kalerkantho

শনিবার । ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৬ রবিউস সানি               

গেইম রিভিউ

শীত আসছে

এস এম তাহমিদ   

১৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শীত আসছে

আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে জনপ্রিয় টিভি ধারাবাহিক ‘গেইম অব থ্রোনস’-এর অষ্টম তথা শেষ সিজন। তার আগেই যাঁরা সে দুনিয়ার স্বাদ নিতে চান, তাঁদের জন্য আছে টিভি ধারাবাহিকটির অফিশিয়াল গেইম-‘গেইম অব থ্রোনস : উইন্টার ইজ কামিং’।  এটি খেলতে শক্তিশালী পিসিরও প্রয়োজন নেই, শুধু থাকতে হবে ইন্টারনেট সংযোগ। স্ট্র্যাটেজি ও বেইস নির্মাণনির্ভর গেইমটি খেলা যাবে বিনা মূল্যে, তবে কিছু আইটেমের জন্য অল্পবিস্তর টাকা খরচ করতে হতে পারে।

শুরুতে গেইমারকে দায়িত্ব দেওয়া হবে প্রাসাদ ও আশপাশের এলাকা ঠিকঠাক এবং উন্নয়নের জন্য। প্রাসাদের উন্নয়ন শেষ হওয়ার পর নতুন যোদ্ধা নিয়োগ করে তাদের প্রশিক্ষণ দিতে হবে। সৈন্য-সামন্ত তৈরি হওয়ার পর প্রাসাদের চারপাশের এলাকায় চোখ বুলিয়ে দেখতে হবে, বিদ্রোহী কোনো নেতা হামলার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে কি না। তাদের পরাস্ত করে নতুন এলাকা দখল করে সেখানে গড়তে হবে খামার, খনি, গুদামের মতো স্থাপনা। এগুলো থেকে পাওয়া যাবে গেইমের অন্যান্য কাজ করার জন্য প্রয়োজনীয় রসদ ও টাকা। যথেষ্ট পরিমাণ সৈন্য তৈরি হয়ে গেলে শুরু হবে গেইমের মূল ক্যাম্পেইন।

‘গেইম অব থ্রোনস’-এর সব মূল চরিত্রকে পাওয়া যাবে সেনাপতি হিসেবে। প্রতিটি সেনাপতির আছে নিজস্ব কিছু হামলার ধরন, কিছু আল্টিমেট অ্যাটাক। তাদের ব্যবহারের জন্য বর্ম, অস্ত্র ও অন্যান্য সামগ্রীও গেইমের বিভিন্ন জায়গা থেকে জোগাড় করে তাদের সজ্জিত করা যাবে। সৈন্যরা কিভাবে যুদ্ধ করবে সেটাও ঠিক করে নিতে হবে যুদ্ধের আগেই। সব প্রস্তুতির শেষে এবার পালা অন্য রাজাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে নামা। একেকটি মিশনে দুই বা ততোধিক যুদ্ধ থাকতে পারে। 

যুদ্ধে জিতলে পাওয়া যাবে কয়েন ও নানা ধরনের আইটেম। এভাবেই এগোতে থাকবে গেইমের ক্যাম্পেইন।

যুদ্ধ শেষে ফিরে আসার পর গেইমারের প্রথম কাজ হবে আহত সৈন্যদের সারিয়ে তোলা এবং নতুন সৈন্য নিয়োগ।

প্রাসাদ ও আশপাশের এলাকারও উন্নয়ন করতে হবে প্রতিটি যুদ্ধের পর। একা একা খেলার চেয়ে অন্যান্য গেইমারের সঙ্গে যোগ দিয়ে খেলাটাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। এতে একজোট হয়ে প্রাসাদের উন্নয়ন ছাড়াও অন্যান্য শত্রুর বিরুদ্ধে লড়াইও করা যাবে।

গেইমটির গ্রাফিকস তেমন উন্নত নয়, অবশ্য অনলাইন গেইমে সেটি আশা করাও ঠিক না। তবে গেইমপ্লে মজাদার, বিশেষ করে যারা কাজের ফাঁকে ফাঁকে গেইম খেলা পছন্দ করেন, তাঁদের জন্য আদর্শ এই গেইম। গেইমপ্লে স্ট্র্যাটেজি ঘরানার হওয়ায় গেইমে তেমন একটা মনোযোগ দেওয়ার দরকার নেই; কিন্তু বুদ্ধি খাটানোর সুযোগ পাওয়া যাবে, বিশেষ করে প্রতিটি যুদ্ধ, প্রতিটি মিশনে গেইম অব থ্রোনসের চিরচেনা চরিত্রদের দেখার মজাই আলাদা।

গেইমটি খেলতে পারবে অন্তত ১৫ বছর বয়সীরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা