kalerkantho

মঙ্গলবার । ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৪ নভেম্বর ২০২০। ৮ রবিউস সানি ১৪৪২

জেরুজালেমে জন্মগ্রহণকারী মার্কিন নাগরিকদের পাসপোর্টে

ইসরায়েলকে জন্মস্থান বলে যুক্তরাষ্ট্রের অনুমোদনে ফিলিস্তিনের প্রতিবাদ

অনলাইন ডেস্ক   

৩০ অক্টোবর, ২০২০ ১৪:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইসরায়েলকে জন্মস্থান বলে যুক্তরাষ্ট্রের অনুমোদনে ফিলিস্তিনের প্রতিবাদ

জেরুজালেমে জন্মগ্রহণ করা মার্কিন নাগরিকরা পাসপোর্টে জন্মস্থান হিসেবে ইসরায়েলের নাম ব্যবহার করতে পারবে বলে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ঘোষণার প্রতিবাদ জানিয়েছে ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এক ঘোষণায় বলেন, জেরুজালেমে জন্ম নেওয়া মার্কিন নাগরিকরা পাসপোর্টে জন্মস্থান হিসেবে ইসরায়েলের নাম ব্যবহার করতে পারবে। যুক্তরাষ্ট্রের এ ঘোষণায় প্রতিবাদ জানায় ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ ও হামাস।

ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের মুখপাত্র নাবিল আবু রাদিনাহ বলেন, ‘পম্পেওর ঘোষণা অগ্রহণযোগ্য। তা আন্তর্জাতিক রাষ্টীয় আইনের পরিপন্থী।’ ফিলিস্তিনের বার্তা সংস্থা ওয়াফা এ খবর নিশ্চিত করে।

আবু রাদিনাহ আরো বলেন, ‘মুসলিম ও খ্রিস্টানদের পবিত্র ভূমিসহ পশ্চিম জেরুজালেম সবার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ অঞ্চলের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার মূল চাবিকাঠি এই শহর।’

এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে হামাসের শীর্ষনেতা হাজেম কাসেম বলেন, ‘আমেরিকার এই সিদ্ধান্ত পূর্বঘোষিত শতাব্দীর চুক্তি পদক্ষেপগুলো বাস্তবায়ন করছে। দখলদার ইসরায়েলের সঙ্গে আরব রাষ্ট্রগুলোর স্বাভাবিক সম্পর্ক এতে উৎসাহ জোগাচ্ছে।’

কাসেম আরো বলেন, ‘এ ঘোষণার মাধ্যমে ফিলিস্তিন জনগোষ্ঠীর সঙ্গে আমেরিকা শত্রুতামূলক আচরণ শুরু করল। এর মাধ্যমে ফিলিস্তিনের ইতিহাস, বাস্তবতা ও সত্যকে মিথ্যারোপ করা হয়।’

এর আগে জেরুজালেমে জন্ম নেওয়া মার্কিনিরা জন্মস্থান হিসেবে ইসরায়েল লেখার অনুমোদন ছিল না। যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক শান্তি আলোচনার আনুষঙ্গিক বিষয় হিসেবে এ নীতি ছিল।

জেরুজালেমের বদলে ইসরায়েলকে জন্মস্থান হিসেবে ব্যবহারের অনুমোদন দেওয়ার মাধ্যমে পূর্বঘোষিত জেরুজালেম ইসরায়েলের রাজধানীর ঘোষণা আরো সুদৃঢ় হলো।

২০১৭ সালের ৬ ডিসেম্বর আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন দখলকৃত জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণা করে। অতঃপর তেলআবিব থেকে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তর করা হয়।

সূত্র : আনাদোলু এজেন্সি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা