kalerkantho

শুক্রবার । ৬ কার্তিক ১৪২৮। ২২ অক্টোবর ২০২১। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

টিআরএনবির ওয়েবিনার

ভাতা বিতরণে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করেছে এমএফএস

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মোবাইল ফিন্যানশিয়াল সার্ভিসের (এমএফএস) মাধ্যমে আর্থিক অন্তর্ভুক্তি সরকারের ভাতা ও আর্থিক সহায়তা বিতরণের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও জবাদিহি নিশ্চিত করেছে। পাশাপাশি ডিজিটাইজেশনের কারণে দেশ ক্যাশলেস সোসাইটির দিকে যাচ্ছে বলে মনে করছেন সরকারের নীতির্নিধারক ও সংশ্লিষ্ট খাতের বিশেষজ্ঞরা। গতকাল শনিবার টেলিকম রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ (টিআরএনবি) আয়োজিত ‘ভাতা বিতরণে মোবাইল প্রযুক্তি : স্বচ্ছতা ও জবাবদিহির নিশ্চয়তা’ শীর্ষক এক ওয়েবিনারে এমন অভিমত জানান আলোচকরা।

আলোচনায় অংশ নেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, সমাজসেবা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শেখ রফিকুল ইসলাম, প্রাথমিক শিক্ষা উপবৃত্তি প্রদান প্রকল্পের পরিচালক ইউসুফ আলী, ‘নগদ’-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক, এমটবের সাবেক মহাসচিব টি আই এম নুরুল কবির ও বেসিসের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর।

সংগঠনের সভাপতি রাশেদ মেহেদীর সঞ্চালনায় সরকারি ভাতা বিতরণে মোবাইল ফিন্যানশিয়াল সার্ভিসের ভূমিকা নিয়ে একটি প্রেজেন্টেশন দেন টিআরএনবির সাধারণ সম্পাদক সমীর কুমার দে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘টাকাকে আমরা আর কাগজের মুদ্রায় দেখতে চাই না। সে ক্ষেত্রে মোবাইল ফিন্যানশিয়াল সার্ভিসের মাধ্যমে প্রত্যেক মানুষের কাছে সেবা পৌঁছে দেওয়ার কাজ চলছে। ব্যাংকগুলোর প্রচলিত বিধি-বিধানও পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে। তারাও এখন পুরনো পদ্ধতি বাদ দিয়ে অ্যাপের মাধ্যমে লেনদেন করছে এবং এ বিষয়ে গ্রাহকদের উৎসাহিত করছে।’

মন্ত্রী বলেন, ২০২০ সালের মার্চ মাস থেকে এ পর্যন্ত দেশের এমন কেউ নেই, যে ডিজিটাল সেবার উপকার পায়নি। এখন চাইলেই মানুষ যেকোনো প্রান্ত থেকে যে কারো সঙ্গে যুক্ত হতে পারছে। করোনাকালে দেশের দুর্গম অঞ্চলে সরকার নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ করেছে। এখন সরকারি যেসব ভাতা, সবই স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় পৌঁছে যাচ্ছে ভাতাভোগীর হাতে। এ ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও জবাদিহি নিশ্চিত করতে কাজ করছে এমএফএস অপারেটরগুলো।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে আমাদের প্রতি র্নিদেশনা ছিল, আমরা যেন নির্বিঘ্নে সমাজিক নিরাপত্তা ভাতা দরিদ্র মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে পারি। তার জন্য আমরা মোবাইল ফিন্যানশিয়াল সার্ভিসের মতো প্রযুক্তি গ্রহণ করি, যাতে ঘরে বসেই মানুষ তাদের ভাতা পেয়ে যায়। কাজটি সহজ করে দেওয়ার জন্য ‘নগদ’কে ধন্যবাদ জানাই।”



সাতদিনের সেরা