kalerkantho

রবিবার। ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭। ৯ আগস্ট ২০২০ । ১৮ জিলহজ ১৪৪১

বাম জোটের মিছিলে পুলিশের বাধা, তিনদিনের কর্মসূচি ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ জুলাই, ২০২০ ২০:২৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাম জোটের মিছিলে পুলিশের বাধা, তিনদিনের কর্মসূচি ঘোষণা

রাষ্ট্রায়ত্ত্ব পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত বাতিলসহ বিভিন্ন দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে বাম গণতান্ত্রিক জোটের বিক্ষোভ মিছিল রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে আটকে দিয়েছে পুলিশ। প্রতিবাদে তিন দিনের আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাম জোট।

ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী, আগামী ৬ জুলাই গোলটেবিল বৈঠক, পানির দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে ১৪ জুলাই কাওরান বাজার ওয়াশা ভবনের সামনে বিক্ষোভ এবং ২৩ জুলাই স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগসহ অন্যান্য দাবিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রালয় ঘেরাওয়ের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার শাহবাগ মোড়ে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন বাম জোটের সমন্বয়ক বজলুর রশীদ ফিরোজ।

এ সময় তিনি বলেন, পাটকলের ইতিহাসের সঙ্গে বাংলাদেশের ইতিহাস জড়িত। ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানে আদমজী পাটকলের হাজার-হাজার শ্রমিক রাস্তায় নেমে অভ্যুত্থান সফল করেছিলেন। এই কারণে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে সাবেক মন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামী আদমজী পাটকল বন্ধ করে দিয়েছিল। আর এখন মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির দাবিদার সরকার ২৫টি পাটকল বন্ধ করে দিচ্ছে। আসলে এরা সবাই লুটপাটের সরকার।

তিনি আরো বলেন, ২৫ হাজার শ্রমিক পরিচালনার জন্য সাড়ে তিন হাজার প্রশাসনের দরকার হয় না। এই মহামারিতে মাথাভারী প্রশাসন ঝেড়ে ফেলার পরামর্শ দিলে সরকার শ্রমিক ছাঁটাই করছে। যাদের লুটপাটের কারণে পাটশিল্পের এই অবস্থা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে শ্রমিক ছাঁটাই কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয় বলে তারা দাবি করেন।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশ শেষে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে বাম জোটের নেতা-কর্মীরা। শাহবাগ মোড়ে পুলিশ তাদের বাঁধা দিয়ে তারা সেখানেই বিক্ষোভ সমাবেশ করে। রাষ্ট্রীয় পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত বাতিল, পাটকল বন্ধ নয়- আধুনিকায়ন, পাট খাতে দুর্নীতি-লুটপাট বন্ধ, ভুলনীতি পরিহার; যতবার খুশি ততবার জ্বালানির দাম বৃদ্ধির অশুভ উদ্দেশ্যে সংসদে উত্থাপিত বিল প্রত্যাহার, সবার জন্য স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে বরাদ্দ বৃদ্ধি, দুর্নীতি-অনিয়ম-লুটপাট বন্ধ, দুর্নীতিবাজদের বিচার, করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে রাষ্ট্রীয় খরচে বিনামূল্যে সকল নাগরিকের করোনা টেস্ট ও চিকিৎসা প্রদান, বেসরকারি হাসপাতালমূহকে অধিগ্রহণ করে করোনা চিকিৎসায় কাজে লাগানো এবং শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধ, কর্মহীন-রোজগারহীনদের ত্রাণ সহায়তা ও রেশন প্রদানের দাবিতে ওই কর্মসূচি পালিত হয়। একই দাবিতে জেলায় জেলায় সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এক ঘণ্টা সড়কে অবস্থান ও অবরোধ কর্মসূচি পালিত হয়।

বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশে সামন্যতম চিকিৎসা সেবা নেই। করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর হিসাব সরকারি হিসেবের থেকে ৩-৪ গুণ বেশি। এই অবস্থায় করোনা মোকবেলায় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ ও পুরো স্বাস্থ্যখাতকে ঢেলে সাজানোর দাবি জানান তারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা