kalerkantho

শনিবার । ২৫ জানুয়ারি ২০২০। ১১ মাঘ ১৪২৬। ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

নাগরিকত্ব বিলের প্রতিবাদ

উত্তাল আসামে উলঙ্গ জনতার প্রতিবাদ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১২:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উত্তাল আসামে উলঙ্গ জনতার প্রতিবাদ!

আসামে উলঙ্গ হয়ে জনতার বিক্ষোভ

ভারতের লোকসভায় পাস হয়েছে বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল। এই বিলের প্রতিবাদে আসাম রাজ্যের পরিস্থিতি উত্তাল হয়ে উঠছে। এই প্রতিবাদে আসাম জুড়ে ডাকা বনধ্ ডাকা হয়েছে। এতে সর্বাত্মক সাড়াও মিলেছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে গুয়াহাটি, ডিব্রুগড়-সহ আসামের বিভিন্ন জায়গায় দোকানপাট বন্ধ ছিল। প্রতিবাদ-বিক্ষোভেও শামিল হয়েছে বিভিন্ন সংগঠন। শুধু তাই নয়, জনতার একটি অংশ উলঙ্গ হয়েও রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ জানিয়েছে। 

আসামে পরিস্থিতি যেন ক্রমেই নিয়ন্ত্রণের  বাইরে চলে যাচ্ছে । মঙ্গলবার বিক্ষোভকারীদের রোষের মুখে পড়েন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোওয়াল। গুয়াহাটির বিজেপি সাংসদ কুইন ওঝার বাড়িতেও ভাঙচুর চালিয়ে বাড়ির উঠোনেই তাঁর কুশপুতুল পোড়ায় জনতা। নর্থ ইস্ট স্টুডেন্টস ইউনিয়ন এই বিলের প্রতিবাদে বনধ ডেকেছে। সেই বনধের দ্বিতীয় দিনে গোলঘাট, তিনসুকিয়া, ডিব্রুগড়ের মতো জেলাগুলিতে মারাত্মক প্রভাব পড়েছে।

এদিকে, বিপাকে পড়েছেন আসামের মুখ্যমন্ত্রীও। মঙ্গলবার গুয়াহাটিতে একটি অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী সনোওয়াল। কিন্তু তাঁর কনভয়ের সামনে প্রতিবাদ-বিক্ষোভের আশঙ্কায় তাঁর যাত্রাপথ বদলাতে হয়েছে। আসামের মানুষকে শান্তি বজায় রাখার আবেদন জানিয়েছেন তিনি। তবে বাঙালি অধ্যুষিত বরাক উপত্যকায় বনধ্ সফল, এমনটা বলা যাবে না।

কেবল আসাম নয়, ত্রিপুরা, মণিপুর ও অরুণাচলেও চলছে বিক্ষোভ। মিছিল বের করে দুটি ছাত্র সংগঠন। মিছিলে হাঁটেন বহু মানুষও। তবে পরিস্থিতি যে এমন হাতের বাইরে যেতে পারে, তার আশঙ্কা করেছিলেন স্বয়ং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও। সোমবারই সংসদে ওই বিল পেশের সময় তিনি বারবার সতর্ক থাকার কথা জানিয়েছিলেন। সে সময় তিনি জানান, স্থানীয় মানুষেরই স্বার্থ দেখা হবে, তাই এই বিক্ষোভ দেখানোর কোনও প্রয়োজন নেই। অবিলম্বে বিক্ষোভের পথে ছেড়ে বেরিয়ে আসারও আবেদন করেন তিনি। কিন্তু শাহের কথা যে কেউ কানে তোলেননি, সেটা এদিনের বিক্ষোভ থেকেই স্পষ্ট।

সূত্র : এই সময় 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা