kalerkantho

সোমবার । ২২ আষাঢ় ১৪২৭। ৬ জুলাই ২০২০। ১৪ জিলকদ  ১৪৪১

তিন কন্যাসন্তানের যৌনাঙ্গহানি, বাবাসহ ডাক্তার বিচারের মুখে মিশরে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ জুন, ২০২০ ১৫:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তিন কন্যাসন্তানের যৌনাঙ্গহানি, বাবাসহ ডাক্তার বিচারের মুখে মিশরে

নারীর যৌনাঙ্গহানি করার মতো বর্বর প্রথাটি এখনো চালু রয়েছে মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকার কিছু কিছু জাতির মধ্যে। মিশরে নারীর যৌনাঙ্গহানি নিষিদ্ধ করা হলেও গোপনে কাজটি চলছে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে। এবার এমনি একটি বর্বর অঙ্গহানির ঘটনা সামনে এলো। শনিবার একজন মানবাধিকার আইনজীবী জানিয়েছেন, তিন শিশুকন্যাকে যৌনাঙ্গহানি করার দায়ে একজন চিকিৎসক এবং তাদের বাবার বিরুদ্ধে মিশরের আদালতে ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কায়রোর মহিলা পরামর্শ ও আইনী সচেতনতামূলক কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক রেদা এল ড্যানবউকি বলেছেন, রাজধানী কায়রো থেকে ৩৯০ কিলোমিটার দক্ষিণে সোহাগ প্রদেশের জুহায়না জেলায় গত সপ্তাহে তিনজন অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়ের যৌনাঙ্গহানি করা হয়েছে।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে তিনি বলেছিলেন যে, করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার কথা বলে ৮, ৯ এবং ১১ বছর বয়সী তিন কন্যা শিশুকে তাদের বাবা ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান। সেখানে তাদের অ্যানাস্থেসিয়া দিয়ে অজ্ঞান করে অঙ্গহানি করা হয়।

পরে বাড়িতে ফিরে মেয়েরা তাদের মাকে বিষয়টি জানিয়েছিল, যিনি তালাকপ্রাপ্ত এবং মেয়েদের বাবা থেকে আলাদা থাকছেন। তিনি ঘটনাটি পুলিশকে জানিয়েছেন। পরে পুলিশ মেয়েদের বাবা এবং ডাক্তারকে গ্রেপ্তার করেছে।

পাবলিক প্রসিকিউটর অফিস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মেয়েদের বাবা এবং ডাক্তারকে একটি ফরেনসিক বিশ্লেষণের পরে অবৈধভাবে মেয়েদের যৌনাঙ্গহানি করার দায়ে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

এল ড্যানবউকি জানিয়েছেন, অভিযুক্ত ডাক্তারের সাত বছরের কারাদণ্ড হতে পারে এবং তাদের বাবা আট বছরের কারাদণ্ডের মুখোমুখি হতে পারেন।

সূত্র- দ্য ন্যাশনাল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা