kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

চিরিরবন্দরে ট্রেন বাঁচালেন দুই খালাসি

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চিরিরবন্দরে ট্রেন বাঁচালেন দুই খালাসি

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে রেললাইন ভেঙে (ইনসেটে) যাওয়ায় চালকের দৃষ্টি আকর্ষণ করে লাল সংকেত হাতে দাঁড়িয়ে আছেন দুই খালাসি। তা দেখে চালক ট্রেন থামান। রক্ষা পায় যাত্রীরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে অল্পের জন্য ভয়াবহ দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে আন্ত নগর দ্রুতযান এক্সপ্রেস ৭৫৭ আপ ট্রেনের যাত্রীরা। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলার হোসেনপুর এলাকায় লাইন ভাঙা দেখে দিনাজপুর রেলপথ বিভাগের দায়িত্বরত দুই খালাসি লাল কাপড় উড়িয়ে ট্রেন থামানোর সংকেত দেন। তা দেখে চালক ট্রেনটি থামিয়ে দিলে রক্ষা পায় যাত্রীরা। পরে ভাঙা লাইন সাময়িক মেরামতের পর ট্রেনটি ধীরগতিতে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। 

পার্বতীপুর রেলস্টেশন অফিস সূত্রে জানা যায়, গতকাল সকাল ৬টা ৫০ মিনিটের দিকে আন্ত নগর দ্রুতযান এক্সপ্রেস ৭৫৭ আপ ট্রেনটি ঢাকা থেকে পার্বতীপুরে এসে পৌঁছায়। ৭টা ৫ মিনিটের দিকে ট্রেনটি পঞ্চগড়ের উদ্দেশে স্টেশন ত্যাগ করে। একপর্যায়ে চিরিরবন্দরের হোসেনপুরে সংকেত পেয়ে ট্রেনটি থেমে যায়। এ সময় যাত্রীদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়। ৫৩ মিনিট পর ভাঙা লাইন সাময়িক মেরামতের পর ট্রেনটি ধীরগতিতে (ঘণ্টায় ১০ কিলোমিটার) ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

ট্রেনযাত্রী পার্বতীপুর সরকারি কলেজের ছাত্র সোহাগ আলী বলেন, ‘পার্বতীপুর ছেড়ে আসার পর হোসেনপুর এলাকায় ৩৮৮/২ নম্বর পিলারের কাছে হঠাৎ দ্রুতগতির ট্রেনটি থেমে গেলে যাত্রীদের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়।’

ট্রেনটির চালক (লোকোমোটিভ মাস্টার) আশরাফুল আলম জানান, দুই খালাসির সতর্কতা সংকেত দেখে তিনি ট্রেনের গতি কমিয়ে দেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা