেকে নেপালে ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল ৬১২ কিলোমিটার দূরে। অধিদপ্তর থেকে এর অবস্থান ছিল ২৭.৮০ ডিগ্রি উত্তর এবং ৮৬.১৯ ডিগ্রি পূর্বে।

আবহাওয়াবিদ সমরেন্দ্র কর্মকার জানান, গত শনিবারের তীব্র ভূমিকম্পের পর এখন যেসব ভূকম্পন হচ্ছে সেগুলো 'আফটার শক' বা পরাঘাত। এটা বড় ভূমিকম্পের পর অন্তত দুই দিন বিভিন্ন সময়ে ঘটে। আফটার শকের তীব্রতা অপেক্ষাকৃত কম থাকে। প্রথম উৎপত্তিস্থলের আশপাশেই হয়ে থাকে আফটার শকের উৎপত্তি। তিনি বলেন, এ দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ডাউকি ফল্ট থাকায় বাংলাদেশও বড় ধরনের ভূমিকম্পের ঝুঁকিতে রয়েছে।

গতকালও ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে গুলশান ১ ও ২ নম্বর গোলচত্বরের বহুতল ভবন, মার্কেট ও দোকানপাট থেকে আতঙ্কিত মানুষ নেমে আসে রাস্তায়। মহাখালী ব্র্যাক ইন সেন্টারে মাইকে প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়। কিছুক্ষণের জন্য বন্ধ হয়ে যায় উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনী প্রচারের রিকশা ও পিকআপ ভ্যানের মাইকিং।

ফায়ার সার্ভিস জানায়, গতকাল দুপুরে ভূমিকম্পের পর পরই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে অসংখ্য লোক ফোন করে আতঙ্কের কথা জানায়। অনেকে ফোন করে বলেন, তাঁদের ভবন হেলে পড়েছে বা ভবনে দেখা দিয়েছে ফাটল। অনেকে জানান ভবন দেবে যাওয়ার খবর। ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণ কক্ষের দায়িত্বরত কর্মকর্তা জানান, এসব টেলিফোন পেয়ে উদ্ধারকর্মীরা বেশ কয়েকটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এর মধ্যে পুরান ঢাকার লালবাগ, দৈনিক বাংলার মোড়, গুলশান-১, মহাখালী, মধ্য বাসাবো, বনানী, সেনবাগ, মিরপুর-১, ফতুল্লার এসবি ফ্যাশন, গাজীপুর, টঙ্গীর বোর্ডবাজার অন্যতম। কিন্তু সরেজমিনে গিয়ে তাঁরা কোনো ভবন হেলে পড়ার বা ফাটল ধরার সত্যতা পাননি।

আমাদের স্থানীয় নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদ :

রংপুর মহানগরের বিনোদপুর দর্শনা এলাকায় আবদুল ওয়াহেদ আলীর বাড়িতে সেপটিক ট্যাংকের খননের জন্য মাটি খননের সময় ভূমিকম্পে এর নিচে চাপা পড়েন পার্শ্ববর্তী ভূরারঘাট এলাকার আকতারুল ইসলাম (৩২) নামের এক শ্রমিক। পরে দমকল বাহিনী তাঁকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে। এ ছাড়া আতঙ্ক ও অসুস্থ হয়ে রংপুর মেডিক্যালে ভর্তি হয় ছয় শিক্ষার্থী ও এক গৃহিণী। কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের ডিগ্রিরচর গ্রামে আতঙ্কিত হয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন পরিনা বেগম (২৪) নামের এক গৃহবধূ। একইভাবে মারা যান শেরপুর সদর উপজেলার বেতবারি-ঘুঘুরাকান্দি ইউনিয়নের বেতমারী গ্রামের হায়দার আলী ওরফে নান্টু (৭২)। এ ছাড়া শেরপুরের নালিতাবাড়ী শহরে এক মাদ্রাসাছাত্রী ও এক শিক্ষিকা আহত হয়।

নারায়ণগঞ্জে গতকাল ছয়টি তৈরি পোশাক কারখানায় আতঙ্কে হুড়োহুড়ি করে বের হতে গিয়ে শতাধিক শ্রমিক আহত হয়েছে। একইভাবে টঙ্গীতে অন্তত ১০টি গার্মেন্টের দুই শতাধিক নারী ও পুরুষ শ্রমিক আহত হয়। হোপলন গার্মেন্ট শ্রমিকদের ভূমিকম্পের সময় বাইরে বের হতে না দিয়ে মালিকপক্ষের সিঁড়িতে তালা লাগিয়ে দেওয়ার ঘটনায় পুলিশ ও শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।

সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলা সদরে আয়শা রহমান (৮) ও জায়ফরপুর গ্রামে সালমা আক্তার নামে দুই শিশু আতঙ্কে অসুস্থ হয়ে পড়ে। রাজবাড়ী সদরে অসুস্থ হয়ে পড়ে ইতিশা, দুলি, সুমাইয়া, পুষ্পিতা, কণিকা ও মমি নামে সপ্তম ও দশম শ্রেণির ছয় ছাত্রী। সুনামগঞ্জ জেলা শহরে পাঁচ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। মানিকগঞ্জ শহরের ৮৮ নম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২০ শিক্ষার্থী ও তারাসীমা পোশাক কারখানার ২৫ শ্রমিক আহত হয়। নীলফামারীতে উত্তরা ইপিজেডসহ বিভিন্ন শিল্প-কারখানায় অন্তত ৭৫ শ্রমিক আতঙ্কে বের হতে গিয়ে আহত হয়। তাদের মধ্যে ২৫ জনকে নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরের বেগম নুরুন্নাহার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে এক ছাত্রী আহত হয়েছে। এ সময় আতঙ্ক আর হুড়োহুড়িতে ২০ ছাত্রী কমবেশি আহত হয়। গাজীপুরের সফিপুরে দুটি পোশাক কারখানার শ্রমিকদের মধ্যে ভবন ধসে পড়ার আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় হুড়োহুড়িতে শতাধিক শ্রমিক আহত হয়। এ ছাড়া সায়মা-ইব্রাহিম স্বাস্থ্যকেন্দ্রে সুচিকিৎসা না পেয়ে উত্তেজিত শ্রমিকরা যানবাহনে ভাঙচুর চালায়। রূপগঞ্জে বিভিন্ন কারখানা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আতঙ্কে হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে ২৯ জন আহত হয়েছে। গাজীপুর মহানগরে একইভাবে অর্ধশাধিক শ্রমিক আহত হয়। বগুড়ার সোনাতলায় সাত ছাত্রছাত্রী এবং সারিয়াকান্দিতে পাঁচ ছাত্রী আহত হয়। সাভারের উলাইলে আল-মুসলিম গ্রুপের গার্মেন্ট কারখানায় শতাধিক শ্রমিক আহত হয়। ভালুকায় দুটি কারখানার ভবন দেবে যাওয়া এবং ভেঙে পড়ার গুজব ছড়ালে হুড়োহুড়িতে অন্তত ২০ শ্রমিক আহত হয়েছে। এ সময় এক শ্রমিক নিহত হওয়ার গুজবে উত্তেজিত শ্রমিকরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহসড়ক অবরোধ করে ছয়টি গাড়িতে ভাঙচুর এবং একাধিক ফ্যাক্টরিতে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে।

এ ছাড়া সুনামগঞ্জ শহরের কেবি মিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মোহাম্মদপুর পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবনে ফাটল দেখা দিয়েছে। ফরিদপুর শহরের ঝিলটুলী দক্ষিণ কালীবাড়ি এলাকার কলেজ রোডে লাক্সারি প্যালেস নামের ১০ তলা একটি ভবন হেলে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী কাওসার আলী জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ভবনটি পেছনের দিকে একটু হেলে রয়েছে। বগুড়া শহরের জলেশ্বরীতলা এলাকায় পাশাপাশি দুটি ভবন হেলে পড়েছে। এর মধ্যে একটি চারতলা ও অন্যটি ছয়তলা ভবন। ছয়তলা ভবনে বগুড়া থেকে প্রকাশিত দৈনিক আজ ও আগামীকাল অফিস ছাড়াও বেশ কয়েকটি পরিবার বাস করে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন-১ এবং তৃতীয় বিজ্ঞান ভবনে ফাটল দেখা দিয়েছে। গাজীপুর মহানগরের চান্দনার ওয়্যারলেস গেট এলাকায় আটতলা ইব্রাহীম টাওয়ার হেলে পড়েছে। যশোরে শহরের দড়াটানা মোড়ে আবাসিক 'হোটেল ম্যাক্স' হেলে পড়েছে এবং ভবনটির কয়েকটি স্থানে ফাটল ধরেছে।

গেছে হুর জরুরি চিকিৎসা সাহায্য দল : গতকাল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু) পক্ষ থেকে জরুরি ওষুধ ও চিকিৎসা সরঞ্জামসহ বিশেষ টিম পাঠানো হয়েছে নেপালে। তারা এক লাখ ৭৫ হাজার মার্কিন ডলার সঙ্গে নিয়েছে, যা আগামী তিন মাসের জন্য ৪০ হাজার মানুষের চিকিৎসাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্য চাহিদা পূরনে ভূমিকা রাখবে। ভারতের দিল্লিতে অবস্থিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে গতকাল সকালে ওই টিম কাঠমাণ্ডু গেছে বলে কালের কণ্ঠকে জানিয়েছেন ওই দপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা ভিস্মিতা গুপ্তা স্মিথ।

 



সাতদিনের সেরা