kalerkantho

শনিবার ।  ২১ মে ২০২২ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩  

কী এলো এবারের সিইএসে

প্রযুক্তি ক্যালেন্ডারের সবচেয়ে বড় বার্ষিক প্রদর্শনী কনজিউমার ইলেকট্রনিকস শো বা ‘সিইএস’ ভার্চুয়ালি হয়ে গেল যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে। মহামারি আর ওমিক্রনের ভয়ে দর্শক উপস্থিতির সংখ্যা কম হলেও অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো ঠিকই হাজির হয়েছিল বেশ কিছু অদ্ভুত আর বিস্ময়কর প্রযুক্তি নিয়ে। এবারের আলোচিত কিছু প্রযুক্তি পণ্যের কথা জানাচ্ছেন এস এম তাহমিদ

১৬ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৭ মিনিটে



কী এলো এবারের সিইএসে

বিএমডাব্লিউর রং বদলানো সেই গাড়ি

রং বদলাবে গাড়ি

ই-ইংক প্রযুক্তির চমৎকার প্রয়োগ দেখিয়েছে গাড়ি নির্মাতা বিএমডাব্লিউ। তাদের নতুন আইএক্স ফ্লো পরীক্ষমূলক গাড়ির প্রতিটি অংশে লাগানো হয়েছে ই-ইংক প্যানেল, ফলে মুহূর্তেই সাদা গাড়ি হয়ে যাবে কালো। শুধু সাদা বা কালো নয়, চাইলে হালকা বা গাঢ় ধূসরও করা যেতে পারে, চাইলে করা যাবে সাদা-কালো মিলিয়ে করা নকশাও। ঠিক যে প্রযুক্তি ব্যবহারে তৈরি করা হয়েছে ই-রিডার ডিভাইস, সেটাই গাড়িতে স্থাপন করেছে তারা।

বিজ্ঞাপন

প্রযুক্তিটি ঠিক কী কারণে ব্যবহার করা হবে সেটা এখনো পরিষ্কার নয়, তবে শুধু শৈল্পিক সৌন্দর্যের জন্যও প্রযুক্তিটি অনেকের কাছেই পছন্দ হতে পারে।

 

ইন্টেল, এএমডি আর এনভিডিয়ার চমক

নতুন ১২ প্রজন্মের ল্যাপটপ প্রসেসর নিয়ে হাজির হয়েছিল ইন্টেল, এএমডি। তাদের দুটি নতুন রাইজেন সিরিজের প্রসেসর আরেকটি রেডিওন জিপিইউ করেছে উন্মোচন। আর এনভিডিয়া বাজেট গেমারদের জন্য বাজারে এনেছে নতুন জিপিইউ। ইন্টেলের চমকটি সবচেয়ে বড়, তাদের বাজেট সিরিজ কোর আই৩ ১২৩০০ আগের হাই-পারফরম্যান্স সিরিজ আই৯ ৯৯০০-কে এর সমান পারফরম্যান্স দেখিয়েছে; গেমিংয়ে এএমডির বর্তমান ফ্ল্যাগশিপ প্রসেসর রাইজেন৯ ৫৯৫০এক্সকে ফেলেছে পেছনে। ইন্টেলের নতুন ল্যাপটপ প্রসেসরগুলো বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অ্যাপল এম১ ম্যাক্সকেও হারিয়ে দেবে বলে জানিয়েছে তারা। এএমডির নতুন দুটি প্রসেসর সিরিজ বাজারে আসছে, যার একটি বর্তমানের এএম৪ সকেট মাদারবোর্ডেই বসবে, অন্যটির জন্য বাজারে আসবে নতুন এএম৫ সকেট সমৃদ্ধ মাদারবোর্ড। এএম৪ সিপিইউটির নাম ৫৮০০এক্সটিথ্রিডি, আর নতুন সিরিজের নাম দেওয়া হবে রাইজেন ৬০০০। রাইজেন ৫৮০০এক্সটিথ্রিডিতে থাকছে ৮টি কোর, ১৬টি থ্রেড এবং ক্যাশ থাকছে ৯৬ মেগাবাইট; বর্তমানে বাজারে থাকা এএম৪ প্ল্যাটফর্মের এটাই শেষ এবং সবচেয়ে শক্তিশালী সিপিইউ। রাইজেন ৬০০০ সিরিজে থাকবে পিসিআই৫ সমর্থন, ডিডিআর৫ র‌্যাম এবং ১৬টি বা আরো বেশি কোর। পাওয়া যাবে বছরের শেষভাগে। এনভিডিয়ার নতুন জিপিইউ আরটিএক্স ৩০৫০, আর এএমডির নতুন জিপিইউ রেডিওন আরএক্স ৬৫০০ এক্সটি। এনভিডিয়ার জিপিইউটিতে থাকছে ৮ গিগাবাইট জিডিডিআর৬ ভির‌্যাম, আরটিএক্স সিরিজের সব সুবিধা, তবে ১০৮০পি এবং হাই সেটিংসে ৬০ এফপিএসের বেশি নতুন গেমে পাওয়া যাবে না সাফ বলে দিয়েছে তারা। দাম ধরা হয়েছে ২৫০ মার্কিন ডলার। এএমডির জিপিইউতে থাকছে ৪ গিগাবাইট জিডিডিআর৬ ভির‌্যাম; এএমডির দাবি—এ কার্ডটিও ১০৮০পি রেজল্যুশনে অন্তত ৬০ এফপিএস দিতে পারবে সামনের গেমগুলোতে। দাম ধরা হয়েছে ১৯৯ মার্কিন ডলার। তবে দুটি জিপিইউর একটিও নির্ধারিত মূল্যে বাজারে পাওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে, কেননা চিপ সংকট দূর হচ্ছে না অচিরেই।

 

স্বচালিত ট্রাক্টর করবে চাষবাস

স্বচালিত গাড়ির চেয়ে বড় মাঠে স্বচালিত ট্রাক্টরের প্রয়োজনীয়তা অনেক বেশি, তেমনটাই ভেবেছেন জন ডিয়ার। সব মিলিয়ে ছয়টি স্টেরিও ক্যামেরা ও জিপিএস মিলিয়ে তৈরি করা হয়েছে ট্রাক্টরের গাইডেন্স সিস্টেম। খামারি তাঁর স্মার্টফোন থেকেই ট্রাক্টটির অবস্থান জানতে পারবেন, করতে পারবেন নিয়ন্ত্রণ। সিস্টেমটির মূল শক্তি অবশ্য স্বয়ংক্রিয়ভাবে চলতে-ফিরতে ও কাজ করতে পাড়ার ক্ষমতা। ট্রাক্টরটি নিজ থেকেই জমি চাষ করতে সক্ষম, ভবিষ্যতে নিড়ানি, চাকা ভাঙা, বীজ বপন এবং ফসল সংগ্রহের মতো কাজও করতে পারবে। কাজের মধ্যেই ট্রাক্টরটি ক্ষেতের মাটির অবস্থা, ফসলের স্বাস্থ্য, আবহাওয়াগত তথ্য সবই সংগ্রহ করতে থাকবে। ফলে খামারির কাজ হয়ে যাবে আরো সহজ। দ্রুতই প্রযুক্তিটি বিভিন্ন মডেলের ট্রাক্টরে স্থাপন করে বিক্রি করবে জন ডিয়ার।

ওয়াই-ফাইয়ে হবে রিমোট চার্জ

হুট করে রিমোটের ব্যাটারির চার্জ শেষ হওয়ার ভয়ের দিন শেষ—এমনটাই দাবি করছে স্যামসাং। তাদের রিমোটে থাকছে রিচার্জেবল ব্যাটারি, আর ওটা চার্জের জন্য দেওয়া হবে সোলার প্যানেল এবং ওয়াই-ফাই থেকে বিদ্যুৎ তৈরির অ্যান্টেনা। অদ্ভুত এ প্রযুক্তির মূল সূত্র নিকোলা টেসলা আবিষ্কার করেছেন বহু আগেই, কিন্তু তা সঠিক প্রয়োগের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি প্রস্তুত হয়েছে মাত্র কয়েক বছর আগে। যেহেতু টিভি বা এসির রিমোট তেমন শক্তি খরচ করে না, তাই অত্যন্ত স্বল্পশক্তির এই চার্জিং সিস্টেম দিয়েই চালানো যাবে কাজ। বাধা একটিই, রিমোটটি থাকতে হবে রাউটারের ৪০ ফিটের মধ্যে। আসছে সময়ে টিভি, এসি ও অন্য ডিভাইসের রিমোটগুলোতে এ প্রযুক্তি ব্যবহার করবে স্যামসাং।

ল্যাপটপের বিপ্লব

ইন্টেলের নতুন ১২তম প্রজন্মের জিপিইউ ও এনভিডিয়ার শক্তি সাশ্রয়ী আরটিএক্স ৩০৫০ জিপিইউ সম্ভব করেছে অত্যন্ত পাতলা গড়নের কিন্তু শক্তিশালী ল্যাপটপ ও ট্যাবলেট তৈরি। এর মধ্যে বলা যায় সবচেয়ে চমকপ্রদ ডিভাইস আসুস জেড ১৩ ফ্লো। কোর আই৯ ১২৯০০ প্রসেসর আর ৩০৫০ জিপিইউসংবলিত ট্যাবলেটটিতে অনায়াসে বর্তমানের সব গেম খেলা যাবে অথচ তার আকৃতি ১২.৯ ইঞ্চি—প্রায় মাইক্রোসফট সারফেস প্রো-সিরিজের সমান। এ ছাড়া বাজারে এসেছে ডেলের নতুন এক্সপিএস ও লেনোভো থিংকপ্যাড, যেগুলো বলা যায় এ বছরের সেরা উইন্ডোজ ল্যাপটপ। শক্তিশালী প্রসেসর অথচ পাতলা ডিজাইন এবং ১০ ঘণ্টার ওপর ব্যাটারিলাইফ দিতে সক্ষম এই ল্যাপটপগুলো। ডেল একটি ১৭.৫ ইঞ্চি টাচস্ক্রিন ল্যাপটপ বাজারে এনেছে ভাঁজ করে ১৩ ইঞ্চি ল্যাপটপের সমান করে ফেলা যায় নিমেষেই। সবচেয়ে বড় ব্যাপার, এ বছরের প্রায় প্রতিটি ল্যাপটপই ১০ ঘণ্টার কাছাকাছি ব্যাটারি ব্যাকআপ দিতে পারবে—কয়েক বছর আগেও যা ছিল অসম্ভব।

নতুন সব ফোন

স্যামসাং নিয়ে এসেছে তাদের বর্তমান ফ্ল্যাগশিপ এস২১ সিরিজের বাজেট সংস্করণ-এস২১ এফই। একই প্রসেসর, কিছুটা কম রেজল্যুশনের ডিসপ্লে আর ক্যামেরার মান কিছুটা কমিয়ে তৈরি হয়েছে ফোনটি, ডিজাইনও বলা যায় রাখা হয়েছে এস২১-এর মতোই। কিন্তু দাম ৬৯৯ মার্কিন ডলার ধরায় ক্রেতারা বলছেন, এর চেয়ে আর ১০০ ডলার বাড়িয়ে পূর্ণাঙ্গ ফ্ল্যাগশিপ এস২১ মডেলটিই কেনা যায়। ওয়ানপ্লাস তাদের নতুন ফ্ল্যাগশিপ ‘ওয়ানপ্লাস ১০ প্রো’ উন্মোচন করেছে, যদিও দাম এবং বিক্রি শুরু হবে কবে থেকে তা জানা যায়নি। স্ন্যাপড্রাগন ৮ জেন ১ প্রসেসর ও হ্যাসেলব্লাড ক্যামেরাসংবলিত ফোনটি শুরুতে পাওয়া যাবে শুধু চীনে। পরের বছরের মধ্যভাগে সম্ভবত বিশ্বের অন্যান্য দেশেও বিক্রি শুরু করবে তারা। এ ছাড়া স্যামসাং কিছু নতুন ভাঁজযোগ্য ফোনের মডেল দেখিয়েছে, যদিও সেগুলো এখনই বাজারে আসার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তারা ১৭ ইঞ্চি ভাঁজযোগ্য ট্যাবলেট, তিন ভাগে ভাঁজযোগ্য ফোন এবং রোল করে ছোট-বড় করা যায় এমন ডিসপ্লের ট্যাবলেট ও ফোন হাইব্রিড তুলে ধরেছে। আগামী দিনে স্যামসাং ডিসপ্লে ব্যবহার না করলেও অন্য নির্মাতাদের হাত ধরে সেসব ডিভাইস বাজারে হাজির হতে পারে।

ছিল আরো কিছু চমক

‘স্ক্যানবো’ নামের একটি কম্পানি ফুটো করে রক্ত বের না করেই গ্লুকোজ মাপতে পারে এমন যন্ত্র দেখিয়েছে, সনি তাদের নতুন ভার্চুয়াল রিয়ালিটি হেডসেট পিএস ভিআর২ করেছে উন্মোচন। বোস্টন ডাইনামিক্সের রোবট ফেসবুক মেটাভার্সের সঙ্গে হয়েছে যুক্ত, সনি তাদের নিজস্ব বৈদ্যুতিক গাড়ি চালিয়ে দেখিয়েছে। স্মার্টহোম প্রযুক্তি আর ঘরোয়া কাজের রোবট নিয়ে হাজির হয়েছে বরাবরের মতো অনেক কম্পানি। এর মধ্যে ব্যাকটেরিয়া ধ্বংসকারী ডিশওয়াশারটি মন জয় করেছে সবার। আরো উচ্চমানের কোয়ান্টামডট ওলেড প্রযুক্তির ৮কে রেজল্যুশনের টিভি হাজির করেছে এলজি, যদিও ৮কে মানের টিভি আদৌ প্রয়োজন কি না তা নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। এরূপ হাজারো ছোটখাটো নতুন গ্যাজেটের মেলার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে এবারের সিইএস আয়োজন।



সাতদিনের সেরা