kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৭ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৭ সফর ১৪৪১       

২২২ রানে শেষ দক্ষিণ আফ্রিকা

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



২২২ রানে শেষ দক্ষিণ আফ্রিকা

রাজিথার ৩ উইকেট

ডারবানে অপ্রত্যাশিত হারের শোক যেন এখনো কাটিয়ে উঠতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। পোর্ট এলিজাবেথে সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়েও যে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়েছে প্রোটিয়াদের ব্যাটিং লাইন। শ্রীলঙ্কার দুই পেসার- বিশ্ব ফার্নান্ডো এবং কাসুন রাজিথার সঙ্গে ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার ঘূর্ণিবিষে ২২২ রানে গুঁড়িয়ে গেছে ফাফ দু প্লেসিসের দল। দলের সাত ব্যাটসম্যানই আউট হয়েছেন এক অঙ্কের স্কোরে। সর্বোচ্চ ৮৬ রান কুইন্টন ডি ককের, এইডেন মারক্রাম করেছেন ৬০ রান। সিরিজ অন্তত সমতায় শেষ করতে হলেও এ ম্যাচে জিততেই হবে দক্ষিণ আফ্রিকাকে।

সেই সেন্ট জর্জেস পার্কে প্রোটিয়াদের শুরুটা হয়েছে দুঃস্বপ্নের মতো। ১৫ রানের মধ্যে তারা হারিয়ে বসে টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান—ডিন এলগার, হাশিম আমলা এবং টেম্বা বাভুমাকে। বিশ্ব ফার্নান্ডো পর পর দুই বলে ফেরান এলগার এবং আমলাকে। পরের ওভারে শূন্য রানে রান আউট বাভুমাও। বিপদটা তাদের আরো বাড়ে দলীয় ৭৩ রানে শ্রীলঙ্কা অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে প্রতিপক্ষ অধিনায়ক ফাফ দু প্লেসিসকে ফেরালে । তবে এ বিপর্যয় সামলে জমে উঠেছিল এইডেন মারক্রাম এবং কুইন্টন ডি ককের জুটিটা। কিন্তু ভয়ংকর এক স্পেলে কাসুন রাজিথা টানা তিন ওভারে তিন উইকেট তুলে নিয়ে ব্যাটিং মেরুদণ্ডটাই ভেঙে দেন প্রোটিয়াদের। ১১৬ বলে ৯ বাউন্ডারিতে ৬০ রান করা মারক্রামকে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে ফেলার পর ভিয়ান মুলডার এবং কেশম মহারাজকেও আউট করে ম্যাচে শ্রীলঙ্কার আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করে দেন এই পেসার। ১৫৭ রানে পড়ে সপ্তম উইকেট।

প্রোটিয়াদের অবস্থা হয়তো আরো নাজুক হতো চা বিরতির আগে আগে যদি কুইন্টন ডি কক এবং কাগিসো রাবাদার ক্যাচ না ফেলতেন শ্রীলঙ্কার ফিল্ডাররা। এ জীবনটা কাজে লাগিয়ে ডি কক এবং রাবাদা অষ্টম উইকেটে ৫৯ রানের জুটি গড়লে ২০০ পেরিয়েছে স্বাগতিকদের স্কোর। ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৬ রান করা ডি ককের স্টাম্প উড়িয়ে জুটিটা ভেঙেছেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। ৮৭ বলে ১২ রানে হাফসেঞ্চুরির ইনিংসটি সাজিয়েছেন ডি কক। পাঁচ রান পরে কাগিসো রাবাদাকেও ফিরিয়েছেন শ্রীলঙ্কান এই স্পিনার। আর ডুয়ানে অলিভিয়েরকে নিরোশান ডিকেলার ক্যাচ বানিয়ে প্রোটিয়া ইনিংসের ইতি টেনেছেন শুরুতে গতির ঝড়ে স্বাগতিক ইনিংসের টপ অর্ডার গুঁড়িয়ে দেওয়া বিশ্ব ফার্নান্ডো। ৬২ রানে ৩ উইকেট এই পেসারের, আর ৬৭ রানে ৩টি নিয়েছেন আরেক পেসার কাসুন রাজিথা। ১৫ রানে ২ উইকেট ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার। এ নিয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টানা তিন ইনিংসে তারা ৩০০-এর নিচে অল আউট হলো। ডারবানে ২৩৫ এবং ২৫৯ রানের পর পোর্ট এলিজাবেথে আরো খারাপ করে ৬১.২ ওভারে ২২২ রানে শেষ স্বাগতিকদের প্রথম ইনিংস। শ্রীলঙ্কাও অবশ্য স্বস্তিতে নেই।  ৬০ রান তুলতেই যে তারা হারিয়ে ফেলেছে ৩ উইকেট। ক্রিকইনফো

দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংস : ৬১.২ ওভারে ২২২/১০ (ডি কক ৮৬, মারক্রাম ৬০; ফার্নান্ডো ৩/৬২, রাজিথা ৩/৬৭)।

শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংস : ২০ ওভারে ৬০/৩ (থিরিমানে ২৫*, করুণারত্মে ১৭; অলিভিয়ের ২/২৫)

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা