kalerkantho

শনিবার । ২৭ আষাঢ় ১৪২৭। ১১ জুলাই ২০২০। ১৯ জিলকদ ১৪৪১

বিশ্বসাহিত্য

২৯ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিশ্বসাহিত্য

হারুকি মুরাকামি

মুরাকামির ‘স্টে হোম স্পেশাল’

 

বিশ্বসাহিত্যের এক অতিপরিচিত ব্যক্তিত্ব হারুকি মুরাকামি। জাপানের অন্যতম এই ঔপন্যাসিক গত ২২ মে জাপানের বেতারে একটি লাইভ শো উপস্থাপন করেন। বিশ্বজুড়ে এখন চলছে করোনাতাণ্ডব। এরই মাঝে ‘স্টে হোম স্পেশাল’ শীর্ষক মুরাকামির এই শোয়ের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে মানুষকে বাড়িতে রাখা, পরস্পরের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়াতে উদ্বুদ্ধ করা। মুরাকামি সংগীতপ্রেমী মানুষ, সুবিশাল তাঁর ব্যক্তিগত রেকর্ড সংগ্রহ। একসময় একটি জ্যাজ ক্লাব চালাতেন, সংগীত নিয়ে তাঁর একটি বইও রয়েছে। তাঁর একাধিক লেখায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে সংগীতের অনুষঙ্গ। রেডিওতে এর আগেও তাঁকে একাধিকবার পাওয়া গেছে। টোকিও এফএমসহ ৩৮টি বেতারকেন্দ্র থেকে একযোগে দেশজুড়ে সম্প্রচারিত দুই ঘণ্টাব্যাপী এবারের শোতে তিনি শোনান রোনাল্ড আইজে ও বার্ট ব্যাকারাকের ‘রেইনড্রপস কিপ ফলিং অন মাই হেড’, ব্রুস স্প্রিংস্টিনের ‘ওয়েটিন অন আ সানি ডে’, ক্যারল কিংয়ের ‘ইউ হ্যাভ গট আ ফ্রেন্ড’সহ তাঁর নিজের পছন্দের বেশ কিছু গান, তারপর শ্রোতাদের সঙ্গে এক প্রশ্নোত্তর সেশনও করেন।

ওয়াটারস্টোনস স্টোর

কোয়ারেন্টিনে বই

ব্রিটেনে বইয়ের সবচেয়ে বড় চেইনশপ ওয়াটারস্টোনস। ব্রিটেন ও আশপাশের দেশগুলোতে ৩০০ মতো দোকান রয়েছে তাদের। স্বাভাবিক সময়ে তারা ব্রিটেনেই বছরে চার কোটি বই বিক্রি করে থাকে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে মার্চের শেষদিকে ব্রিটেনে লকডাউন ঘোষণা করা হলে ওয়াটারস্টোনস তাদের ক্রেতাসাধারণ ও কর্মচারীদের স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা চিন্তা করে দোকানগুলো বন্ধ করে দেয়। শুধু অনলাইনে বিক্রির ব্যবস্থাটি চালু রাখে। অনলাইনে বিক্রিবাট্টা ৩০০ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে। ব্রিটিশ সরকার এখন ধীরে ধীরে লকডাউন শিথিল করার চিন্তা করছে। এমন অবস্থায় ওয়াটারস্টোনসের দোকানগুলোও আবার খোলার চিন্তা করা হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটির সিইও জেমস ডুন্ট জানিয়েছেন, তেমন ক্ষেত্রে ক্রেতারা কোনো বই হাতে তুলে নেওয়ার পর সেটি যদি না কেনেন তবে সে বইটিকে তাঁরা কোয়ারেন্টিনে পাঠাবেন। ক্রেতাদের যেকোনো স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে একটি বইকে অন্তত তিন দিন কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে। বিশেষজ্ঞদের মতে, নতুন করোনাভাইরাস সাধারণত কাপড়ের ওপর দুই দিন এবং কাগজের ওপর সপ্তাহখানেক বেঁচে থাকতে পারে। এ কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বার্নারডাইন এভারিস্টো (বাঁয়ে) ও লুসি এলম্যান

ফের লড়াইয়ে বার্নারডাইন ও লুসি

বার্নারডাইন এভারিস্টোর ‘গার্ল, উয়োম্যান, আদার’ এবং লুসি এলম্যানের ‘ডাকস ও নিউবুরিপোর্ট’ উপন্যাস দুটি গত বছর বুকার পুরস্কারের চূড়ান্ত লড়াইয়ে মুখোমুখি হয়েছিল। বার্নারডাইন ও লুসির বই দুটি আবারও প্রতিযোগিতায় শামিল হলো। এবারের লড়াই অরওয়েল অ্যাওয়ার্ডের পলিটিক্যাল ফিকশন জয়ের। সম্প্রতি তিন হাজার পাউন্ড সম্মানীর এ পুরস্কারের জন্য মনোনীত বইয়ের সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। বার্নারডাইন ও লুসির বই দুটি ছাড়া পলিটিক্যাল ফিকশনের সংক্ষিপ্ত তালিকার অন্য বইগুলো হচ্ছে—জন ল্যান্সেস্টারের ‘দ্য ওয়াল’, অ্যাটিকা লকের ‘হ্যাভেন, মাই হোম’, এডনা ও’ব্রিয়েনের ‘গার্ল’ এবং কলসন হোয়াইটহেডের ‘দ্য নিকেল বয়েজ’। অন্যদিকে, পলিটিক্যাল রাইটিংয়ের সংক্ষিপ্ত তালিকার বইগুলো হচ্ছে—টিম বুভেরির ‘আপিজিং হিটলার : চেম্বারলেইন, চার্চিল অ্যান্ড দ্য রোড টু ওয়ার’, কেট ক্লানসির ‘সাম কিডস আই টট অ্যান্ড হোয়াট দে টট মি’, ক্যারোলিন ক্রিয়াডো পেরেজের ‘ইনভিজিবল উয়োমেন : এক্সপোজিং ডেটা বায়াস ইন আ ওয়ার্ল্ড ডিজাইনড ফর মেন’, অ্যামেলিয়া জেন্টেলম্যানের ‘দ্য উইন্ডরাশ বিট্রেয়াল : এক্সপোজিং দ্য হোস্টাইল এনভায়রনমেন্ট’, রবার্ট ম্যাকফারলেনের ‘আন্ডারল্যান্ড : আ ডিপ টাইম জার্নি’।

রিয়াজ মিলটন

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা