kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

গেম

মৃত আত্মাদের দুনিয়ায়!

মোহাম্মদ তাহমিদ   

৭ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



মৃত আত্মাদের দুনিয়ায়!

চিরচেনা জগতের বাইরেও আছে অন্য এক দুনিয়া, যেখানে অপঘাতে মৃতদের আত্মা আটকে থাকে মুক্তির আগ পর্যন্ত—এমন ধারণা নিয়েই তৈরি করা হয়েছে গেম ‘দ্য মিডিয়াম’। অ্যাকশন নয়, বরং পাজল ও ধাঁধাভিত্তিক হরর গেমের ঘরানার গেমটি প্রকাশের শুরু থেকেই কাহিনিভিত্তিক গেমের ভক্তদের মন জয় করেছে। চমত্কার গ্রাফিকস, অন্যান্য গেমের চেয়ে খুবই আলাদা গেমপ্লে একেবারে শেষ পর্যন্ত পুরো মনোযোগ ধরে রাখবে।

গেমটির মূল চরিত্র ম্যারিয়েন। তিনি একজন মিডিয়াম, মৃত ব্যক্তির আত্মার সঙ্গে কথোপকথন করতে পারেন, চাইলে চলে যেতে পারেন আত্মাদের আটকে থাকা সেই জগতে। এই বিশেষ ক্ষমতা ব্যবহার করে তিনিই পারেন এই আত্মাদের মুক্তি দিতে। আর সে কাজে তাঁকে কিছুটা গোয়েন্দার ভূমিকায়ও নামতে হবে। গেমের শুরুতে দেখা যাবে নিওয়া রিসোর্টে গিয়ে নিজেকে খুঁজে বের করার জন্য ম্যারিয়েনকে মেসেজ দিয়েছেন টমাস নামের এক ব্যক্তি। রিসোর্টে যাওয়ার পর ম্যারিয়েন দেখতে পায়, সেটির বেশির ভাগ অংশই পরিত্যক্ত। টমাসকে খোঁজার জন্য তাঁকে রিসোর্টের প্রতিটি অংশ খুব ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করতে হবে। এর মধ্যেই সে আবিষ্কার করে, রিসোর্টের বেশ কিছু অংশে রয়ে গেছে অত্যন্ত শক্তিশালী কিছুর অস্তিত্ব। সেগুলো ধরে ম্যারিয়েন সেখানে আটকে থাকা আত্মাদের জগতে প্রবেশ করেন। আর সে আত্মাদের মুক্তি দেওয়ার মাধ্যমে এগোতে থাকে গেমের কাহিনি।

খেলার সময় গেমার মূলত দুটি কাজই করতে থাকবেন। রিসোর্টটি ঘুরে ঘুরে টমাসকে খোঁজা, রিসোর্টের রুমগুলোতে থাকা ইমোশনাল ইমপ্রিন্ট বের করা আর স্পিরিট ওয়ার্ল্ডে প্রবেশ করার রাস্তা খুঁজে বের করা। স্পিরিট ওয়ার্ল্ড বাস্তব দুনিয়া থেকে একেবারে আলাদা নয়। একই স্থানে দুটি আলাদা ডাইমেনশনে স্পিরিট দুনিয়া আর বাস্তব দুনিয়ার অবস্থান। যেসব জিনিস বাস্তব দুনিয়ায় গেমার করবেন, তার প্রভাব স্পিরিট দুনিয়ায়ও পড়বে। হয়তো বাস্তব দুনিয়ায় কোনো কাজ করার ফলে গেমার স্পিরিট দুনিয়ায় পাবেন একটি শিল্ড, যা ব্যবহার করে স্পিরিট দুনিয়ায় কিছুদূর এগিয়ে গিয়ে খুলতে পারবেন একটি দরজা, যার মাধ্যমে বাস্তব দুনিয়ায় এগিয়ে যেতে পারবেন ম্যারিয়েন। এভাবেই গেমটি এগোতে থাকবে।

দ্য মিডিয়ামের দুটি বিষয় গেমারকে মুগ্ধ করবেই করবে। একটি হচ্ছে এটির কাহিনি, অন্যটি গেমের অনবদ্য স্পিরিট ওয়ার্ল্ড ডিজাইন। অত্যাচার বা কষ্টের প্রভাব কারো কারো জীবনে যে আজীবন থেকে যায়—সেটা চমত্কারভাবে তুলে ধরা হয়েছে এই গেমে। কোনো দানব নয়, ভূত বা প্রেতও নয়, মানুষই হতে পারে সব কাল্পনিক হররের চেয়ে ভয়ংকর—এটাই বলা যায় দ্য মিডিয়ামের মূল বক্তব্য।

দ্য মিডিয়ামের সমস্যা যে একেবারেই নেই তা কিন্তু নয়। বেশ কিছু বাগ এখনো গেমে রয়ে গেছে, যা পরে প্যাঁচের মাধ্যমে হয়তো ঠিক করে দেওয়া হবে; কিন্তু এখন এটির জন্য গেমটির খেলার অভিজ্ঞতা কিছুটা হলেও নষ্ট হচ্ছে। শুধু পাজল ও এক্সপ্লোরেশনই গেমপ্লের একমাত্র অংশ হওয়ায় কিছুক্ষণ টানা খেলার পর একঘেয়ে লাগাটাই স্বাভাবিক, আর একবার কাহিনি জেনে ফেলার পর বারবার খেলার ইচ্ছা করবেও না। যাঁরা মন্থর গতির গেমপ্লে পছন্দ করেন না তাঁদের কাছে গেমটি ভালো লাগবে না। অবশ্য গেমটি অ্যাকশন ঘরানার নয়, তা শুরুতেই বলা হয়েছে। অনেকটা রহস্যগল্প পড়ার আমেজের গেম যাঁরা খুঁজছেন তাঁদের কাছে দ্য মিডিয়াম মাস্টারপিসও মনে হতে পারে।

 

খেলতে যা যা লাগবে

অন্তত উইন্ডোজ ১০ ৬৪বিট

ষষ্ঠ প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই৫ বা এএমডি রাইজেন ৫ ২৫০০এক্স প্রসেসর

৮ গিগাবাইট র‌্যাম

এনভিডিয়া জিটিএক্স ১৬৫০ সুপার বা রেডিওন আর৯ ৩৯০এক্স জিপিউ

৫৫ গিগাবাইট জায়গা

 

বয়স

গেমটি শুধু প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য

মন্তব্য