kalerkantho

সোমবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭। ১ মার্চ ২০২১। ১৬ রজব ১৪৪২

একতরফা প্রচারণা!

রফিকুল ইসলাম, বরিশাল    

২৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ১০:৩২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



একতরফা প্রচারণা!

প্রচারণা চালাচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী লোকমান হোসেন ডাকুয়া। ছবি: কালের কণ্ঠ।

আছে ভূরি ভূরি নৌকা। রয়েছে পানির বোতল। আরো আছে উটপাখি, ডালিম আরো কত কী! এসবের মাঝে ছিটেফোঁটা ধানের শীষ। মাঝেমধ্যে রাস্তার ফাঁক গলে উঁকি দিচ্ছে হাত পাখা। সাদা কাগজে এই প্রতীকগুলো ঝুলছে বাকেরগঞ্জ পৌরসভার অলিগলিতে।

পোস্টারের উপস্থিতিই বলে দিচ্ছে, নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর একতরফা প্রচারণা কতটা এগিয়ে। এ তো গেল পোস্টারে প্রচারণা। বাস্তবের অবস্থা আরো ভয়াবহ। প্রতিদিনই ওয়ার্ডে উঠান বৈঠক করছেন নৌকার প্রার্থী একাধিকবারের নির্বাচিত মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়া। অপরদিকে ধানের শীষের  পক্ষে হয়েছে মাত্র একটি উঠান বৈঠক। এমন পরিস্থিতিই বলে দিচ্ছে, ভোটের হিসেবে কতটা এগিয়ে নৌকার প্রার্থী।

আগামী ২৮ ডিসেম্বর বাকেরগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন। এতে  মেয়র পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়া নৌকা, পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম মনিরুজ্জামান ধানের শীষ এবং মাওলানা খলিলুর রহমান হাতপাখা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এ ছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৯ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে আরো ৯ জনসহ মোট ৩৮ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায়। ইতোমধ্যে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন খন্দকার জিয়্রা রহমান রিপন। 

সরেজ‌মিনে ভোটারদের সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা বলছেন, আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ও পৌরসভার বর্তমান মেয়র লোকমান হো‌সেন ডাকুয়া তফসিল ঘোষণার আগে থেকেই নির্বাচনে প্রচারণা চালাচ্ছেন। তিনি অন্য দুই প্রার্থীর চেয়ে শক্ত অবস্থানে আছেন। তাই নির্বাচনে প্রধান আকর্ষণ মেয়র পদটি নিয়ে ভোটারদের মধ্যে খুব একটা আগ্রহ নেই।  পৌর শহরের বিভিন্ন বাজার আর চায়ের দোকানের আড্ডায় ভোটাররা কাউন্সিলর প্রার্থীদের নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করছেন।

ভোটাররা বলছেন, লোকমান হোসেন ডাকুয়া নির্বাচনী মাঠে ভালো অবস্থানে থাকায় ভোটাররা অন্য প্রার্থীদের দিকে ঝুঁকছেন না। বিএনপি ও ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী নির্বাচনী মাঠ গরম করতে না পারায় ভোটারদের কাছে নির্বাচনে মেয়র পদের ফল কিছুটা অনুমেয়। তাই ভোটাররা মেয়র প্রার্থীর চেয়ে কাউন্সিলর প্রার্থীর ব্যাপারে বেশি আগ্রহী।

লোকমান হোসেন ডাকুয়া বলেন, 'বাকেরগঞ্জ পৌরসভাকে তৃতীয় শ্রেণি থেকে প্রথম শ্রেণিতে উন্নীত করেছি। রাস্তা আর নালা তৈরি করেছি। তাই ভোটাররা আমাকেই মেয়র হিসেবে দেখতে চায়। প্রতিটি ওয়ার্ডে উঠান বৈঠকে ভোটারদের উপস্থিতিই বলে দিচ্ছে ভোটররা নৌকাকে কতটা ভালোবাসে। তা ছাড়া অসমাপ্ত কাজ সমাপ্তের জন্য ভোটাররা নৌকাকে বিজয়ী করবে।

বিএনপি মনোনীত প্রার্থীর ব্যাপারে ডাকুয়া বলেন, 'ধানের শীষের প্রার্থীকে আমার উঠান বৈঠকে এসে একমঞ্চে ভোট চাওয়ার জন্য বলেছি। কিন্তু তিনি ধানের শীষের পক্ষে তেমন একটা প্রচারণায় করছেন না।'

বিএনপি মনোনীত প্রার্থী এস এম মনিরুজ্জামান বলেন, 'একাধিকবারের নির্বাচিত মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়া রাজনৈতিকভাবেই শক্ত অবস্থানে রয়েছেন। জেলা বিএনপির সভাপতি এবায়দুল হক চান এবং সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম শাহীন একদিন নির্বাচনী প্রচারণায় এসেছিলেন। এ ছাড়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আবুল হোসেন প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন। তবে সংগঠনের ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীদের অধিকাংশ প্রচারণায় থাকছেন না।'  

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা