kalerkantho

সোমবার । ১০ কার্তিক ১৪২৭। ২৬ অক্টোবর ২০২০। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

৭২তম এমি অ্যাওয়ার্ডস

শিট’স ক্রিক, জেনডায়ার ইতিহাসের রাত

লতিফুল হক   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শিট’স ক্রিক, জেনডায়ার ইতিহাসের রাত

‘গেম অব থ্রোনস’ না থাকলেও এমিতে গেল বছরই শেষ হওয়া সিরিজটির শূন্যতা অনুভব করেনি এইচবিও। এবারও সর্বোচ্চ পুরস্কার [৩০টি] ঘরে তুলেছে চ্যানেলটি। অবশ্য বাংলাদেশ সময় ২১ সেপ্টেম্বর ভোরে লস অ্যাঞ্জেলেসে অনুষ্ঠিত এবারের এমিতে সবচেয়ে বেশি (সাত) পুরস্কার জিতেছে এবিসি চ্যানেলের সিচুয়েশন কমেডি ‘শিট’স ক্রিক’। সর্বোচ্চ মনোনয়ন পেয়েছিল এইচবিও সুপারহিরো সিরিজ ‘ওয়াচম্যান’। ‘শিট’স ক্রিক’ অভিনয়ের চারটি গুরুত্বপূর্ণ পুরস্কার জিতেছে, যা  কমেডি অথবা ড্রামা সিরিজের ক্ষেত্রে প্রথম। এক আসরে গুরুত্বপূর্ণ সাত পুরস্কার জেতার ইতিহাসও এই প্রথম। ‘শিট’স ক্রিক’ আউটস্ট্যান্ডিং কমেডি সিরিজ হয়েছে। এতে অভিনয়ের জন্য কমেডি ক্যাটাগরিতে সেরা অভিনেতা ও অভিনেত্রী হয়েছেন যথাক্রমে ইউজি লেভি ও ক্যাথেরিন ও’হারা। ‘ওয়াচম্যান’-এর জন্য লিমিটেড সিরিজ অর মুভি ক্যাটাগরিতে সেরা অভিনেত্রী রেজিনা কিং। লিমিটেড সিরিজ অর মুভি ক্যাটাগরিতে সেরা অভিনেতা হয়েছেন মার্ক রাফালো [আই নো দিস মাচ ইজ ট্রু]। এবারের আসরে সবচেয়ে আলোচিত ২৪ বছর বয়সী অভিনেত্রী জেনডায়া। এমির ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে ড্রামা ক্যাটাগরিতে সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন তিনি। এইচবিওর সিরিজ ‘ইউফোরিয়া’তে নেশাগ্রস্ত তরুণীর ভূমিকায় অভিনয় করে এই পুরস্কার জিতেছেন জেনডায়া। জেনিফার অ্যানিস্টন, অলিভিয়া কোলম্যানের মতো অভিনেত্রীদের হারিয়ে পুরস্কার জিতে উচ্ছ্বসিত জেনডায়া, ‘এখনো বিশ্বাস হচ্ছে না আমিই জিতেছি। আমার সঙ্গে মনোনয়ন পাওয়া প্রত্যেককেই আমি অসম্ভব শ্রদ্ধা করি, এই পুরস্কার আমার কাছে বিশেষ কিছু।’ জেনডায়ার পুরস্কার জেতাটা যেন এবারের এমির প্রতীকী ছবি। কারণ এবারের বেশির ভাগ পুরস্কারই গেছে কৃষ্ণাঙ্গ অভিনেতা-অভিনেত্রীদের ঘরে। অভিনয় ক্যাটাগরির ১৮ পুরস্কারের মধ্যে ৯টিই পেয়েছেন ‘কালো’রা, যা এমির ইতিহাসে প্রথম। ড্রামা ক্যাটাগরিতে সেরা অভিনেতা হয়েছেন জেরেমি স্ট্রং [সাকসেশন]। এই ‘সাকসেশন’ ড্রামা ক্যাটাগরিতে সেরা সিরিজ হয়েছে।

করোনার কারণে এমি হয়েছে ভার্চুয়ালি। ছিল না রেড কার্পেটে তারকাদের ঝলমলে উপস্থিতি। একা ছিলেন শুধু উপস্থাপক জিমি কিমেল। তাঁর সঙ্গে ১০০টির বেশি স্থান থেকে সরাসরি যুক্ত হন পুরস্কারজয়ীরা। তবে কিছু সময়ের জন্য সরাসরি হাজির ছিলেন জেনিফার অ্যানিস্টন। অনুষ্ঠানের শুরুতে জিমির সঙ্গে খুনসুটি করতে দেখা যায় তাঁকে। অ্যানিস্টন পরে চমকে দেন বাড়ি থেকে যুক্ত হয়েও। কারণ তখন তাঁর সঙ্গে ছিলেন লিসা কুড্রো ও কোর্টনি কক্স! সব মিলিয়ে ‘ফ্রেন্ডস’-এর পুনর্মিলনীর মঞ্চও ছিল এবারের এমি।

 

সূত্র : এএফপি, বিবিসি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা