kalerkantho

রবিবার । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৫ ডিসেম্বর ২০২১। ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

আলোচনায় বক্তারা

ঢাবি প্রতিষ্ঠায় আহসানউল্লার ভূমিকা অনস্বীকার্য

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, সুফি সাধক ও সমাজ সংস্কারক খানবাহাদুর আহসানউল্লা ১৯১৪ সালের পর থেকে ১৯২৮ সাল পর্যন্ত তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট, সিন্ডিকেট, গুরুত্বপূর্ণ অন্যান্য কমিটি ও কাউন্সিলের সদস্য ছিলেন। তিনি ১৯১২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্কিম প্রণয়নের জন্য গঠিত নাথান কমিটির একটি গুরুত্বপূর্ণ সাবকমিটির সদস্য মনোনীত হয়েছিলেন। পরবর্তী সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খসড়া বিল ১৯১৯ বিবেচনার জন্য ৯ সদস্যবিশিষ্ট কমিটিতে খানবাহাদুর আহসানউল্লা একমাত্র বাঙালি মুসলমান সদস্য হিসেবে মনোনীত হন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যকারিতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে তাঁর জোরালো যুক্তি উপস্থাপন করেন। খানবাহাদুর আহসানউল্লা (রহ.) সম্পর্কে এই বিষয়গুলোই উঠে আসে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন স্বাস্থ্য সেক্টরের উদ্যোগে আয়োজিত সরাসরি সম্প্রচারিত আলোচনা অনুষ্ঠান ‘করোনা সংলাপ’-এ। গতকাল বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ফেসবুক ও ইউটিউবে প্রচারিত ‘করোনা সংলাপ’ (পর্ব-৩০) শিরোনামের এই লাইভ অনুষ্ঠানের বিষয় ছিল ‘অবিভক্ত বাংলার অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর শিক্ষা বিস্তার ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় খানবাহাদুর আহসানউল্লা (রহ)-এর ভূমিকা’।



সাতদিনের সেরা