kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

তালতলীতে ১৫৭ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার হলেও জব্দ করেনি প্রশাসন

হায়াতুজ্জামান মিরাজ, আমতলী (বরগুনা)   

২১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বরগুনার তালতলী উপজেলার কড়ইবাড়িয়া বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও ফেয়ার প্রাইজ ডিলার সফিকুল ইসলাম সেন্টুর ঘর থেকে ১৫৭ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, উদ্ধার করা চাল সরকারি হলেও তা জব্দ করেনি তালতলী উপজেলা প্রশাসন। উল্টো বস্তা পরিবর্তন করে সরকারি ওই চাল পরে অন্যত্র বিক্রি করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার দুপুরে ফেয়ার প্রাইজ ডিলার সফিকুল ইসলাম সেন্টুর ঘরে খাদ্য অধিদপ্তরের সিল দেওয়া ৩০ কেজি ওজনের বস্তাগুলো খুলে ৫০ কেজি ওজনের নূরজাহান অটোরাইস মিল লেখা বড় বস্তায় ভরা হয়। পরে ব্যাটারিচালিত তিনটি গাড়ি এসে সেই চালের বস্তাগুলো বোঝাই করে আমতলীর দিকে চলে যায়। ফের বিকেল ৪টার পরে আবারও তিনটি গাড়ি চাল নিতে এলে স্থানীয়রা বাধা দেয়। এ অবস্থায় গাড়িগুলো চাল না নিয়েই চলে যাওয়ার ঘণ্টাখানেক পরে তালতলী থানা থেকে পুলিশ ও সংবাদকর্মীরা ঘটনাস্থলে এলে ডিলার সফিকুল তাঁর ঘরটি বন্ধ করে ওখান থেকে সটকে পড়েন। এরপর রাত সাড়ে ১০টার দিকে তালতলী উপজেলা চেয়ারম্যান রেজবী উল কবির জোমাদ্দার, নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সেলিম মিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ছোট বগী ইউপি চেয়ারম্যান তৌফিকুজ্জামান তনু ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মনিকা নাজনিন মনি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। স্থানীয়দের চাপে ডিলার সেন্টু তাঁর ঘর খুলতে বাধ্য হন। এ সময় ওই ঘরে থাকা ১৫৭ বস্তা চাল পাওয়া যায়।

তালতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সেলিম মিয়া বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে যে ১৫৭ বস্তা চাল পাওয়া গেছে সেগুলোর গায়ে সরকারি কোনো সিল পাওয়া যায়নি। সরকারি সিল দেওয়া কোনো চালের বস্তা না পাওয়ায় চাল জব্দ করা হয়নি।’

এ বিষয়ে জানতে তালতলী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান রেজবী উল কবির জোমাদ্দারকে মোবাইল ফোনে কল দিলেও তিনি সাড়া দেননি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা