kalerkantho

শুক্রবার । ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৫ জুন ২০২০। ১২ শাওয়াল ১৪৪১

অষ্টম শ্রেণি । বিজ্ঞান

আবু জাফর সৈকত, সহকারী শিক্ষক, হাজী সিরাজ উদ্দিন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়, নারায়ণগঞ্জ

৯ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অষ্টম শ্রেণি । বিজ্ঞান

দ্বিতীয় অধ্যায় : জীবের বৃদ্ধি ও বংশগতি

১। বংশগতি কী?

উত্তর : যে প্রক্রিয়ায় সন্তান-সন্ততিতে মাতা-পিতার বৈশিষ্ট্য সঞ্চারিত হয় তাকে বংশগতি বলে।

২। জিন কাকে বলে?

উত্তর : জিন হলো ক্রোমোজোমে অবস্থিত জীবের বৈশিষ্ট্য নিয়ন্ত্রণকারী DNA-এর অংশবিশেষ।

৩। ক্যারিওকাইনেসিস কাকে বলে?

উত্তর : মাইটোসিস কোষ বিভাজনকালে নিউক্লিয়াসের বিভাজনকে ক্যারিওকাইনেসিস বলে।

৪। সাইটোকাইনেসিস কাকে বলে?

উত্তর : মাইটোসিস কোষ বিভাজনকালে সাইটোপ্লাজমের বিভাজনকে সাইটোকাইনেসিস বলে।

৫। RNA-এর পূর্ণরূপ কী?

উত্তর : RNA-এর পূর্ণরূপ হলো রাইবো নিউক্লিক এসিড।

৬। DNA-এর পূর্ণরূপ কী?

উত্তর : DNA-এর পূর্ণরূপ হলো ডি-অক্সিরাইবো নিউক্লিক এসিড।

৭। জীবদেহে কয় ধরনের কোষ বিভাজন দেখা যায়?

উত্তর : জীবদেহে তিন ধরনের কোষ বিভাজন দেখা যায়।

৮। ইন্টারফেজ কাকে বলে?

উত্তর : মাইটোসিস কোষ বিভাজনে ক্যারিওকাইনেসিস ও সাইটোকাইনেসিস শুরু হওয়ার পূর্বে কোষটির নিউক্লিয়াসকে কিছু প্রস্তুতিমূলক কাজ করতে হয়। কোষটির এ অবস্থাকে ইন্টারফেজ বলে।

৯। কোষ কাকে বলে?

উত্তর : জীবদেহের গঠন ও কাজের একককে কোষ বলে।

১০। কোষ বিভাজন বলতে কী বোঝো?

উত্তর : মাতৃকোষ থেকে অপত্য কোষ সৃষ্টি হওয়ার প্রক্রিয়াকেই কোষ বিভাজন বলে।

১১। অপত্য কোষ কাকে বলে?

উত্তর : কোষ বিভাজনের মাধ্যমে যে নতুন কোষের সৃষ্টি হয় তাকে অপত্য কোষ বলে।

১২। অ্যামাইটোসিস (প্রত্যক্ষ) কোষ বিভাজন কাকে?

উত্তর : যে বিভাজন প্রক্রিয়ায় একটি মাতৃকোষের নিউক্লিয়াস ও সাইটোপ্লাজম সরাসরি বিভক্ত হয়ে দুটি কোষ সৃষ্টি করে তাকে অ্যামাইটোসিস কোষ বিভাজন বলে।

১৩। মাইটোসিস (সমীকরণিক) কোষ বিভাজন কাকে?

উত্তর : যে প্রক্রিয়ায় মাতৃকোষের নিউক্লিয়াস একবার বিভাজিত হয়ে সমআকৃতির, সমগুণ সম্পন্ন ও সমসংখ্যক ক্রোমোজোম বিশিষ্ট দুটি অপত্য কোষের সৃষ্টি করে তাকে মাইটোসিস বলে।

১৪। মিয়োসিস (হ্রাসমূলক) কোষ বিভাজন কাকে বলে?

উত্তর : যে কোষ বিভাজনের ক্রোমোজোম সংখ্যা মাতৃকোষের ক্রোমোজোম সংখ্যার অর্ধেক হ্রাস পায় তাকে মিয়োসিস কোষ বিভাজন বলে।

১৫। ক্রোমোজোম কী?

উত্তর : কোষ বিভাজনের সময় সৃষ্ট ক্রোমাটিন তন্তুর প্রতিটি টুকরাকে ক্রোমোজোম বলা হয়।

১৬। স্পিন্ডল যন্ত্র কী?

উত্তর : মাইটোসিস প্রো-মেটাফেজ ধাপে কোষের উত্তর মেরু থেকে দক্ষিণ মেরু পর্যন্ত বিস্তৃত কতগুলো তন্তুর আবির্ভাব ঘটে। এগুলো মাকুর আকৃতি ধারণ করে। একে স্পিন্ডল যন্ত্র বলে।

১৭। জাইগোট কী?

উত্তর : দুটি হ্যাপ্লয়েড কোষের মিলনের ফলে যে কোষ সৃষ্টি হয় তাকে জাইগোট বলে।

১৮। ডিপ্লয়েড কী?

উত্তর : দুটি হ্যাপ্লয়েড কোষের মিলন ঘটলে ওই অবস্থাকে ডিপ্লয়েড বলে।

১৯। ক্রোমোজোমের প্রধান দুটি অংশ কী কী?

উত্তর : ক্রোমোজোমের প্রধান দুটি অংশ হলো—ক্রোমাটিড ও সেন্ট্রোমিয়ার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা