kalerkantho

স্ত্রী-সন্তানকে স্বীকৃতি ১৯ বছর পর মুক্তি

যশোর অফিস   

১০ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্ত্রী-সন্তানকে স্বীকৃতি ১৯ বছর পর মুক্তি

মুক্তির পর কারাফটকে বাবা-বোনের মাঝে ইসলাম

১৯ বছর কারাভোগের পর স্ত্রী-সন্তানকে স্বীকৃতি দিয়ে মুক্তি পেয়েছেন মোহাম্মদ ইসলাম। গতকাল শুক্রবার জামিনে মুক্তি পান তিনি। স্ত্রী-ছেলেকে স্বীকৃতি না দেওয়াসংক্রান্ত এক মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছিল তাঁর। ইসলাম ঝিনাইদহ সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর গ্রামের আব্দুল আজিজ মৃধার ছেলে।

গতকাল দুপুরে তিনি যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান। এ সময় কারাফটকে উপস্থিত ছিলেন তাঁর বাবা, দুই বোন ও এক ভাই। কারামুক্তির সময় ইসলামের ছেলে মিলন ও স্ত্রী মালা উপস্থিত ছিলেন না। তাঁদের অনুপস্থিতির বিষয়ে ইসলামের বাবা আব্দুল আজিজ বলেন, ‘তারা ঢাকায় রয়েছে।’ 

যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার আবু তালেব বলেন, ‘সন্তান ও স্ত্রীকে মেনে নেওয়ার শর্তে আদালত তাঁর জামিন মঞ্জুর করেন। এর আগে গত ৩১ জুলাই ছেলে মিলনের উপস্থিতিতে যশোর কারাগারে ফের ইসলাম ও মালার বিয়ে হয়।’

ইসলাম ২০০০ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি একই এলাকার মালাকে ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী বিয়ে করেন। তখন তাঁদের কাবিন হয়নি। ২০০১ সালের ২১ জানুয়ারি তাঁদের পুত্রসন্তান মিলনের জন্ম হয়। কিন্তু মিলনের জন্মের পর স্ত্রী ও সন্তানকে অস্বীকার করেন ইসলাম। এরপর মালার বাবা বাদী হয়ে ইসলামের বিরুদ্ধে ২০০১ সালে ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা করেন। মামলার পর ডিএনএ টেস্টে সন্তানের পরিচয় নিশ্চিত হয়। তার পরও ইসলাম স্ত্রী ও তাঁর সন্তানের মর্যাদা দিতে অস্বীকার করেন। ফলে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের মামলায় ইসলামকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন আদালত।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা