kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়েছে স্ত্রী, বিদ্যুতের তার বিছিয়ে তিন আত্মীয়তে হত্যা করল স্বামী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ জুলাই, ২০১৯ ২০:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়েছে স্ত্রী, বিদ্যুতের তার বিছিয়ে তিন আত্মীয়তে হত্যা করল স্বামী

স্ত্রীর পরকীয়া কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছিলেন না স্বামী। এরই মধ্যেই পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে গত মঙ্গলবার রাতে পালিয়ে যায় স্ত্রী। এরপর ক্ষোভে স্ত্রীর প্রেমিকের তিন আত্মীয়কে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে রবিউল মিস্ত্রি নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। 

ভারতের দক্ষিণ ২৪ পরগনার মহেশতলার আক্রা এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ এরই মধ্যে তদন্ত শুরু করেছে।

পুলিশ বলছে, রবিউলের বাড়ি মুর্শিদাবাদে। পেশায় রাজমিস্ত্রি রবিউল কর্মসূত্রে স্ত্রীকে নিয়ে আক্রায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন। সম্প্রতি তিনি জানতে পারেন, স্ত্রী ফরিদা বিবি এলাকারই এক যুবকের সঙ্গে পরকীয় করছেন। সেই যুবকের নাম রোহিত। 

মঙ্গলবার রাতে রোহিতের সঙ্গে ফরিদা পালিয়ে যান। এর পর রোহিতের ভগ্নিপতি মুহাম্মদ রহমতের বাড়ির চারপাশে বিদ্যুতের তার বিছিয়ে রাখেন রবিউল। এলাকাবাসীর অভিযোগ, সেই তারে জড়িয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে প্রাণ গেছে তিন জনের।

এলাকাবাসী জানিয়েছে, রহমত যে বাসায় থাকতেন তার চারিধারে বুধবার রাতে বিদ্যুতের তার বিছিয়ে রেখেছিলেন অভিযুক্ত রবিউল মিস্ত্রি। এর পর গভীর রাতে ওই বাড়ির উঠোনে থাকা কাপড় এবং আশপাশের ঝোপে আগুন ধরিয়ে দেন তিনি। 

আগুন আতঙ্কে বাড়ির বাইরে বের হতে গিয়ে বিপত্তি ঘটে। বিছিয়ে রাখা তারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যান তিন জন। পুলিশ বলছে, নিহতদের নাম মুহাম্মদ রহমত, সুলতান আহমেদ এবং শেখ জাকির হুসেন। 

স্থানীয় বাসিন্দা নাসির মণ্ডল বলেন, রবিউল এভাবে প্রতিশোধ নেবে বুঝতেও পারিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, বিদ্যুতায়িত হয়ে ছয়জন আহত হন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনজনকে চিত্তরঞ্জন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তাদের বাঁচানো যায়নি।

স্থানীয়দের দাবি, রহমতের বাড়ির পাশেই একটি সামাজিক অনুষ্ঠান ছিল। রাত ২টা নাগাদ আগুন দেখতে পেয়ে পাড়ার বাসিন্দারা সেখানে চলে আসেন। রহমতের বাড়িক সবাই ঘুম থেকে ওঠেন চিৎকার শুনে। তারা বাড়ির বাইরে বের হতে গেলে দুর্ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনার পর রবিউলকে বেধড়ক মারধর করা হয়। তিনি আপাতত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। কোন জায়গা থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ নেয়া হয়েছিল, সেটাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। 

পুলিশ বলছে, দুর্ঘটনাস্থল থেকে ৫০ মিটার দূরে অভিযুক্তের বাড়ি। সেখান থেকেই বিদ্যুৎ সংযোগ নেয়া হয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা