kalerkantho


জানা-অজানা

প্রথম বিশ্বযুদ্ধ

[বিভিন্ন শ্রেণির বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা বইয়ে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের কথা উল্লেখ আছে]

আব্দুর রাজ্জাক   

৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



প্রথম বিশ্বযুদ্ধ

বিংশ শতাব্দীর উল্লেখযোগ্য ঘটনাগুলোর মধ্যে অন্যতম প্রথম বিশ্বযুদ্ধ। যুদ্ধটি গ্রেট ওয়ার ও ওয়ার টু এন্ড অল ওয়ারস নামেও পরিচিত। এটি একটি বৈশ্বিক যুদ্ধ, যা ১৯১৪ সালে শুরু হয় আর শেষ হয় ১৯১৮ সালে।

 

অস্ট্রো-হাঙ্গেরিয়ান সাম্রাজ্যের যুবরাজ ডিউক ফার্দিনান্দ বসনিয়ার সারায়েভো শহরে স্ত্রীসহ সার্বিয়ান বিচ্ছিন্নতাবাদীদের গুলিতে নিহত হন। হত্যাকাণ্ডের পর সার্বিয়া একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। অস্ট্রিয়া এ তদন্ত কমিটিতে অস্ট্রো-হাঙ্গেরিয়ান সাম্রাজ্যের প্রতিনিধি নিয়োগসহ আরো বেশ কিছু দাবি জানায়। কিন্তু সার্বিয়া এসব দাবি মানতে অস্বীকার করে। ফলে অস্ট্রিয়া সার্বিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে। দুই দেশের বন্ধু রাষ্ট্রগুলো ধীরে ধীরে জড়িয়ে পড়ে এ যুদ্ধে। এভাবে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সূচনা হয়। তবে অস্ট্রো-হাঙ্গেরিয়ান সাম্রাজ্যের যুবরাজ হত্যাকাণ্ডই প্রথম বিশ্বযুদ্ধের একমাত্র কারণ নয়। পুরনো শত্রুতা, শিল্প বিপ্লবের কাঁচামাল সংগ্রহ ও তৈরি পণ্য বিক্রির জন্য উপনিবেশ স্থাপনে প্রতিযোগিতা ছিল অন্যতম কারণ। কিছু ক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হস্তক্ষেপকেও এ যুদ্ধের জন্য দায়ী করা হয়। যুদ্ধে অক্ষশক্তির দেশগুলোর মধ্যে ছিল জার্মানি, অস্ট্রিয়া-হাঙ্গেরি, তুরস্ক ও বুলগেরিয়া। বিপরীতে মিত্রশক্তি হিসেবে ভূমিকা পালন করে ফ্রান্স, রাশিয়া, ব্রিটেন, সার্বিয়া, জাপান, ইতালি ও যুক্তরাষ্ট্র।

 

৬০ মিলিয়ন ইউরোপীয়সহ আরো ৭০ মিলিয়ন সামরিক বাহিনীর সদস্য এ যুদ্ধে সরাসরি অংশগ্রহণ করে। তাদের মধ্যে প্রায় দেড় কোটি মানুষ প্রাণ হারায়। আহত হয় দুই কোটি। দীর্ঘ চার বছর ধরে চলতে থাকা এ যুদ্ধে বিশ্বের মানচিত্রে বড় ধরনের পরিবর্তন দেখা দেয়। চারটি সাম্রাজ্যের পতন ঘটে। জন্ম হয় অনেক নতুন রাষ্ট্রের। বদলে যায় বিশ্বের রাজনৈতিক চিত্রপট।

 



মন্তব্য