kalerkantho

সোমবার ।  ২৩ মে ২০২২ । ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২১ শাওয়াল ১৪৪৩  

ময়লার দুই গাড়িচালকই গ্রেপ্তার

আহসান কবিরের লাশ দাফন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রাজধানীর পান্থপথ ও গুলিস্তান এলাকায় ময়লার গাড়ির চাপায় দুজন নিহত হওয়ার ঘটনায় দুই চালককেই গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গতকাল সকাল থেকে রাত ১১টার মধ্যে অভিযান চালিয়ে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, পান্থপথে বৃহস্পতিবার ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ময়লার গাড়ির ধাক্কায় সংবাদকর্মী আহসান কবির খান নিহতের ঘটনায় গত রাতে গাড়িচালক হানিফকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আজ শনিবার দুপুরে কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানানো হবে।

বিজ্ঞাপন

 

এদিকে গত বুধবার গুলিস্তান এলাকায় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসানের মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্ত ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়ির চালক হারুন মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৩। গতকাল রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।  

র‌্যাব-৩-এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বীনা রানী দাস বলেন, ডিএসসিসির ওই গাড়ি হারুনের নামে বরাদ্দ ছিল। তবে ঘটনার সময় তিনি গাড়িটি চালাচ্ছিলেন না।

বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে পান্থপথে বসুন্ধরা সিটির সামনে ডিএনসিসির ময়লার গাড়ির ধাক্কায় প্রথম আলোর সাবেক কর্মী আহসান কবির খান নিহত হন। এ দুর্ঘটনায় নিহতের পরিবার বাদী হয়ে কলাবাগান থানায় একটি হত্যা মামলা করেছে। জানা গেছে, ওই গাড়ির মূল চালক মো. হানিফ নামে সিটি করপোরেশনের এক কর্মী। কিন্তু গাড়িটি চালাতেন ফটিক নামে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের এক সুইপার। তিনি ডিএনসিসির বৈধ কর্মীও নন। এঁদের একজনকে  র‌্যাব গ্রেপ্তার করেছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

গ্রামের বাড়িতে আহসান কবিরের

লাশ দাফন 

আহসান কবির খানের ঝালকাঠি সদর উপজেলার শিরজুগ গ্রামের বাড়িতে তাঁর পরিবারে চলছে মাতম। গতকালও তাঁর মা-বাবা ও বোনের কান্নায় শোকাচ্ছন্ন হয়ে ছিল গ্রামটি। মা আমেনা বেগম ও বোন তামান্না আক্তারের আহাজারি ও কান্না দেখে চোখে পানি ধরে রাখতে পারছিল না প্রতিবেশীরা। তাঁর বৃদ্ধ বাবা কিছুক্ষণ পরপরই জানতে চাইছিলেন লাশবাহী গাড়ি কত দূর, আর বুক চাপড়ে করছিলেন আর্তনাদ।

গতকাল দুপুর ১২টার দিকে আহসান কবিরের মৃতদেহ নিয়ে অ্যাম্বুল্যান্সে ঝালকাঠির উদ্দেশে রওনা দেয় তাঁর স্ত্রী-সন্তানসহ পরিবারের লোকজন। লাশবাহী গাড়িটি প্রথমে ঝালকাঠি সদর উপজেলার দেউলকাঠি বাজারে কবিরের শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে রাত ৮টার দিকে শিরজুগ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছায় মৃতদেহ। তাঁর মা-বাবা ও বোন ওই বাড়িতে রয়েছেন।



সাতদিনের সেরা