kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২ ডিসেম্বর ২০২১। ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

লাল শাপলায় রাঙা পুকুর, বকের আনাগোনা

তৌফিকুর রহমান, নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি    

১৬ অক্টোবর, ২০২১ ১২:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লাল শাপলায় রাঙা পুকুর, বকের আনাগোনা

শাপলা বাংলাদেশের জাতীয় ফুল। লাল, সাদা, নীলসহ বিভিন্ন ধরনের শাপলা রয়েছে। সৌন্দর্য বর্ধনের পাশাপাশি সবজি হিসেবে এর জুড়ি মেলা ভার। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বিল ও কৃষি জমিতে শুধুমাত্র সাদা শাপলা চোখে পড়ে৷সম্প্রতি সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য উপজেলার শ্যামগ্রাম মোহিনী কিশোর স্কুল অ্যান্ড কলেজের পুকুরে লাল শাপলা ফুল চাষ করা হয়েছে। সারা পুকুর শাপলায় সয়লাভ। এ যেন শাপলা ফুলের লাল গালিচা!
 
প্রথম দেখায় মুখ থেকে অস্ফুটে বেরিয়ে আসবে 'সুন্দর, অপরুপ!' অজান্তেই মনের গহীনে বেজে ওঠে, 'তুমি সুতোয় বেঁধেছ শাপলার ফুল, নাকি তোমার মন...'।

শীতের আগমন না ঘটলেও শ্যামগ্রাম মোহিনী কিশোর স্কুল অ্যান্ড কলেজের পুকুর সেজেছে লাল শাপলায়। এর সাথে সাদা বকের আনাগোনা পুকুরের সৌন্দর্যে যুক্ত হয়েছে নতুন মাত্রা। এ যেন প্রকৃতির অপরুপ কারুকাজ। সূযের্র আলোটা কড়া হওয়ার সাথে সাথে শাপলা তার আপন সৌন্দর্যকে গুটিয়ে নেয়। তবে সূর্যোদয় থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত লাল শাপলার সৌন্দর্য দৃশ্যমান থাকে।

লাল শাপলার পুকুর দেখতে উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসছেন প্রকৃতিপ্রেমীরা। নান্দনিক সৌন্দর্যে বিমোহিত হন দর্শনার্থীরা। অনেকেই ব্যস্ত হয়ে পড়েন ছবি তোলায়, কেউবা আবার শ্যামগ্রাম মোহিনী কিশোর স্কুল অ্যান্ড কলেজের পুকুরের উত্তর পাশের ঘাটে বসে পরিবার পরিজন কিংবা বন্ধু-বান্ধবের সাথে আড্ডায় মেতে ওঠেন। 

জানা যায়, চার বছর পূর্বে প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার খলিলুর রহমান গোপালগঞ্জ থেকে এ শাপলার বীজ নিয়ে এসে পুকুর রোপন করেন ৷ তারপর থেকে নবীনগরের একমাত্র লাল শাপলার পুকুর নামে হিসেবে এটি সুপরিচিতি পায়। তাছাড়া পুকুরটির চারপাশে বিভিন্ন প্রজাতির বিদেশি গাছ ও ফুলের বাগান এর সৌন্দর্যকে বাড়িয়ে দিয়েছে বহুগুণ। লোকজন গাছের নিবিড় ছায়ায় দাঁড়িয়ে লাল শাপলার অপরুপ সৌন্দর্য উপভোগ করেন।  

শাপলা ফুলের সৌন্দর্য দেখতে আসা আশরাফুল আলম বাবু বলেন, লাল শাপলার নয়নাভিরাম দৃশ্য দেখার জন্য আমি সুযোগ পেলেই এখানে আসি। সকাল ৮টা পর্যন্ত শাপলাগুলো পূর্ণ ফুটন্ত অবস্থায় থাকে। আর তখন শাপলার পাশাপাশি সাদা বকের আনাগোনা দেখে আমি মুগ্ধ হয়ে যাই।   

এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোস্তাক আহাম্মদ বলেন, প্রতিদিনই বিভিন্ন এলাকার লোকজন শাপলা ফুল দেখার জন্য এখানে আসেন৷ পুকুরটিতে লাল শাপলার পাশাপাশি আমরা পদ্মফুলও চাষ করবো।



সাতদিনের সেরা