kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৯ চৈত্র ১৪২৬। ২ এপ্রিল ২০২০। ৭ শাবান ১৪৪১

যুদ্ধাপরাধী আবদুস সুবহানের মৃত্যুতে পাকিস্তান জামায়াত আমিরের মায়াকান্না

সরকারেরও সমালোচনা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২০:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যুদ্ধাপরাধী আবদুস সুবহানের মৃত্যুতে পাকিস্তান জামায়াত আমিরের মায়াকান্না

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ফাঁসির দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির মাওলানা আবদুস সুবহান চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন গত ১৪ ফেব্রুয়ারি। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। মুক্তিযুদ্ধের সময় জামায়াত নেতা মাওলনা আবদুস সুবহানের নেতৃত্বে রাজাকার, আল বদর ও আল-শামস বাহিনী পাবনায় হত্যা, অপহরণ ও নির্যাতনের মতো মানবতাবিরোধী অপরাধ ঘটায়। 

মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২-এর চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ২০১৫ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি আসামি আব্দুস সোবহানকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন। আবদুস সোবহান জামায়াতের শীর্ষস্থানীয় নেতা ছিলেন তাই মৃত্যুদণ্ডাদেশ নিয়ে সমালোচনা করেছেন পাকিস্তানি জামায়াতে ইসলামীর আমির সিরাজুল হক। 

সিরাজুল হক মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের অন্যান্য নেতাদের দণ্ড নিয়েও সমালোচনা করেছেন। বাংলাদেশের রাজাকারদের জন্যে মায়াকান্না করছেন পাকিস্তানি জামায়াতে ইসলামীর এই আমির। পাশাপাশি বর্তমান সরাকারেরও সামালোচনা করেছেন। 

রাজাকারদের মৃত্যুদণ্ডাদেশে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর নীরবতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিপক্ষে থাকা বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ‘সহোদর’ পাকিস্তানি জামায়াতে ইসলামীর আমির। সিরাজুল হক জানতে চান, বাংলাদেশি জামায়াতে ইসলামীর নেতাদের ফাঁসি দেওয়ার বিষয়ে চুপ কেন বিশ্বের মানবাধিকার সংস্থাগুলো? 

গতকাল বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের পাঞ্জাবের মনসুরায় বাংলাদেশি জামায়াতে ইসলামীর নেতা মাওলনা আব্দুস সোবহানের মৃত্যু নিয়ে দেওয়া এক শোকবার্তায় তিনি এই প্রশ্ন তোলেন। ১৯৭১ সালের মানবতাবিরোধী অপরাধ, গণহত্যা ও যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে নেতাদের মধ্যে আব্দুস সোবহান ছিলেন অন্যতম। তবে পাকিস্তানি জামায়াতে ইসলামীর আমির সিরাজুল হকের দাবি, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার রাজনৈতিকভাবে হয়রানি ও উদ্দেশ্যমূলক। তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এবং পাকিস্তান সরকারকে এসব বিচার বন্ধ করার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য আহ্বান জানান।

পাকিস্তানি জামায়াতে ইসলামীর আমির সিরাজুল হকের দাবি, জামায়াতে ইসলামীই একমাত্র দল যা কি-না সাধরাণ জনগণের জন্য কাজ করে। আর অন্যান্য দলগুলো ব্যক্তিস্বার্থে কাজ করে। বর্তমান সরকার সবচেয়ে খারাপ কাজ করছে। আর মূলধারার বিরোধী দলগুলো নীরবই থাকছে।

সূত্র: দ্য নিউজ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা