kalerkantho

সোমবার । ২১ অক্টোবর ২০১৯। ৫ কাতির্ক ১৪২৬। ২১ সফর ১৪৪১       

আজ শুরু ইউএস ওপেন

ফেদেরার, নাদাল নাকি জোকোভিচ?

২৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ফেদেরার, নাদাল নাকি জোকোভিচ?

সবশেষ ‘বিগ থ্রির’ বাইরে কেউ গ্র্যান্ড স্লাম জিতেছিল ২০১৬ সালের ইউএস ওপেনে। সেবার জোকোভিচকে হারিয়ে বাজিমাত স্তান ওয়ারিংকার। আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া বছরের শেষ গ্র্যান্ড স্লামেও কি থাকবে এই ত্রয়ীর দাপট? নাকি চমক দেখাবেন স্তেফানোস সিসিপাস, ডমিনিক থিয়েম, দানিয়েল মেদভেদেভের মতো নতুন কেউ।

টেনিসে চলছে ‘বিগ থ্রি’র যুগ। সবশেষ ১১ গ্র্যান্ড স্লামের সবকটিই ভাগাভাগি করে নিয়েছেন রজার ফেদেরার, নোভাক জোকোভিচ আর রাফায়েল নাদাল। জোকোভিচ তো সবশেষ পাঁচ গ্র্যান্ড স্লামের জিতেছেন চারটিই। সবশেষ ‘বিগ থ্রির’ বাইরে কেউ গ্র্যান্ড স্লাম জিতেছিল ২০১৬ সালের ইউএস ওপেনে। সেবার জোকোভিচকে হারিয়ে বাজিমাত স্তান ওয়ারিংকার। আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া বছরের শেষ গ্র্যান্ড স্লামেও কি থাকবে এই ত্রয়ীর দাপট? নাকি চমক দেখাবেন স্তেফানোস সিসিপাস, ডমিনিক থিয়েম, দানিয়েল মেদভেদেভের মতো নতুন কেউ। মেয়েদের এককে সেরেনা উইলিয়ামস চেষ্টা করে চলেছেন মার্গারেট কোর্টের রেকর্ড ২৪ গ্র্যান্ড স্লামে ভাগ বসানোর। গত বছর ইউএস ওপেন আর এ বছরের উইম্বলডনের ফাইনাল খেলেও করতে পারেননি সেটা। ফ্ল্যাশিং মিডোর চেনা আঙিনায় এই কিংবদন্তি মুখিয়ে কোর্টকে ছোঁয়ার।

রজার ফেদেরারের টেনিস দেখে বোঝার উপায় নেই বয়স ৩৮ পেরিয়ে গেছে। ফোরহ্যান্ড, বেকহ্যান্ড, রিটার্ন, উইনার দেখে মনে হয় ২৭ বছরের তরুণ! গত উইম্বলডনে দাপটে পৌঁছেছিলেন ফাইনালে। এই টুর্নামেন্টের ইতিহাসের সবচেয়ে দীর্ঘ ফাইনালে ৪ ঘণ্টা ৫৭ মিনিট পর নোভাক জোকোভিচ তাঁকে হারান ৭-৬, ১-৬, ৭-৬, ৪-৬, ১৩-১২ গেমে। ম্যাচ হারলেও ফেদেরারের আত্মবিশ্বাস বেড়েছে আরো। স্বপ্ন দেখছেন ইউএস ওপেনেও ভালো কিছুর, ‘কি হাতছাড়া করেছি এসব নিয়ে ভাবার খুব বেশি সময় নেই আমার। আমি আত্মবিশ্বাসী। এই বয়সেও উপভোগ করছি টেনিস। ইউএস ওপেনে গত এক যুগে ভালো স্মৃতি নেই আমার। আশা করছি এবার বদলাবে ছবিটা।’

ফ্ল্যাশিং মিডোয় সবশেষ ২০০৮ সালে শিরোপা জিতেছিলেন রজার ফেদেরার। ২০ গ্র্যান্ড স্লামের মালিক এরপর ১১ বছর পারেননি এখানে শিরোপা উঁচিয়ে ধরতে। তার পরও ফেদেরারকেই সবচেয়ে বেশি ভয় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন নোভাক জোকোভিচের, ‘ফেদেরার এখনো সমীহ জাগানিয়া নাম। উইম্বলডনে ভাগ্য সঙ্গ না দিলে আমার জেতা কঠিন ছিল। ইউএস ওপেনে সহজে কাউকে ছাড় দেবে না ও।’ ফেদেরার ও জোকোভিচের অবশ্য উইম্বলডনের মতো রোমাঞ্চকর ফাইনাল উপহার দেওয়ার উপায় নেই। কারণ ড্রতে একই অর্ধে পড়েছেন দুজন। নিজেদের ম্যাচ না হারলে তাঁদের দেখা হবে সেমিফাইনালে। রাফায়েল নাদাল এ বছর জিতেছেন ফ্রেঞ্চ ওপেন। নিজের প্রিয় রোঁলা গাঁরোয় শিরোপা উঁচিয়ে ধরার পর অবশ্য স্মরণীয় কিছু করতে পারেননি উইম্বলডনে।

বিগ থ্রির এই তিনজনকে চ্যালেঞ্জ জানানোর মতো খেলোয়াড় হিসেবে সাবেক তারকা জন ম্যাকেনরো বেছে নিয়েছেন দানিয়েল মেদভেদেভকে। চেক প্রজাতন্ত্রের মেদভেদেভ কয়েক দিন আগে সিনসিনাটি মাস্টার্সের ফাইনালে হারিয়েছেন জোকোভিচকে। ফ্লাশিং মিডোতেও শিরোপা জয়ের সামর্থ্য তাঁর মাঝে দেখছেন ম্যাকেনরো, ‘ফেদেরার, জোকোভিচ, নাদালের রাজত্বে কেউ হানা দিতে পারলে সেটা মেদভেদেভ। তাঁকে নিয়ে বাজি ধরছি আমি।’

মেয়েদের এককে কোনো ‘বিগ থ্রি’ গড়ে ওঠেনি এখনো। একেক গ্র্যান্ড স্লামে শিরোপা জেতেন একেকজন। গত ইউএস ওপেনে সেরেনাকে হারিয়ে প্রথম জাপানি হিসেবে গ্র্যান্ড স্লাম জেতেন নাওমি ওসাকা। গত উইম্বলডনের ফাইনালে সেই সেরেনাকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন সিমোনা হালেপ। এবারও কি নতুন কোনো চ্যাম্পিয়ন, নাকি মার্গারেট কোর্টকে ছুঁয়ে ফেলবেন সেরেনা? প্রথম রাউন্ডে মারিয়া শারাপোভার মুখোমুখি হওয়ার আগে এই তারকার প্রত্যয়, ‘দারুণ প্রতিভাবান অনেকে উঠে এসেছে টেনিসে। তবে আমি নিজের সেরাটাই চেষ্টা করব।’ এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা