kalerkantho

শনিবার । ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৬ রবিউস সানি               

বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়ালের সঙ্গে চায়না কনস্ট্রাকশনের চুক্তি

মোকামতলা পলাশবাড়ী চার লেন সড়ক উন্নয়নে বসুন্ধরা সিমেন্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মোকামতলা পলাশবাড়ী চার লেন সড়ক উন্নয়নে বসুন্ধরা সিমেন্ট

ঢাকায় গতকাল বৃহস্পতিবার বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর ও সাসেক রোড কানেক্টিভিটি প্রকল্পের ম্যানেজার যাং যং য়ুই নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন। ছবি : কালের কণ্ঠ

সাসেক রোড কানেক্টিভিটি প্রকল্প-২ ও এলেঙ্গা-হাটিকুমরুল-রংপুর রোড উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় মোকামতলা থেকে পলাশবাড়ী পর্যন্ত ২৯ দশমিক ৯ কিলোমিটার চার লেন সড়ক উন্নয়নে সেতু, কালভার্ট, ওভারপাস ও আন্ডারপাস নির্মাণে ব্যবহার করা হবে দেশের সিমেন্টশিল্পে সেরা ব্র্যান্ড বসুন্ধরা সিমেন্ট। এ লক্ষ্যে বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল কমপ্লেক্সের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না কনস্ট্রাকশন সেভেন্থ ইঞ্জিনিয়ারিং ডিভিশন করপোরেশনের চুক্তি সই হয়েছে।

হোটেল লা মেরিডিয়ান ঢাকায় গতকাল বৃহস্পতিবার বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর ও সাসেক রোড কানেক্টিভিটি প্রকল্পের ম্যানেজার যাং যং য়ুই নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে সই করেছেন।

চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে জানানো হয়, আধুনিক প্রযুক্তিতে উন্নতমানের ক্লিংকারে উৎপাদিত হয় বসুন্ধরা সিমেন্ট। সঠিক মানের ধারাবাহিকতা রক্ষা ও সুষ্ঠু সরবরাহ ব্যবস্থাপনার ওপর আস্থা রেখে সংশ্লিষ্ট প্রকল্পে বসুন্ধরা সিমেন্ট ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে চায়না কনস্ট্রাকশন সেভেন্থ ইঞ্জিনিয়ারিং ডিভিশন করপোরেশন। বর্তমানে দেশের সব উল্লেখযোগ্য প্রকল্প যেমন—মূল পদ্মা সেতু, পদ্মা সেতুর নদী শাসন, পদ্মা সেতুর রেল সংযোগ প্রকল্প, মেট্রো রেল, ফার্স্ট ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, পায়রা সেতু, সাসেক-১, কালশী ফ্লাইওভার, ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ উন্নয়ন প্রকল্প, এস আলম পাওয়ার প্লান্ট, রংপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, মাতারবাড়ী তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র, রূপসা রেল সেতু, রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ অন্যান্য বৃহৎ স্থাপনা নির্মাণে ব্যবহার করা হচ্ছে বসুন্ধরা সিমেন্ট।

চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন চায়না রেলওয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশনের (সাউথ এশিয়া কম্পানি) মহাব্যবস্থাপক গ সিচাও, ম্যাটেরিয়াল ম্যানেজার ডং যেং, বসুন্ধরা গ্রুপের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) মাহবুব হায়দার ও মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের পরিচালক ও কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, বসুন্ধরা গ্রুপের চিফ ফিন্যানশিয়াল অফিসার মো. তোফায়েল হোসেন, চিফ মার্কেটিং অফিসার (সিমেন্ট খাত) খন্দকার কিংশুক হোসেন, জেনারেল ম্যানেজার (সেলস) ইঞ্জিনিয়ার মো. মাহমুদুল হাসান, ম্যানেজার (টেকনিক্যাল সাপোর্ট) ইঞ্জিনিয়ার ইমাম আল কুদরত-ই-এলাহি, ম্যানেজার (মার্কেটিং ফাংশন) মো. সাইফুল ইসলাম রুবেলসহ অন্য কর্মকর্তারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা