kalerkantho

বুধবার । ২০ শ্রাবণ ১৪২৮। ৪ আগস্ট ২০২১। ২৪ জিলহজ ১৪৪২

ভুল সবই ভুল

উট কুঁজে পানি পুরে রাখে

সবাই সত্যি জানে—এমন অনেক কথা পরে যাচাই করে দেখা গেছে, সেগুলো মিথ্যা। লিখছেন আসমা নুসরাত

৭ জানুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উট কুঁজে পানি পুরে রাখে

আসলে কুঁজে চর্বি পুরে রাখে উট। এর ওজন ৮০ পাউন্ড পর্যন্ত হওয়ার খবর মিলেছে। এ কারণে উট এক-দুই সপ্তাহ পর্যন্ত না খেয়ে টিকে থাকতে পারে। এখন কেউ কেউ বলতে পারেন এক গ্রাম চর্বি গলে তো এক গ্রামের বেশি পানি তৈরি হয়। কথা মিথ্যা নয়। কিন্তু আরো সত্য হলো, এটি উটের পানি তৈরির কাজে আসে না। কিন্তু কুঁজে চর্বি জমাতে বরং তার বেশি পানি খরচ হয়। তাহলে উট পানি কোথায় জমা রাখে?  উত্তর হলো—রক্তকোষে এবং শরীরের আরো কিছু অংশে। তবে এর চেয়েও বড় কথা হলো উট খুব মিতব্যয়ী, হিসেব করে পানি খরচ করে। যেমন সে খুব অল্প পরিমাণ মূত্র ত্যাগ করে। অনেক প্রাণী বিশেষত শুষ্ক অঞ্চলে নিঃশ্বাস-প্রশ্বাস কাজে পানি বেশি ব্যয় করে, উট সে তুলনায় অনেক কম করে। তারপর ঘামানোর ব্যাপারে বলতে হয় উট খুবই কম ঘামে। শরীরের ভেতরেও উটের পানি ব্যবস্থাপনার কারসাজি আছে। তার রক্তকোষগুলো যখন তুলনামূলকভাবে শুকিয়ে আসে তখন পানি সরবরাহ করে শরীরের অন্য তরল অংশ। আরো ব্যাপার হলো, শরীরের মোট ওজনের ২৫ শতাংশ কমে না যাওয়া পর্যন্ত উট পানির অভাব সহ্য করে নিতে পারে। অথচ যেখানে অন্য স্তন্যপায়ীরা ১২-১৫ শতাংশ ওজন কমে গেলেই হৃদপিণ্ড বিকল হয়ে যাবার মতো জটিলতায় পড়ে। তাই মরুভূমির জাহাজখ্যাত উট এক-দুই সপ্তাহ পানি ছাড়াই মরুভূমিতে টিকে থাকতে পারে। তবে পিঠে ওজন চাপানো হলে দিনের সংখ্যা কমে তিন বা চার দিনে আসে।



সাতদিনের সেরা