kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

নবম-দশম শ্রেণি ► জীববিজ্ঞানের ৫০

১৪ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নবম-দশম শ্রেণি ► জীববিজ্ঞানের ৫০

১।        কিসের ওপর ভিত্তি করে কোষকে দুই ভাগে ভাগ করা হয়?

            উত্তর : নিউক্লিয়াসের গঠনের ওপর।

২।        কোষের দুটি প্রকারভেদ কী?

            উত্তর : আদি কোষ ও প্রকৃত কোষ।

৩।        প্রকৃত কোষের নিউক্লিয়াস কেমন থাকে?

            উত্তর : নিউক্লিয়াস সুগঠিত থাকে।

৪।        সুগঠিত নিউক্লিয়াসের নিউক্লিও বস্তু কোন আবরণ দিয়ে আবৃত থাকে?

            উত্তর : নিউক্লিয়ার ঝিল্লি।

৫।        আদি কোষের নিউক্লিয়াস কেমন থাকে?

            উত্তর : সুগঠিত থাকে না।

৬।       কোন কোষের ক্রোমোজমে শুধু DNA উপস্থিত থাকে?

            উত্তর : আদি কোষ।

৭।        আদি কোষ কোন জীবে পাওয়া যায়?

            উত্তর : নীলাভ সবুজ শৈবাল ও ব্যাকটেরিয়ায়।

৮।        কাজের ভিত্তিতে প্রকৃত কোষ কয় প্রকার?

            উত্তর : দুই প্রকার।

৯।        অধিকাংশ জীবে কী ধরনের কোষ থাকে?

            উত্তর : প্রকৃত কোষ।

১০।      প্রকৃত কোষের দুটি প্রকারভেদের নাম কী?

            উত্তর : দেহকোষ ও জননকোষ।

১১।      দেহকোষের কাজ কী?

            উত্তর : দেহকোষ বিভাজিত হয়ে দেহের বৃদ্ধি ঘটায়।

১২।      কোন পদ্ধতিতে দেহকোষ বিভাজিত হয়?

            উত্তর : মাইটোসিস পদ্ধতিতে।

১৩।      জননকোষ বিভাজিত হয় কোন পদ্ধতিতে?

            উত্তর : মিয়োসিস পদ্ধতিতে।

১৪।      পুং ও স্ত্রী জননকোষ মিলনের ফলে উৎপন্ন কোষের নাম কী?

            উত্তর : জাইগোট।

১৫।      কোষপ্রাচীর কী দিয়ে তৈরি হয়?

            উত্তর : মৃত বা জড় বস্তু দিয়ে।

১৬।     কোন কোষে কোষপ্রাচীর থাকে না?

            উত্তর : প্রাণীকোষ।

১৭।      কোষপ্রাচীরের কাজ কী?

            উত্তর : কোষের দৃঢ়তা, আকৃতি প্রদান করে।

১৮.      কোষঝিল্লির ভাঁজকে কী বলে?

            উত্তর : মাইক্রোভিলাই।

১৯। কোষঝিল্লি কী দিয়ে তৈরি?

            উত্তর : লিপিড ও প্রোটিন।

২০।     মাইটোকন্ড্রিয়া কত সালে কে আবিষ্কার করেন?

            উত্তর : ১৮৯৮ সালে, বেনডা।

২১।      মাইটোকন্ড্রিয়ার ভেতরের দিকে ভাঁজ হওয়া অংশকে কী বলে?

            উত্তর : ক্রিস্ট্রি।

২২।     মাইটোকন্ড্রিয়ার প্রধান কাজ কী?

            উত্তর : জীবের শ্বসনকার্যে সাহায্য করা।

২৪। শ্বসনে কোন গুরুত্বপূর্ণ ধাপটি মাইটোকড্রিয়ায় সম্পন্ন হয়?

            উত্তর : ক্রেবসচক্র।

২৫। কোষের পাওয়ার হাউস কাকে বলে?

            উত্তর : মাইটোকন্ড্রিয়াকে।

২৬। প্লাস্টিড কয় ধরনের হয়?

            উত্তর : তিন ধরনের।

২৭।     গাছের পাতা, কচি কাণ্ড সবুজ দেখায় কেন?

            উত্তর : ক্লোরোপ্লাস্টের জন্য।

২৮। ফুলের বিভিন্ন রং হয় কেন?

            উত্তর : ক্রোমোপ্লাস্টের কারণে।

২৯। লিউকোপ্লাস্টের প্রধান কাজ কী?

            উত্তর : খাদ্য তৈরি করা।

৩০। সরল টিস্যুর বৈশিষ্ট্য কী?

            উত্তর : প্রতিটি কোষের আকার-আকৃতি গঠন অভিন্ন।

৩১।      সরল টিস্যু কয় প্রকার?

            উত্তর : তিন প্রকার।

৩২। প্যারেনকাইমা কোষ কোথায় থাকে?

            উত্তর : উদ্ভিদে। 

৩৩।     প্যানেরকাইমায় ক্লোরোপ্লাস্ট থাকলে তাকে কী বলে?

            উত্তর : ক্লোরেনকাইমা।

৩৪। জলজ উদ্ভিদের বায়ুকুঠুরীযুক্ত প্যারেনকাইমাকে কী বলে?

            উত্তর : অ্যারেনকাইমা।

৩৫। দেহ গঠন, খাদ্য প্রস্তুত, সঞ্চয় ও পরিবহন করা কোন টুিস্যর কাজ?

            উত্তর : প্যারেনকাইমা।

৩৫। ক্লোরেনকাইমা টিস্যু উদ্ভিদের কোথায় অবস্থান করে?

            উত্তর : পাতার শিরা ও পত্রবৃন্তে।

৩৭। ক্লোরেনকাইমা টিস্যু কখন খাদ্য প্রস্তুত করতে পারে?

            উত্তর : কোষে ক্লোরোপ্লাস্ট থাকলে।

৩৮। স্ক্লোরাইড টিস্যু কোন উদ্ভিদে দেখা যায়।

            উত্তর : নগ্নবীজী ও দ্বিবীজপত্রী উদ্ভিদে।

৩৯। কোন টিস্যুকে পরিবহন টিস্যু বলা হয়?

            উত্তর : জটিল টিস্যুকে।

৪০। পাতায় তৈরি খাদ্য উদ্ভিদের দেহে কোন টিস্যু পরিবহন করে?

            উত্তর : ফ্লোয়েম টিস্যু।

৪১। কোন কোষে নিউক্লিয়াস থাকে না?

            উত্তর : সিভকোষে।

৪২। সিভকোষ কোথায় পাওয়া যায়?

            উত্তর : উদ্ভিদে।

৪৩। ফ্লোয়েম প্যারেনকাইমা কোন ধরনের উদ্ভিদে থাকে না।

            উত্তর : একবীজপত্রী উদ্ভিদে।

৪৪। পাটের আঁশ কোন ধরনের ফাইবার?

            উত্তর : বাস্ট ফাইবার।

৪৫। মানবদেহে কয় ধরনের রক্তকোষ আছে?

            উত্তর : তিন ধরনের।

৪৬। লোহিত রক্ত কণিকার কাজ কী?

            উত্তর : অক্সিজেন সরবরাহ করা।

৪৭। শ্বেত রক্তকণিকার কাজ কী?

            উত্তর : রোগ প্রতিরোধ করা।

৪৮। কেটে যাওয়া স্থান থেকে রক্তক্ষরণ বন্ধ করে কোন রক্তকণিকা?

            উত্তর : অনুচক্রিকা।

৪৯। প্রাণী টিস্যু প্রধানত কয় প্রকার?

            উত্তর : চার প্রকার।

৫০। প্রাণীদেহে অঙ্গের আবরণ হিসেবে কোন টিস্যু কাজ করে?

            উত্তর : আবরণী টিস্যু।

 

            গ্রন্থনা : নূসরাত জাহান নিশা

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা