kalerkantho

বুধবার । ৭ আশ্বিন ১৪২৮। ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৪ সফর ১৪৪৩

সপ্তম শ্রেণি : বিজ্ঞান

মো. মিকাইল ইসলাম নিয়ন, সহকারী শিক্ষক, ঝিনুক মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, চুয়াডাঙ্গা সদর, চুয়াডাঙ্গা

২৮ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জ্ঞা ন মূ ল ক  প্র শ্ন

দশম অধ্যায়

বিদ্যুৎ ও চুম্বকের ঘটনা

 

১।   পরমাণুতে ইলেকট্রনের অবস্থান কোথায়?

     উত্তর : ইলেকট্রন পরমাণু নিউক্লিয়াসের চারপাশে নির্দিষ্ট কক্ষপথে প্রদক্ষিণ করে।

২।   নিম্ন তাপমাত্রায় অর্ধপরিবাহী পদার্থের আচরণ কেমন হয়?

     উত্তর : অর্ধপরিবাহী পদার্থ নিম্ন তাপমাত্রায় সাধারণত অপরিবাহীর মতো আচরণ করে।

৩।   চার্জ কী?

     উত্তর : পদার্থ সৃষ্টিকারী মৌলিক কণাগুলোর অর্থাৎ ইলেকট্রন ও প্রোটনের মৌলিক ও বৈশিষ্ট্যমূলক ধর্মকে চার্জ বলে।

৪।   বিদ্যুৎ প্রবাহ দ্বারা কী উৎপাদন করা যায়?

     উত্তর : বিদ্যুৎ প্রবাহ দ্বারা আলো ও তাপ উৎপাদন করা যায়।

৫।   বিদ্যুৎ কী?

     উত্তর : আধানের প্রবাহকে বিদ্যুৎ বলে।

৬।   পরিবাহী কাকে বলে?

     উত্তর : যেসব পদার্থের মধ্যে দিয়ে সহজেই বিদ্যুৎ প্রবাহিত হতে পারে তাদের পরিবাহী বলে।

৭।   ম্যাগনেট কী?

     উত্তর : ম্যাগনেট হচ্ছে চুম্বকের ইংরেজি নাম।

৮।   সর্বপ্রথম চুম্বক আবিষ্কার করেন কে?

     উত্তর : সর্বপ্রথম চুম্বক আবিষ্কার করেন ম্যাগনাস নামের এক রাখাল।

৯।   ফিলামেন্ট কী?

     উত্তর : ফিলামেন্ট হলো বৈদ্যুতিক বাল্বের ভেতরে মোটা তারের দুই প্রান্তের সঙ্গে সরু টাংস্টেন তারের কুণ্ডলীর সংযোগ।

১০। চৌম্বক পদার্থ কাকে বলে?

     উত্তর : যেসব পদার্থকে চুম্বক আকর্ষণ করে এবং যাদের চুম্বকে পরিণত করা যায় তাদের চৌম্বক পদার্থ বলে। যেমন—লোহা, নিকেল ইত্যাদি।

১১। চুম্বকের শক্তি কোথায় সবচেয়ে বেশি থাকে?

     উত্তর : চুম্বকের দুই প্রান্ত অর্থাৎ দুই মেরুতে চুম্বকের শক্তি সবচেয়ে বেশি থাকে।

১২। স্থির তড়িৎ কাকে বলে?

     উত্তর : আধান বা চার্জ যখন কোনো বস্তুতে আবদ্ধ থাকে তখন তাকে স্থির তড়িৎ বলে। ঘর্ষণের ফলে স্থির তড়িৎ উৎপন্ন হয়।

১৩। বৈদ্যুতিক হিটার ও ইস্ত্রিতে কিসের তার ব্যবহার করা হয়?

     উত্তর : বৈদ্যুতিক হিটার ও ইস্ত্রিতে নাইক্রোম তার ব্যবহার করা হয়।

১৪। অপরিবাহী কী?

     উত্তর : যেসব পদার্থের ইলেকট্রন এক পরমাণু থেকে অন্য পরমাণুতে যেতে পারে না, সেসব পদার্থকে অপরিবাহী পদার্থ বলে।



সাতদিনের সেরা