kalerkantho

অ্যাশেজ শুরু আজ

ইংল্যান্ডের উৎসব মাটি করবে অস্ট্রেলিয়া!

১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ইংল্যান্ডের উৎসব মাটি করবে অস্ট্রেলিয়া!

‘ডাবল’-এর স্বপ্নে এই প্রথম অ্যাশেজের লড়াইয়ে নামছে ইংল্যান্ড। প্রথমবারের মতো বিশ্বজয়ের সঙ্গে অ্যাশেজ জেতার সুযোগও যে জো রুটদের সামনে। ৫০ ওভারের ক্রিকেটের চূড়া যদি হয় বিশ্বকাপ তবে ইতিহাসের সেই শুরু থেকেই টেস্টের শেষ কথা এই অ্যাশেজ। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার এই লড়াই নিয়ে কত মিথ, কত গল্প, রোমাঞ্চ! সিরিজের নাম আর ইতিহাসের পরতে পরতে যা লেখা।

তবে নিজেদের মাঠে এমন উপলক্ষ আর কখনো পায়নি ইংল্যান্ড। বিশ্বচ্যাম্পিয়নের মুকুট পরে চিরমর্যাদার এই লড়াইয়ে তারা এই প্রথম। অসাধারণ একটা মৌসুম দ্বিমুকুট জয়ে শেষ করার চেয়ে মধুর আর কী হতে পারে ইংলিশদের জন্য! আরো একটা কথা বলা হচ্ছে, তা হলো বিশ্বকাপ জয়ে ইংলিশদের যেভাবে ক্রিকেটে ফেরানো গেছে, অ্যাশেজ পুনরুদ্ধারে সেটা ধরেও রাখার চ্যালেঞ্জ এখন রুটদের সামনে। তাই ইংল্যান্ডের জন্য ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ আজ অ্যাজবাস্টনে শুরু হতে যাওয়া পাঁচ ম্যাচের এ সিরিজ। অস্ট্রেলিয়ার জন্যও কি নয়? বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে বিপর্যস্ত অজিরা এবার এই ইংল্যান্ডেই যে বিশ্বকাপের মুকুট হারিয়েছে। বিখ্যাত ‘ভস্ম’ নিয়ে ফিরতে পারলে অন্তত মুখ রক্ষা হয় টিম পাইন, স্টিভেন স্মিথদের। ইংল্যান্ডের মাটিতে তারা অ্যাশেজ জিততে পারে না, তা-ও ১৯ বছর হয়ে গেল। সেই ব্যর্থতা থেকে বেরিয়ে আসার চ্যালেঞ্জও এখন অজিদের সামনে।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বল টেম্পারিংয়ের কারণে নিষিদ্ধ হওয়া স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার ও ক্যামেরন ব্যানক্রফট এই প্রথম আবার একসঙ্গে হচ্ছেন অ্যাশেজে। বিশ্বকাপে দুয়ো শুনে হয়তো অভ্যস্ত হয়ে গেছেন স্মিথ, ওয়ার্নার। ব্যানক্রফটের সেই পরীক্ষা আজ থেকে অ্যাজবাস্টনে। কাউন্টি ক্রিকেটে ডারহামের অধিনায়কত্ব করা এই ব্যাটসম্যান অবশ্য ইংলিশ কন্ডিশনের সঙ্গে যথেষ্টই অভ্যস্ত। ওদিকে বিশ্বকাপ শেষ করে ইংল্যান্ডের অ্যাশেজের প্রস্তুতিটা ঠিক মনমতো হয়নি। আয়াল্যান্ডের বিপক্ষে চার দিনের ম্যাচটি জিতলেও প্রথম ইনিংসে মাত্র ৮৫ রানে অল আউট হওয়া টপ অর্ডার নিয়ে ভাবাচ্ছে জো রুটকে। সারের অনভিজ্ঞ দুই ওপেনার রোরি বার্নস ও জেসন রয়কে কাভার করতে আবার তিন নম্বর পজিশনে ফিরতে চাইছেন ইংলিশ অধিনায়ক। চোট কাটিয়ে ফেরা অভিজ্ঞ জেমস অ্যান্ডারসন বোলিং ওপেন করবেন। ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি প্রথম ফাস্ট বোলার হিসেবে ৬০০ উইকেটের মাইলফলক ছোঁয়ার লক্ষ্য নিয়েই নামছেন এই সিরিজে। দেখার মতো হতো তরুণ জোফরা আর্চারের সঙ্গে তাঁর জুটি। শেষ পর্যন্ত অবশ্য ক্যারিবিয়ান বংশোদ্ভূত আর্চারকে রাখা হয়নি প্রথম টেস্টে। অ্যান্ডারসন, স্টুয়ার্ট ব্রডের সঙ্গে তৃতীয় পেসার হিসেবে খেলছেন ক্রিস ওকস। ওকস বিশ্বকাপ জয়ের অনুভূতি নিয়ে নামলেও অ্যান্ডারসন, ব্রডের কাছে তা অজানা। তবে দল হিসেবে সেই ‘স্পিরিট’টা ধরে রেখেই এগোনোর কথা বলেছেন অ্যান্ডারসন, ‘আমাদের অনেকেরই এই অ্যাশেজ দিয়ে নতুন মৌসুম শুরু হচ্ছে। কিন্তু দল হিসেবে আমরা একই ছন্দ ধরে এগোতে চাই।’

অস্ট্রেলিয়া জেমস প্যাটিনসন ও প্যাট কামিন্সসহ চার পেসার নিয়েই নামছে। ইংলিশ কন্ডিশনে এই পেসাররা সুইংয়ের খেলায় যেমন মাতবেন, তেমনি ব্যাটসম্যানদেরও সুযোগ থাকবে রান তোলার। শেষ পর্যন্ত বেন স্টোকসের মতো কোনো অলরাউন্ডারই হয়তো পার্থক্য গড়ে দেবেন। এএফপি, টেলিগ্রাফ

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা