kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

ইউপি নির্বাচন

কেন্দ্রে নাম পাঠাতে ২০ হাজার

নওগাঁ প্রতিনিধি   

১৭ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কেন্দ্রে নাম পাঠাতে ২০ হাজার

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে (ইউপি) চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নপ্রত্যাশীদের ফরম কিনতে হয় দলটির ধানমণ্ডি কার্যালয় থেকে। তবে তৃণমূলের বর্ধিত সভায় নাম প্রস্তাব করে রেজল্যুশন কেন্দ্রে পাঠানো হয়। আর এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ‘মনোনয়ন বাণিজ্যে’ নেমেছেন নওগাঁর মান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতারা। তাঁরা একটি আবেদন ফরম ছাপিয়ে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের কাছে তা বিক্রির নামে জনপ্রতি ২০ হাজার ৫০০ টাকা করে নিচ্ছেন। এরই মধ্যে উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের মনোনয়নপ্রত্যাশী ৩৬ জনের কাছ থেকে এভাবে টাকা নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের ছাপানো আবেদন ফরমটি গত বুধবার থেকে বিক্রি শুরু হয়েছে। মান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাহিদ মোর্শেদ বাবুর ব্যক্তিগত চেম্বার থেকে নির্ধারিত টাকায় আবেদন ফরম কিনতে হচ্ছে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের। উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল দেওয়ান এবং আওয়ামী লীগের কর্মী গোলাম রাব্বানী দুলাল মনোনয়নপ্রত্যাশীদের কাছে ওই বিশেষ আবেদন ফরম বিক্রি করছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মনোনয়নপ্রত্যাশী আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা জানান, উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় নির্মাণ ও খরচের নামে এই টাকা আদায় করা হচ্ছে। তবে কাউকে টাকা গ্রহণের রসিদ দেওয়া হচ্ছে না।

মনোনয়নপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে মান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন মণ্ডল বলেন, ‘উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় নির্মাণ করতে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হচ্ছে, এটা সত্য। তবে সম্ভাব্য প্রার্থীরা মনোনয়ন ফরম কেন্দ্র থেকেই কিনবেন এবং সেখানেই জমা দেবেন। এ ব্যাপারে আমাদের কোনো ভূমিকা নেই। তবে আবেদন ফরম কেনার ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগ থেকে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। সম্ভাব্য প্রার্থীদের সঙ্গে জোরও করা হচ্ছে না।’

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মালেক বলেন, ‘মান্দায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার বিষয়টি আমার কানেও এসেছে। বিষয়টি উপজেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারির কাছে জানতে চেয়েছিলাম। তিনি জানিয়েছেন, দলীয় কার্যালয় নির্মাণ করতে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে ওই টাকা নেওয়া হচ্ছে। তবে আমার মতামত হচ্ছে, মনোনয়নপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে এভাবে টাকা নেওয়া উচিত নয়। এতে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের ফোরামে আলোচনা করব।’ 

নাহিদ মোর্শেদ বাবুর সঙ্গে কথা বলতে একাধিকবার তাঁর মোবাইলে ফোন করলেও তিনি তা ধরেননি।

আগামী ২৮ নভেম্বর তৃতীয় দফা ইউপি নির্বাচনে নওগাঁর মান্দা উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন এবং বদলগাছী উপজেলার আটটি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল শনিবার থেকে শুরু হয়ে আগামী বুধবার পর্যন্ত মনোনয়নপ্রত্যাশীরা আওয়ামী লীগের ধানমণ্ডি কার্যালয় থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনতে পারবেন।



সাতদিনের সেরা