kalerkantho

সোমবার । ২০ জানুয়ারি ২০২০। ৬ মাঘ ১৪২৬। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

নমুনা ভাইভা

‘আপনি কেন শিক্ষক হতে চান?’

মো. সাইফুর রহমান আহসানী, ১৪তম শিক্ষক নিবন্ধনে সম্মিলিত মেধাতালিকায় দ্বিতীয় এবং জেলাভিত্তিক তালিকায় প্রথম। প্রভাষক, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ, গজারিয়া কলিমউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, মুন্সীগঞ্জ

১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



‘আপনি কেন শিক্ষক হতে চান?’

আমার ১৪তম শিক্ষক নিবন্ধনের ভাইভা হয়েছিল গত বছরের (২০১৮) ৮ জুলাই। চাকরিজীবনের প্রথম ভাইভা।

ভাইভা বোর্ডে চেয়ারম্যানের পাশাপাশি দুজন সদস্য ছিলেন। আমি ভাইভা বোর্ডে প্রায় ১২ মিনিটের মতো ছিলাম। অনার্স ও মাস্টার্স করেছি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে

 

আমি : আস্সালামু আলাইকুম, আসতে পারি স্যার?

পরীক্ষক : ওয়ালাইকুম আস্সালাম, হ্যাঁ, আসুন। বসুন। ইংরেজিতে আপনার এবং আপনার পারিবারিক পরিচিতির বিবরণ দিন।

আমি : Thank you Sir, For giving me the chance to say something about myself and my family background. I am Saifur Rahman Ahsani. I am from a middle class family. My father Md. Lutfur Rahman is a teacher and  my mother Sultana Yesmin Hasina is a housewife. We are four siblings. I have completed my graduation in Islamic History and Culture in 2016 from Jagannath University and now I am pursuing my masters degree. That’s all about me and my family.

পরীক্ষক : সার্টিফিকেটগুলো দেখি...

(আমি দেখালাম)

পরীক্ষক : এ পর্যন্ত তো সব রেজাল্টই খুব ভালো। মাস্টার্সের কী অবস্থা?

আমি : আগামী সপ্তাহ থেকে মাস্টার্স সেকেন্ড সেমিস্টার ফাইনাল শুরু হবে।

পরীক্ষক : মাস্টার্স ফার্স্ট সেমিস্টারের রেজাল্ট কেমন হয়েছে?

আমি : ভালো, স্যার। বিভাগে প্রথম হয়েছি।

পরীক্ষক : আপনার নামে বাংলাদেশের একজন রাজনীতিবিদ ছিলেন। কে সে?

আমি : জি স্যার, বাংলাদেশের সাবেক অর্থমন্ত্রী এম এ সাইফুর রহমান।

পরীক্ষক : তাঁর বাড়ি কোথায়?

আমি : সিলেটে, স্যার।

পরীক্ষক : আরো সুনির্দিষ্ট করে বলুন।

আমি : সিলেট বিভাগের মৌলভীবাজার জেলায়।

পরীক্ষক : আপনার জেলা কোথায় এবং এ সম্পর্কে কিছু বলুন।

আমি : আমার জেলার নাম নারায়ণগঞ্জ, ঢাকার পাশেই ঢাকা বিভাগের একটি জেলা। প্রাচীন ও প্রসিদ্ধ নগরী সোনারগাঁ, এ জেলার মধ্যেই। সোনালি আঁশ পাটের জন্য এ জেলা প্রাচ্যের ডাণ্ডি নামে পরিচিত। শীতলক্ষ্যা নদীর পারঘেঁষা নারায়ণগঞ্জ, আয়তনে বাংলাদেশের সবচেয়ে ছোট জেলা।

পরীক্ষক : সোনারগাঁ প্রথম কখন এবং কার সময়ে স্বাধীন হয়?

আমি : ১৩৩৮ সালে ফখরুদ্দীন মোবারক শাহর আমলে।

পরীক্ষক : মুক্তিযুদ্ধের সময় নারায়ণগঞ্জ কত নম্বর সেক্টরের অধীনে ছিল।

আমি : নারায়ণগঞ্জ ২ নম্বর সেক্টরের অধীনে ছিল।

পরীক্ষক : সেক্টর কামান্ডার কে কে ছিলেন?

আমি : মেজর কে এম খালেদ মোশাররফ (এপ্রিল-সেপ্টেম্বর) এবং মেজর এ টি এম হায়দার  (সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বর)

পরীক্ষক : হিমারীয় ও মুদারীয় কারা?

আমি : দক্ষিণ আরবের ইয়েমেন অঞ্চলের অধিবাসীদের হিমারীয় এবং উত্তর আরবের অধিবাসীদের মুদারীয় বলা হয়।

পরীক্ষক : কোনটিকে মরুভূমির জাহাজ বলা হয় এবং কেন বলা হয়?

আমি : উটকে মরুভূমির জাহাজ বলা হয়। কারণ প্রাচীন আরবরা বিশাল মরুভূমিতে উটকে একমাত্র বাহন হিসেবে ব্যবহার করত।

পরীক্ষক : কার শাসনামলে মুসলমানরা সবচেয়ে বেশি সাম্রাজ্য বিস্তার করেছিল?

আমি : উমাইয়া খলিফা আল-ওয়ালিদের সময় মুসলমানরা সবচেয়ে বেশি সাম্রাজ্য বিস্তার করেছিল।

পরীক্ষক : ওই সাম্রাজ্যের অধীনে থাকা ভূখণ্ডের মধ্যে বর্তমান কয়েকটি রাষ্ট্রের নাম বলুন।

আমি : ইরান, আফগানিস্তান, ভারত, স্পেন, উজবেকিস্তান ইত্যাদি।

পরীক্ষক : আফ্রিকার কিছু দেশও ছিল...

আমি : স্যরি স্যার, এই মুহূর্তে মনে করতে পারছি না।

পরীক্ষক : বেদুইন কারা?

আমি : আরব অধিবাসীদের মধ্যে যারা অস্থায়ীভাবে মরুভূমির বিভিন্ন স্থানে বসবাস করে, তারাই বেদুইন। বেদুইনরা আরবের যাযাবর সম্প্রদায়।

পরীক্ষক : তাদের পেশা কী ছিল?

আমি : দস্যুবৃত্তি, কৃষি ইত্যাদি (‘কৃষি’ হবে না)।

পরীক্ষক : মরুভূমিতে থেকে তারা কিভাবে কৃষিকাজ করত?

আমি : স্যরি স্যার, লুটতরাজের পাশাপাশি তারা পশুপালন করত।

পরীক্ষক : আচ্ছা, আপনি কেন শিক্ষক হতে চান?

আমি : আসলে স্যার, প্রত্যেক মানুষ ছোটবেলা থেকেই কিছু একটা হওয়ার স্বপ্ন দেখে। অনেক সময় এর পেছনে পরিবারের প্রভাব থাকে। পেশায় আমার বাবাও একজন শিক্ষক। তা ছাড়া আমার মা ও নানির ইচ্ছা, আমি যেন আদর্শ শিক্ষক হই। এ ছাড়া স্কুলে থাকতে আমার হাতে সবার আগে যিনি বই তুলে দিতেন, তিনি আমার নানা; তিনিও শিক্ষক। তাঁদের আদর্শ থেকেই আমি শিক্ষক হওয়ার অনুপ্রেরণা পাই।

পরীক্ষক : ধন্যবাদ, সাইফুর রহমান। আপনি এবার আসুন।

আমি : ধন্যবাদ স্যার, আস্সালামু আলাইকুম।

শ্রুত লিখন : মোহাম্মদ মুজাহিদ

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা