kalerkantho

অ্যামাজনের আগুনে পুরো পৃথিবীতে বিপর্যয় নেমে আসতে পারে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ আগস্ট, ২০১৯ ১৯:২৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অ্যামাজনের আগুনে পুরো পৃথিবীতে বিপর্যয় নেমে আসতে পারে

তিন সপ্তাহ ধরে জ্বলছে পৃথিবীর ফুসফুসখ্যাত ব্রাজিলের অ্যামাজন বনাঞ্চল। নতুন করে দেড় হাজারের বেশি স্থানে আগুন ছড়িয়ে পড়েছে। আগুনের ভয়াবহতা মাত্রাতিরিক্ত হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ফ্রান্সে অনুষ্ঠেয় জি সেভেন সম্মেলনে অংশ নেয়া ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁক্রোসহ বিশ্বনেতারা। তারা ব্রাজিলের প্রেসিডেন্টের নিষ্ক্রিয়তাকে দায়ী করে দ্রুত পদক্ষেপে নেয়ার আহ্বান জানান। আগুন নেভানোর কাজে ৪৪ হাজার সেনা মোতায়েন করছে ব্রাজিল প্রশাসন।

৩০ লাখেরও বেশি প্রজাতির উদ্ভিদ ও প্রাণীর আশ্রয়স্থল এবং পৃথিবীর ফুসফুস খ্যাত এই জলাবনটিতে এরই মধ্যে নয় হাজার দাবানলের সন্ধান পাওয়া গেছে। আগুন ছড়িয়ে শনিবার নতুন করে আরও দেড় হাজারের বেশি দাবানলের সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রাজিলের জাতীয় মহাকাশ গবেষণাকারী সংস্থা।

দাবানল নিয়ন্ত্রণে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জেইর বলসোনারো সেনা মোতায়েনের ঘোষণার পর শনিবার দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানান, অ্যামাজনে ৪৪ হাজার সেনা পাঠানো হচ্ছে। সেনাবাহিনীর সহায়তা চেয়ে আবেদন করেছে দুর্গত ৫ অঞ্চলের স্থানীয় সরকার।

এদিকে, অ্যামাজনের দাবানল নিয়ে উদ্বিগ্ন বিশ্ব সম্প্রদায়। ফ্রান্সে অনুষ্ঠেয় জি সেভেন সম্মেলনের প্রধান আলোচ্য বিষয়গুলোর শীর্ষে রয়েছে অ্যামাজনের দাবানল এবং বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়টি। সম্মেলনে অংশ নিতে শনিবার ফ্রান্সের হেনদায়ে শহরে পৌঁছান ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডু, ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁক্রোসহ বিভিন্ন দেশের শীর্ষ নেতারা। এসময় সাংবাদিকদের দেয়া বক্তব্যে অ্যামাজনকে রক্ষায় সোচ্চার ছিলেন প্রত্যেকেই।

এদিকে, অ্যামাজনকে বাঁচাতে কার্যকরী উদ্যোগের অভাবের অভিযোগ তুলে শনিবারও ব্রাজিলের সাও পাওলোও রিও ডি জেনিরো শহরে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়। কলম্বিয়া, মেক্সিকো, আর্জেন্টিনাসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশেও বন সুরক্ষার দাবিতে আন্দোলনে নামেন পরিবেশবাদীরা।

বিশ্বের দীর্ঘতম জঙ্গল অ্যামাজনের আয়তন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আয়তনের প্রায় অর্ধেক। বায়ুমণ্ডলে থাকা অক্সিজেনের ২০ শতাংশেরই উৎপত্তি এ বনে। প্রতি বছর ২০০ মেট্রিক টন কার্বন ডাই অক্সাইড শোষণ করে অ্যামাজন। ভয়াবহ দাবানলে পৃথিবীর ফুসফুস খ্যাত চিরসবুজ বন, কার্যক্ষমতা হারাবে। যার ফলে পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলও ক্ষতিগ্রস্ত হবে এবং পুরো পৃথিবীজুড়েই বিপর্যয় নেমে আসবে বলে শঙ্কা জানিয়েছেন গবেষকরা।

সূত্র: বিজনেস ইনসাইডার

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা