kalerkantho

রবিবার। ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৭ জুন ২০২০। ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কলেজছাত্রীর পা ভাঙল বখাটে

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পিরোজপুর   

১০ এপ্রিল, ২০২০ ১৮:৪২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কলেজছাত্রীর পা ভাঙল বখাটে

পিরোজপুরের কাউখালীতে রাব্বী মোল্লা নামে এক বখাটে দরিদ্র শারীরিক প্রতিবন্ধী মেধাবি এক কলেজছাত্রীকে পিটিয়ে পা ভেঙে দিয়েছে। হামলার শিকার কলেজছাত্রী রুমা আক্তার গত ১৫ দিন ধরে হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন। বখোটের উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করতে গিয়ে গত ২৭ মার্চ এ হামলার শিকার হন তিনি। অতি দরিদ্র ওই কলেজছাত্রী উপজেলার আশপর্দি গ্রামের মৃত নৈশ প্রহরী আমীর হোসেন তালুকদারের মেয়ে। মেয়েটি পিতার মৃত্যুর পর টিউশনি করে বরিশাল বিএম করেজে মাস্টার্স রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে শেষ বর্ষে লেখাপড়া করে আসছেন। আহত রুমা বাগেরহাটের বগা ক্লিনিকে বর্তমানে চিকিৎসাধীন।

আহত রুমা জানান, বাবার মৃত্যুর পর আমার দুই বোনের লেখা পড়া বন্ধ হওয়ার পথে তখন নিজে উপজেলা সদরের বাসায় বাসায় টিউশনে করে লেখাপড়া চালাই। বাবা না থাকায় একই গ্রামের রফিক মোল্লার বখাটে ছেলে রাব্বী মোল্লা পথে আসতে যেতে রুমাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত শুরু করে। গত ২৭ মার্চ টিউিশনি করে বাড়িতে ফিরছিলাম। এ সময় রাব্বী তার পিছু নেয়। বাড়ির কাছাকাছি যেতে ও কুপ্রস্তাব দিয়ে ওড়না টেনে নেয়। এ সময় প্রতিবাদ জানালে কাঠের চলা দিয়ে নির্দয়ভাবে পিটিয়ে ডান পা ভেঙে দেয়।

এদিকে এ ঘটনা করোনা সংকট কালে ধামাচাপা পড়ে থাকে। এদিকে এ ঘটনার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে নিন্দার ঝড় ওঠে।

শুক্রবার দুপুরে বাগেরহাট বগা ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন আহত রুমা কালের কণ্ঠকে বলেন, আমি লেখা পড়া করে নিজের পায়ে দাঁড়াতে চাইছিলাম কিন্তু বখাটে আমার জীবনটারে শ্যাষ কইরা দিছে। আমি বাম পা জন্ম থেকে খুড়িয়ে হাঁটি। এখন সে আমার ডান পা পিটিয়ে ভেঙে দিয়েছে। এক যুবক হাসপাতালে এসেও হুমকি দিয়া গেছে।

আহত রুমা কান্নায় ভেঙে পড়ে বলেন, আমার চিকিৎসায় টাকার বড় অভাব। মা ১২ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে চিকিৎসা চালাচ্ছে। চিকিৎসায় ৬০/৭০ হাজার টাকা প্রয়োজন। আমি বাঁচতে চাই। আপনারা আমারে বাঁচান। আমি লেখা পড়া করে নিজের পায়ে দাঁড়াতে চাই।

আহত কলেজছাত্রীর শিক্ষক মোতালেব ফারুকী বলেন, মেয়েটি খুব ভালো ও মেধাবী ছাত্রী। অনেক কষ্ট করে টিউশনি করে সংসার চালায়। বাম পায়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলা মেয়েটির ডান পাটাও ভেঙে দিল বখাটেরা। ঐ বখাটের দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবি করছি।

কাউখালী থানার ওসি মো. নজরুল ইসলাম জনান, কলেজছাত্রীকে পিটিয়ে আহত করার খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছি। এ ঘটনায় মেয়েটির পরিবারের অভিযোগের মামলা নেওয়া হয়েছে। করোনা সংকটে দরিদ্র ওই কলেজছাত্রীর পরিবারে প্রশাসনের পক্ষ হতে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। বখাটেকে গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

কাউখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা খালেদা খাতুন রেখা বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবেলায় প্রশাসনিক ব্যস্ততার ভিতরেও আমরা মেয়েটির পরিবারের খোঁজ রাখছি। অভিযুক্ত বখাটেকে দ্রুত গ্রেপ্তারে থানা পুলিশকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। আমরা রুমার পরিবারের পাশে আছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা