kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

শাহরুখের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে, দাবি হিরো আলমের

অনলাইন ডেস্ক   

৭ অক্টোবর, ২০২১ ১৪:৩০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শাহরুখের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে, দাবি হিরো আলমের

শাহরুখের ছেলে আরিয়ানকে আটক করা হয়েছে মাদক মামলায়। বলিউড বাদশার পরিবারের এই ঘটনায় আঁচ লেগেছে গোটা উপমহাদেশে। বাংলাদেশেই শাহরুখভক্তরা ব্যথিত। তারা এই সময়ে শাহরুখের জন্য শুভ কামনা জানাচ্ছে, এ ছাড়া কী-ই বা উপায়। 

বাংলাদেশের আমজনতা আরিয়ানের এই ইস্যুতে কথা বলছে। এবার কথা বলছেন সোশ্যাল মিডিয়ার আলোচিত ব্যক্তি আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম। তিনি মনে করেন, শাহরুখের ছেলে আরিয়ানকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়ে থাকতে পারে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ফেসবুক লাইভে এসে নিজের অভিমত দেন। 

আশরাফুল আলম বলেন, সন্তানের এমন অবস্থায় কোনো বাবা-মাই ভালো থাকতে পারেন না। শাহরুখের এখন দুঃসময় যাচ্ছে। আপনারা হয়তো নিজেরাও দেখছেন কী ঘটছে। বিভিন্ন খবর আসছে, যেসব খবরের কোনোটা সত্য, কোনোটা মিথ্যা। তবে যেটাই হোক, আমি চাই দ্রুত এই বিপদ থেকে শাহরুখ খান উদ্ধার যেন পায়। 

শাহরুখ খানের বিশাল ফ্যান উল্লেখ করে হিরো আলম বলেন, শাহরুখের বিরুদ্ধে এটা ষড়যন্ত্র হতে পারে, সত্যের জয় হবেই। আমি তার বিশাল ফ্যান, আমার প্রিয় মানুষের এমন দিনে আমার মনটা ভালো নেই। আমি আশা করি, অতি তাড়াতাড়ি এই বিপদ থেকে শাহরুখ খান মুক্ত হবেন। 

এর আগে এসবের মাঝেই চাঞ্চল্যকর দাবি তুললেন এনসিপির মুখপাত্র তথা মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী নবাব মালিক। তিনি স্পষ্ট বলেন, এই ঘটনার পেছনে হাত রয়েছে বিজেপির। সঙ্গে এটাও দাবি করা হয়েছে যে আসল টার্গেট শাহরুখ।

‘পুরো ঘটনাটা সাজানো’ বলে জানিয়েছেন নবাব। সঙ্গে তাঁর দাবি, মহারাষ্ট্র সরকারকে প্যাঁচে ফেলতে  মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরকে দিয়ে এই কাজ করাচ্ছে বিজেপি। এর আগে কংগ্রেসের পক্ষ থেকেও দাবি করা হয়েছিল, গুজরাটের মুন্দ্রা বন্দরে আটক ৩০০০ কিলোগ্রাম হেরোইন উদ্ধারের মামলা থেকে দেশবাসীর নজর ঘোরাতেই  মাদকদ্রব অধিদপ্তরের প্রমোদতরী অভিযান। এখানেও পরোক্ষভাবে বিজেপির দিকেই টার্গেট করা হয়েছিল। 

নবাবের দাবি, শাহরুখ খানকে পরবর্তী নিশানা করা হবে বলে অন্তত এক মাস আগে সাংবাদিকদের কাছে খবর ছিল। সঙ্গে শাহরুখপুত্রকে আটক করার পর তাঁর সঙ্গে সেলফি তোলা ওই অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির প্রসঙ্গও তোলেন তিনি। 

জানা গেছে, ওই ব্যক্তির নাম মণীশ ভানুশালী। যদিও এনসিবি জানিয়েছে, ওই ব্যক্তি তাঁদের কেউ নন। তাই প্রশ্ন উঠছে, কে ওই ব্যক্তি? সে এনসিবির অভিযানের সময়টাতেই বা কী করছিল ওই প্রমোদতরীতে। নবাবের দাবি, তিনি বিজেপির সঙ্গে যুক্ত। অমিত শাহ ও নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে তাঁর ছবি রয়েছে। যদিও নবাবের এই দাবি খারিজ করে দিয়েছেন মণীশ ভানুশালী। জানিয়েছেন, তাঁর সঙ্গে বিজেপির কোনো সম্পর্ক নেই!



সাতদিনের সেরা