kalerkantho

বুধবার । ১৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১২ সফর ১৪৪২

প্রধানমন্ত্রী সমীপে

স্টার সিনেপ্লেক্সের সাত দফা দাবি

রংবেরং প্রতিবেদক   

১৪ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্টার সিনেপ্লেক্সের সাত দফা দাবি

সংবাদ সম্মেলনে স্টার সিনেপ্লেক্সের চেয়ারম্যান মাহবুব রহমান রুহেল [ডানে]

করোনার কারণে অন্য সব ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের মতো ক্ষতির মুখে পড়েছে স্টার সিনেপ্লেক্স। সরকারের সহায়তা না পেলে বন্ধ হয়ে যেতে পারে দেশের অভিজাত মাল্টিপ্লেক্সটি! ১২ আগস্ট সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানালেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ও চলচ্চিত্র প্রযোজক মাহবুব রহমান রুহেল। সিনেপ্লেক্সের মহাখালী শাখায় আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘বিপণিবিতান, রেস্তোরাঁ, পাঁচতারা হোটেল, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট, পর্যটনসহ দেশের অর্থনীতির প্রায় সব খাত সচল করে দেওয়া হয়েছে, শুধু সিনেমা হল বন্ধ। এটা খুব হতাশাজনক। আধুনিক মাল্টিপ্লেক্স সিনেমা হলগুলো যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে মানুষের বিনোদন চাহিদা মেটাতে সক্ষম।’

চীন, জার্মানি, ইতালি, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্সসহ করোনা আক্রান্ত বিভিন্ন দেশে সিনেমা হল খুলে দেওয়ার উদাহরণ টেনে রুহেল বলেন, ‘সংস্কৃতি ও বিনোদন সংশ্লিষ্ট শিল্পের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আর্থিক সহায়তাও করছে বিভিন্ন দেশের সরকার। দুই ট্রিলিয়ন ডলার আর্থিক সহায়তা বিল পাস করেছে যুক্তরাষ্ট্রের সিনেট। ফ্রান্সের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় বরাদ্দ দিয়েছে পাঁচ বিলিয়ন ইউরো। যুক্তরাজ্য সরকার দিয়েছে দুই বিলিয়ন ডলার। চলচ্চিত্রশিল্পের মেরুদণ্ড বলা যায় সিনেমা হলকে। হল না বাঁচলে চলচ্চিত্র বাঁচবে না।’

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর সাত দফা দাবি তুলে ধরা হয়। ১ নম্বর দাবি, অনতিবিলম্বে সিনেমা হল খুলে দেওয়া হোক। আছে প্রণোদনা তহবিল গঠন, টিকিটের ওপর সব ধরনের মূসক ও কর মওকুফ, সুদবিহীন ঋণ প্রদানের অনুমোদন, উপমহাদেশীয় ভাষার চলচ্চিত্র শর্তহীনভাবে আমদানির দাবি। স্টার সিনেপ্লেক্সের প্রতিটি শাখা বিভিন্ন শপিং মলে অবস্থিত। সেগুলো ভাড়ায় পরিচালিত হয়। করোনার এই সময়ে ভাড়া মওকুফ এবং অবস্থা স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত অর্ধেক ভাড়া নেওয়ার অনুরোধ শপিং মল কর্তৃপক্ষের কাছে জানান তাঁরা।

ঢাকার বিভিন্ন বিপণিবিতানে ১৫টি পর্দা রয়েছে মাল্টিপ্লেক্সটির। মিরপুরে চতুর্থ শাখা চালুর প্রস্তুতি সম্পন্ন। ২০১৮ ও ২০১৯ সালে উচ্চ সুদে ব্যাংকঋণ নিয়ে স্টার সিনেপ্লেক্সের তিনটি নতুন শাখা চালু করা হয়। দীর্ঘদিন আয় বন্ধ থাকায় ঋণের সুদ এবং কর্মীদের বেতন দেওয়া অসম্ভব হয়ে পড়ছে বলে জানালেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান। প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে মাহবুব রহমান রুহেল বলেন, ‘এই দুঃসময়ে আমাদের শেষ ভরসা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনিই পারেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া চলচ্চিত্রশিল্প এবং এর সঙ্গে জড়িত হাজার হাজার মানুষ ও তাদের পরিবারকে রক্ষা করতে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা