kalerkantho

শনিবার । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৫ আগস্ট ২০২০ । ২৪ জিলহজ ১৪৪১

চীনের সঙ্গে সংঘাত বাড়িয়ে দালাইলামাকে স্বাগত জানাল তাইওয়ান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ জুলাই, ২০২০ ১৮:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চীনের সঙ্গে সংঘাত বাড়িয়ে দালাইলামাকে স্বাগত জানাল তাইওয়ান

চীনের সঙ্গে সংঘাত আরো বাড়িয়ে তিব্বতের আধ্যাত্মিক নেতা দালাইলামাকে স্বাগত জানিয়েছে তাইওয়ান৷ সোমবার তাইওয়ানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এমন ঘোষণা করা হয়েছে৷ স্বভাবতই তাইওয়ানের এই সিদ্ধান্তে প্রবলভাবে ক্ষুব্ধ হবে বেইজিং৷

২০০৯ সালে শেষবার তাইওয়ানে গিয়েছিলেন দালাইলামা৷ কিন্তু বর্তমান প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েনের আমলে নির্বাসিত এই ধর্মগুরু দ্বীপটিতে যাননি। রবিবার নিজের জন্মদিনে দালাইলামা তাইওয়ানে তার সমর্থকদের উদ্দেশে বলেছিলেন, তিনি আবারো তাইওয়ানে যেতে ইচ্ছুক৷ এর পরই দালাইলামাকে আমন্ত্রণ জানালো তাইওয়ান সরকার।৷

তাইওয়ানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জোয়ানে ওউ জানিয়েছেন, এখনো দালাইলামার পক্ষে সরকারিভাবে কোনো আবেদন তারা পাননি৷ কিন্তু দালাইলামা তাইওয়ানে আসার আবেদন জানালে নিয়ম অনুযায়ী পদক্ষেপ নেওয়া হবে৷ তিনি বলেন, পারস্পরিক সম্মান এবং সম্মতির ভিত্তিতে তারা বৌদ্ধ ধর্মের প্রচার করার জন্য দালাইলামাকে তাইওয়ানে স্বাগত জানাতে ইচ্ছুক৷

তাইওয়ানের বর্তমান নারী প্রেসিডেন্টের ভূমিকা নিয়ে যথেষ্ট সন্দিহান চীন৷ তাইওয়ানকে নিজেদের অংশ বলে বহু দিন ধরেই দাবি করে আসছে চীন৷ বেইজিংয়ের মতে, তাইওয়ানের বর্তমান প্রেসিডেন্ট স্বশাসিত এই দ্বীপটিকে পূর্ণ স্বাধীনতা পাইয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন৷ তাইওয়ানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অবশ্য নিজেদের একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবেই দাবি করেছেন৷ তার দাবি, গণপ্রজাতান্ত্রিক চীন নামে তাদের দেশের নাম নথিভুক্ত রয়েছে৷

কয়েকদিন আগেই হংকংয়ের বাসিন্দাদের তাইওয়ানে এসে থাকার জন্য সরকারি ভাবে প্রস্তাব দিয়েছে তাইপে৷ চীন হংকংয়ের জন্য নতুন আইন পাশ করার পরই এই প্রস্তাব দিয়েছে তাইওয়ান৷ এর পর থেকেই বেইজিংয়ের সঙ্গে তাইপের সম্পর্ক আরো খারাপ হয়েছে৷ প্রকাশ্যেই তাইওয়ানের এই প্রস্তাবের সমালোচনা করেছে চীন৷

সূত্র- নিউজ ১৮।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা